বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ০৬ যিলহজ ১৪৪৫ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

সহিংসতা বন্ধে একমত ইসরাইল-ফিলিস্তিন

সিরিয়ায় আকস্মিক সফরে আরব দেশের স্পিকাররা

| প্রকাশের সময় : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ১২:০০ এএম

অধিকৃত পশ্চিম তীরে সহিংসতা বন্ধে একমত হয়েছে ফিলিস্তিনি ও ইসরাইল। সহিসংতা রোধে উভয় পক্ষই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। সোমবার কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। এর আগে, গত ২২ ফেব্রুয়ারি অধিকৃত পশ্চিম তীরের নাবলুস শহরে অভিযান চালিয়ে ১১ ফিলিস্তিনিকে হত্যা করে ইসরাইল। জবাবে গাজা উপত্যকা থেকে একাধিক রকেট ছোড়া হয়। এরপর ওইদিন রাতেই গাজা উপত্যকার আল শাতি শরণার্থী শিবির লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালায় ইসরাইলি বাহিনী। এ নিয়ে ইসরাইল-ফিলিস্তিনের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করতে থাকে। পরে সহিংসতা থামাতে দুই পক্ষের শীর্ষ কর্মকর্তাদের নিয়ে বৈঠকের আয়োজন করে জর্ডান। বৈঠকের পর ইসরাইল-ফিলিস্তিন এক যৌথ বিবৃতিতে জানায়, যেকোনো ধরনের সহিংসতা রোধে একযোগে কাজ করবে ইসরাইল ও ফিলিস্তিন। একইসঙ্গে পরিস্থিতি স্থিতিশীল করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তরা। এ ছাড়া ইসরাইল প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তারা চার মাসের জন্য নতুন বসতি স্থাপন কাজ বন্ধ রাখতে আলোচনা করবে এবং ছয় মাসের জন্য নতুন বসতি স্থাপনের অনুমোদন দেবে না। দুই পক্ষই আগামী মাসে (মার্চ) মিসরের শার্ম আল শেখে আবারও বৈঠকে বসার বিষয়ে সম্মতি প্রকাশ করেছে। অপর এক খবরে বলা হয়, কয়েকটি আরব দেশের সংসদ স্পিকার এবং শীর্ষ পর্যায়ের আইনপ্রণেতারা আকস্মিকভাবে সিরিয়া সফরে গেছেন। আরব লিগে সিরিয়াকে ফেরত আনার ব্যাপারে যখন জোর প্রচেষ্টা চলছে, তখন কয়েকটি আরব দেশের স্পিকার এবং শীর্ষ পর্যায়ের আইনপ্রণেতা দামেস্ক সফরে গেলেন। খবর সানার। ২০১১ সালে সিরিয়ায় বিদেশি মদতপুষ্ট উগ্র সন্ত্রাসীদের তা-ব শুরুর পর সিরিয়া সরকার তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে শুরু করলে ২২ জাতির জোট আরব লিগ থেকে দামেস্ককে বহিষ্কার করা হয়। রোববার আরব দেশের আইনপ্রণেতারা দামেস্কের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন এবং তাদের সিরিয়ার জাতীয় সংসদের স্পিকার হাম্মুদা সাব্বাগ অভ্যর্থনা জানান। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ইরাকের রাজধানী বাগদাদে আরব আন্তঃসংসদীয় ইউনিয়নের ৩৪তম বৈঠকের পরিবেশ ছিল অত্যন্ত ইতিবাচক। এই বৈঠকে আরব দেশগুলোর মধ্যকার ঐক্যের ওপর জোর দেওয়া হয় এবং সিরিয়াকে আরব কূটনীতির ধারায় ফিরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা চলছে। সাব্বাগ বলেন, আরব দেশগুলোর সংসদ স্পিকার এবং শীর্ষ পর্যায়ের আইনপ্রণেতাদের এই সফর চলমান চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার ক্ষেত্রে আরব দেশগুলোর যৌথ প্রচেষ্টার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে সিরিয়া। সফর সম্পর্কে আরব স্পিকারদের পক্ষ থেকে মিশরের হাউস স্পিকার হানাফি আল জেবালি বলেন, বিপর্যয়কর ভূমিকম্পের আঘাতের পর সিরিয়ার সরকার ও জনগণের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করতে এবং তাদের প্রতি সমর্থন জানাতে আমরা দামেস্ক সফরে এসেছি। এর আগে শনিবার ইরাকের রাজধানী বাগদাদে আরব সংসদীয় ইউনিয়নের বৈঠকে ইরাকের সংসদ স্পিকার মোহাম্মদ আল-হালবুসি আরব লিগে সিরিয়াকে ফেরত নেওয়ার ওপর জোর দেন। আল-জাজিরা, সানা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন