ঢাকা, বুধবার ২৪ জুলাই ২০১৯, ০৯ শ্রাবণ ১৪২৬, ২০ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

লাইফস্টাইল

গ্রিন টির উপকারিতা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ মার্চ, ২০১৮, ১২:০০ এএম

গ্রিন টি বা সবুজ চা স্বাস্থ্যের জন্যে ভালো। এটি পানে ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে। খাদ্য বিশেষজ্ঞরা এর গুণাবলীতে চমকৃত হয়ে এ সম্পর্কে অধিক জানার জন্যে আগ্রহী হয়ে উঠেন এবং তারা সবুজ চার বহু গুণাবলী সম্পর্কে জানতে পারেন। তাদের প্রাপ্ত গ্রিন টি বা সবুজ চা-এর চমকপ্রদ উপকারিতার কয়েকটি এখানে তুলে থরা হলো ঃ
ওজন কমায়:
সবুজ চা বিপাক প্রক্রিয়া বৃদ্ধি করে। এর পলিফেনল শরীরের ফ্যাট অক্সিডেশন প্রক্রিয়াকে আরও কার্যকর করে খাবার থেকে ক্যালরি তৈরি প্রক্রিয়ায় সহায়তা করে। ফলে দেহে অতিরিক্ত চর্বি জমতে পারে না। একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, এটি এক দিনে ৭০ কালরি পর্যন্ত ফ্যাট বার্ন করে। তার মানে রেগুলার গ্রীন টি পানের মাধ্যমে বছরে ৭ পাউন্ড পর্যন্ত ওজন কমানো সম্বব।
ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে:
সবুজ চা দৃশ্যত রক্তের গøুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। খাওয়ার পরে রক্তে শর্করার মাত্রা বাড়ে, যা প্রত্যক্ষভাবে নিয়ন্ত্রণ করে গ্রিন টি।
হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়:
বিজ্ঞানীরা মনে করেন, গ্রিন টি শরীরের প্রতিটি শিরায় কাজ করে। ফলে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকে। তাই কোনো কারণে রক্ত চাপে পরিবর্তন হলেও কোন ধরনের ক্ষতি করে না। তাছাড়া এই চা রক্ত জমাট বাধতে দেয় না। ফলে হার্ট অ্যাটাক হওয়ার সম্ভবনা অনেক কমে যায়।
খাদ্যনালীর ক্যান্সার রোধ:
এটা খাদ্যনালীর ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়। এছাড়াও ভালো কোষগুলোর কোনো ক্ষতি না করে সার্বিকভাবে ক্যান্সারের কোষ নির্মূল করে।
কলেস্টেরল:
গ্রিন টি শরীরের ক্ষতিকর কলেস্টেরলের মাত্রা হ্রাস করতে সাহায্য করে। পাশাপাশি প্রয়োজনীয় উপকারী কোলেস্টেরলের পরিমাণও বাড়ায়।
দাঁত ভালো রাখে:
গ্রিন টি’র ‘ক্যাটেকাইন’ নামক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট মুখের ভিতরের বিভিন্ন ব্যকটেরিয়া ও ভাইরাস ধ্বংস করে। যা গলার ইনফেকশনসহ দাঁতের বিভিন্ন সমস্যা কমিয়ে আনে।
রক্ত চাপ কমায়:
বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, নিয়মিত গ্রিন টি পান করলে উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি কমে ।
ডিপ্রেশন দূর করে:
প্রাকৃতিকভাবেই ‘থিয়ানিন’ নামের অ্যামাইনো এসিড চা পাতায় পাওয়া যায়। এই উপাদান দুশ্চিন্তা ও হতাশা কমাতে সাহায্য করে। তাই নিয়মিত গ্রিন টি পান করলে অবসাদ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।
এন্টি-ভাইরাল এবং ব্যাকটেরিয়া বিরোধী:
সবুজ চা ইনফ্লুয়েঞ্জা থেকে ক্যান্সার পর্যন্ত সব রকমের রোগের প্রতিরোধক হিসেবে কাজ করে। এটা ক্যান্সারের ধ্বংসাত্মক সেল ধ্বংস করে। চায়ের ক্যাটেকাইন উপাদান অ্যান্টি ভাইরাল ও অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল হিসেবে বেশ কার্যকর। গবেষণায় দেখা গেছে, অনেক রোগ বিস্তারেও বাধা দেয় গ্রিন টি।
ত্বকের যত্নে:
গ্রীন টি তে রয়েছে এক ধরনের এন্টিঅক্সিডেন্ট যা বার্ধক্যের গতিকে ধীর করে এবং আয়ু বাড়ায়। চোখের ফোলা ভাব এবং চোখের নীচের ডার্ক সার্কেল কমাতে ব্যবহার করা গ্রীন টি এর দুটি ব্যাগ ২ ঘন্টা ফ্রীজে রেখে, ঠান্ডা করে চোখ বন্ধ করে এর উপর ১০ মিনিট রাখুন। তাছাড়া এটি ত্বকের রোদে পোড়াভাব কমাতে ও ব্ল্যাক হেডস দূর করতে সাহায্য করে। গ্রীন টি খুব ভালো টোনার হিসেবে কাজ করে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (3)
বশির ১৮ মার্চ, ২০১৮, ৩:৩৪ এএম says : 0
এই নিউজটির জন্য ধন্যবাদ
Total Reply(0)
Mohammad Farouk Hossain ১৮ মার্চ, ২০১৮, ১২:৪৭ পিএম says : 0
Good information.
Total Reply(0)
MohammadZia uddin ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১১:৪৩ এএম says : 0
গ্রীন টি ফ্রিজে রাখার পরে শুকিয়ে যায় তাহলে কি একটু ভিঝিয়ে নিব?
Total Reply(0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন