ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

মুসলিম যুবক হত্যা ভারতে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৫ জুন, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

ভারতে ঝাড়খন্ডে ‘চোর সন্দেহে’ এক মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ১৮ ঘণ্টা ধরে বেধড়ক মারধরের পর অচেতন হয়ে পড়লে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়। এর আগে জোর করে ‘জয় শ্রীরাম’, ‘জয় হনুমান’ বলতে বাধ্য করা হয় তাকে। নৃশংস হত্যাকান্ডের শিকার হওয়ার ২৪ বছরের ওই যুবকের নাম তাবরেজ আনসারি। ইতোমধ্যেই ঝাড়খন্ডের খারসাওয়ান এলাকার ওই গণপিটুনির একাধিক ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওতে দেখা যায়, এক ব্যক্তি তাবরেজকে একটি কাঠের লাঠি দিয়ে নৃশংসভাবে মারধর করছে। আক্রান্ত যুবক ছেড়ে দেওয়ার আকুতি নিয়ে হাত জোড় করলেও তাতে কোনও ভ্রুক্ষেপ নেই মারধরকারী উন্মত্ত ব্যক্তির। আরেক ভিডিওতে দেখা গেছে, জোর করে তাবরেজকে বলানো হচ্ছে জয় শ্রী রাম ও জয় হনুমান। অনলাইন মুম্বই মিরর এ খবর দিয়েছে। এতে বলা হয়, জামশেদপুরের খারসাওয়ানন্দ সারাইকেলাতে সন্দেহজনকভাবে স্থানীয়রা রোববার চোর সাব্যস্ত করে ওই যুবককে। তাকে বেদম মারপিট করা হয়। এরপর তাকে রোববার সকালে ভর্তি করা হয় সদর হাসপাতালে। সেখান থেকে তাকে স্থানান্তর করা হয় জামশেদপুরে টাটা মেইন হাসপাতালে। তার পরিবারের দাবি, তার ওপর যে হামলা হয়েছে তা সা¤প্রদায়িক। তাকে ‘জয় শ্রীরাম’ এবং ‘জয় হনুমান’ শ্লোগান দিতে বাধ্য করা হয়েছে। পরিবার আরো বলছে, স্থানীয় কিছু মানুষ তাবরেজকে প্রচন্ড মারপিট করে। পরে তাকে তুলে দেয় পুলিশে। চুরির সন্দেহে তার সঙ্গে এমন আচরণ করা হলেও সে সা¤প্রদায়িক হামলার শিকার। তাকে মারপিট করা হয়েছে সে একজন মুসলিম বলে। তাবরেজের একজন আত্মীয় মাকসুদ আলম বলেছেন, বার বার তাবরেজকে ‘জয় শ্রীরাম’ ও ‘জয় হনুমান’ শ্লোগান দিতে বাধ্য করা হয়েছে। তাকে হাসপাতালে দেখতে যেতে চাইলেও আমাদেরকে অনুমতি দেয়া হয়নি। ওই হামলার ভিডিও আছে আমাদের কাছে। আমরা চাই অপরাধীদের গ্রেপ্তার করা হোক। ওই সময় যেসব পুলিশ সেখানে দায়িত্বে ছিলেন তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা চাই আমরা। এ বিষয়ে একটি মামলা করা হয়েছে। ভিডিওতে দেখা গেছে, উন্মত্ত জনতা তাকে মারধর করছে। এরমধ্যেই তিনি কাতরে বলতে থাকেন, আমার মা মারা গেছেন। তার নামে শপথ করে বলছি, আমি এমন কাজ (চুরি) করিনি। তবে তবরেজের কথা কথা কেউ শুনতে চায়নি। দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া, মুম্বই মিরর।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (12)
HmRayhan Islam ২৫ জুন, ২০১৯, ১:২৩ এএম says : 0
আল্লাহ্ বুকটা ফেটে যাচ্ছে
Total Reply(0)
Robi Robi Robi ২৫ জুন, ২০১৯, ১:২৩ এএম says : 0
সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা তাকে জোর করে জয় শ্রীরাম না বলায় হত্যা করা হয়
Total Reply(0)
Sanjay Gope Sunju ২৫ জুন, ২০১৯, ১:২৩ এএম says : 0
কেউ ভারতে মরে কেউ বাংলাদেশ মরে । কিন্তু যে মারে সে কি নিজের মরনের চিন্তা করে ? করবেই বা কি ভাবে কারণ তারা মানুষ না তারা জানুয়ার । আরে যারা মানুষ হয়ে মানুষকে মারতে পারে তারা কখনও কোন ধর্মমের হতে পারে না ।
Total Reply(0)
Nazrul Islam Shakil ২৫ জুন, ২০১৯, ১:২৪ এএম says : 0
ইন্ডিয়া হচ্ছে অন্ধকারাচ্ছন্ন একটি দেশ
Total Reply(0)
Khan Sharif ২৫ জুন, ২০১৯, ১:২৪ এএম says : 0
ইন্ডিয়াতে এমন ঘটনা প্রায় ঘোটতেছে এর কোনো বিচার ও হচ্ছে না। এরা জোর করে অন্যাই করতেছে তার কোনো প্রতিবাদ ও হচ্ছে না। এখন আমার প্রশ্ন হচ্ছে এদের কে কেনো জঙ্গি বলা হচ্ছে না? আর মিডিয়া কেন এদের কে জঙ্গি বলে না?
Total Reply(0)
Mohammed Jashim Uddin ২৫ জুন, ২০১৯, ১:২৪ এএম says : 0
সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা তাকে জোর করে জয় শ্রীরাম না বলায় হত্যা করা হয়
Total Reply(0)
Sujan Kumar ২৫ জুন, ২০১৯, ১:২৪ এএম says : 0
কোন ধর্মে নাই জোর করে কাউকে বাধ্য করা ধর্ম কি অপদস্থ করা এগুলো কোন ভাল মানুষের কাজ নয়
Total Reply(0)
Masuma Jafar ২৫ জুন, ২০১৯, ১:২৫ এএম says : 0
আল্লাহ তোমাকে বেহেশত নসিব করুন।
Total Reply(0)
যাযাবার বালক ২৫ জুন, ২০১৯, ১:২৫ এএম says : 0
চোরকে কেউ জোর করে "জয় শ্রী ভাম" "জয় হনুমান/বান্দর" বলায় না। এই নাটক বিশ্ববাসী খাবে না। ওরা উগ্রবাদী জঙ্গিদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া অতী জরুরী।
Total Reply(0)
Abdur Rahim ২৫ জুন, ২০১৯, ১:২৫ এএম says : 0
ভারতে মুসলমানরা হিন্দুদের হাতে খুন হচ্ছে, অথচ এখানে হিন্দু, বৌদ্ধ, খৃস্টান ঐক্য পরিষদ বলছে বাংলাদেশের হিন্দুরা নিরাপদ নয়।
Total Reply(1)
kuli ২৫ জুন, ২০১৯, ৮:৪০ পিএম says : 0
ওদেরকে এইভাবে পিটান হলে তারপর বুঝবে নিরাপত্তা কি জিনিস।বাংলায় হিন্দু পরিসদ গুলারে এইভাবে পিটানো ওচিত।
মোঃ তাজুল ইসলাম মিয়াজী ২৫ জুন, ২০১৯, ৩:৩৮ এএম says : 0
১৪০০শত পুর্বে মুসলিমদেরকে যে সতর্ক বাণী দিয়ে গেছেন , আজ ভারত ও বার্মার আস পাস এলাকায় মুসলিমদেরকে যে ভাবে নির্যাতন করা হচ্ছে মনে হয় খুব নিকটেই সেই ভবিষ্যৎ বাণী বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে , তাই মুসলিম দেরকে কুরআন ও হাদীসের উপর আমল ও বুঝার চেষ্টা করতে হবে ।
Total Reply(1)
kuli ২৫ জুন, ২০১৯, ৮:৪২ পিএম says : 0
শুধু বুঝলে হবেনা বেবস্থা নিতে হবে।না হলে মুসলিম প্রধান দেশগুলোতে মার খেতে হবে।
mohi ২২ জুলাই, ২০১৯, ৫:১৬ পিএম says : 0
আর যাই হোক একজন মানুষকে পিটিয়ে মেরে ফেলার অধিকার তোদেরকে কে দিল
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন