ঢাকা, মঙ্গলবার , ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

৩১ অক্টোবরেই ত্যাগ চায় যুক্তরাজ্য

ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত পেছাবে বেক্সিট : সানডে টাইমস

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন যদি চলতি সপ্তাহে অর্থাৎ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তার সম্পাদিত চুক্তি পার্লামেন্টে পাস করাতে ব্যর্থ হন তাহলে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ব্রেক্সিট কার্যকরের নির্ধারিত সময় পিছিয়ে দেবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। যুক্তরাজ্যের দৈনিক দ্য সানডে টাইমসের এক প্রতিবেদনে কূটনৈতিক স‚ত্রের বরাতে এমন খবর জানিয়ে বলা হয়েছে, বর্ধিত সময় শেষ হওয়ার আগে যদি চুক্তিটি পার্লামেন্টের অনুমোদন লাভে সমর্থ হয় তাহলে ১ নভেম্বর অথবা ১৫ ডিসেম্বর নইলে জানুয়ারিতে ব্রেক্সিট কার্যকর করতে পারবে যুক্তরাজ্য। পত্রিকাটির অনলাইন প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়েছে, আগামী মঙ্গলবারের আগে বরিসের সম্পাদিত চুক্তিটি পার্লামেন্টে পাস হওয়ার সম্ভাবনা থাকার কারণে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) এখনো আনুষ্ঠানিক কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। ওই সময় পার হওয়ার তারা তাদের সিদ্ধান্ত জানাবে। রোববার ইউরোপীয় ইউনিয়নের ক‚টনৈতিক ও কর্মকর্তারা ব্রিটিশ সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছে, লন্ডনে কী অগ্রগতি হচ্ছে তার ওপর এটা নির্ভর করছে। এমন হতে পারে যে ব্রেক্সিট কার্যকরের জন্য আগামী নভেম্বর অথবা আরও ছয় মাস পর্যন্ত সময় দেয়ার হতে পারে। অপরদিকে, ব্রেক্সিটে সময় চেয়ে ইইউ’কে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সই ছাড়া চিঠি পাঠানোর পরও যুক্তরাজ্য ৩১ অক্টোবরেই ইউরোপীয় ইউনিয়ন ত্যাগ করবে। যুক্তরাজ্য সরকার রোববার একথা জানিয়েছে বলেছে, তারা ব্রেক্সিট চুক্তি পাস করানোর জোর চেষ্টা চালাবে। শনিবার এমপি’রা চুক্তি অনুমোদনে দেরির পদক্ষেপে সমর্থন দেওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী জনসনকে বিরোধীদের পাস করা ‘বেন অ্যাক্ট’ মেনে ইইউ এর কাছে সময় বাড়ানোর ওই আবেদন জানাতে হয়েছে। তবে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোমিনিক র‌্যাব বলেছেন, আগামী সপ্তাহে চুক্তিতে পার্লামেন্টে এমপি’দের যথেষ্ট সমর্থন পাওয়া যাবে বলে তার আস্থা আছে। আর তাই ব্রেক্সিট এখনো নির্ধারতি সময়েই হওয়া সম্ভব। ওদিকে, চুক্তিবিহীন ব্রেক্সিটের ক্ষেত্রে প্রস্তুতির দায়িত্বে থাকা মন্ত্রী মাইকেল গভও ‘দ্য স্কাই নিউজ’কে বলেছেন, যুক্তরাজ্য ৩১অক্টোবরেই ইইউ ত্যাগ করবে। তিনি বলেন, “আমাদের সে পথ আছে এবং আমরা তা করতেও সক্ষম।” “ইইউ’কে ওই চিঠি পাঠানো হয়েছে, কারণ পার্লামেন্টকে তা করতে হবে... কিন্তু তাই বলে পার্লামেন্ট প্রধানমন্ত্রীর মন পরিবর্তন করতে পারবে না, সরকারের নীতি কিংবা সংকল্পকেও পরিবর্তন করতে পারবে না।” ব্রিটিশ সরকার আগামী সপ্তাহে সোমবার নাগাদই চুক্তি বাস্তবায়নে বদ্ধপরিকর। রয়টার্স, স্কাই নিউজ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন