রোববার, ২৯ মে ২০২২, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৭ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

চীন থেকে আরো ফাইটার মিসাইল কিনছে পাকিস্তান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০২ এএম

চীনের কাছ থেকে অত্যাধুনিক জে-১০সিই যুদ্ধবিমান ও মিসাইল কিনছে পাকিস্তান। সম্প্রতি, ভারত ফ্রান্সের রাফাল যুদ্ধবিমান কেনায়, পাকিস্তানও নিজেদের বিমানবাহিনীর শক্তি বৃদ্ধি করা শুরু করেছে। পাকিস্তানের বিমান বহরে জে-১০সিই যুদ্ধবিমান যুক্ত হলে তা ভারতের জন্য আরেকটি চ্যালেঞ্জ হিসাবে দেখা দেবে। ফ্রান্সের কাছ থেকে ভারতের দুই স্কোয়াড্রন রাফাল জঙ্গিবিমান কেনা একটি গেম চেঞ্জার হবে বুঝতে পেরেছে পাকিস্তান। ফলে তারাও মরিয়া হয়ে চীনের কাছ থেকে ৩০টি জে-১০সিই জঙ্গিবিমান ও বিমানবাহিনীর অত্যাধুনিক এয়ার-টু-এয়ার মিসাইল কিনতে চাচ্ছে। জে-১০সিই হচ্ছে চীনের চেংদু জে-১০ যুদ্ধবিমানের রফতানি মডেল। এটিকে বলা হয় মার্কিন এফ-১৬ এর আধুনিক সংস্করন। রাফালের মতোই সেমি-স্টেলথ প্রযুক্তি সম্পন্ন ৪.৫ জেনারেশনের যুদ্ধবিমান এটি। ২০০৯ সালে পাকিস্তান প্রথম জেএ-১০ কেনার আগ্রহ প্রকাশ করে। কিন্তু পাকিস্তানের সঙ্গে চীন যৌথভাবে জেএফ-১৭ তৈরির কাজে হাত দিলে জেএ-১০ কেনার বিষয়টি আড়ালে পড়ে যায়। এখন ভারত রাফাল কেনায় চীন ও পাকিস্তান আবারো আলোচনা শুরু করেছে বলে বলে উচ্চ পর্যায়ের সরকারি সূত্রে জানা গেছে। জে-১০সিই ছাড়াও পাকিস্তান পিএল-১০ ও পিএল-১৫, যথাক্রমে স্বল্প ও দূর পাল্লার এয়ার-টু-এয়ার মিসাইল চেয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র ক্রমেই ভারতের ঘনিষ্ঠ হয়ে ওঠায় পাকিস্তানের অত্যাধুনিক অস্ত্র সংগ্রহের একমাত্র উৎস হয়ে উঠেছে চীন। জে-১০সিই হলো পিপলস লিবারেশন আর্মির ব্যবহার করা জে-১০ জঙ্গিবিমানের রফতানি সংস্করণ। এতে এইএসএ রাডার, ফায়ার কন্ট্রোল সিস্টেম ও ইনফ্রারেড প্রযুক্তি রয়েছে। পাকিস্তান বিমান বাহিনী (পিএএফ) শুধু রাফালে থাকা মেটেওর এয়ার-টু-এয়ার মিসাইল নিয়েই উদ্বিগ্ন নয়, মিকা মিসাইল নিয়েও উদ্বেগ রয়েছে তাদের। কারণ মিকাও বিমান থেকে ছোঁড়া যায। পিএএফ জঙ্গিবিমানের জন্য বড় ধরনের হুমকি সৃষ্টি করবে এস-৪০০ বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা বা মাঝারিপাল্লার সারফেস-টু-এয়ার মিসাইল সিস্টেম। পিএএফের হাতে ১২৪টি জেএফ-১৭ ফাইটার রয়েছে। ইউরোএশিয়ান টাইমস।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন