বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

অ্যাসাঞ্জের ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে ইকুয়েডর

যোগাযোগ মাধ্যমে উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতাকে হত্যার গুজব

প্রকাশের সময় : ১৯ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : বিশ্বের ক্ষমতাধর রাষ্ট্র ও কর্পোরেশনের গোপন নথি ফাঁস করে আলোড়ন তোলা বিকল্পধারার সংবাদমাধ্যম উইকিলিকস অভিযোগ করেছে, ইকুয়েডর কর্তৃপক্ষই জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে। তবে অ্যাসাঞ্জকে হত্যার গুজব ছড়ানোর পর ইকুয়েডর জানিয়েছে, তারা অ্যাসাঞ্জকে রক্ষা করে যাবে। গত সোমবার উইকিলিকসের অফিসিয়াল টুইটার একাউন্ট থেকে জানানো হয়, লন্ডনে ইকুয়েডর দূতাবাসে অ্যাসাঞ্জের ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশের সরকার ও বড় বড় কর্পোরেশনের গোপন নথি ফাঁসকারী উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। গত সোমবার উইকিলিকসের অফিসিয়াল টুইটার একাউন্ট থেকে করা রহস্যময় তিনটি টুইট ঘিরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বিভিন্ন পোস্ট পর্যালোচনা করে এ গুজবের কথা জানিয়েছে টাইম.কম। এছাড়া উইকিলিকস জানিয়েছে, একটি সরকারের পক্ষ থেকে এসাঞ্জের ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। যে তিনটি টুইট থেকে অ্যাসাঞ্জকে হত্যার আশঙ্কা করা হচ্ছে সে তিনটি টুইট এনক্রিপ্টেড বার্তা বলে ধারণা করা হচ্ছে। সামাজিক মাধ্যামে দাবি করা হচ্ছে, এ তিনটি কোড হচ্ছে আসলে ডেড মেনস সুইচ বা ডেড মেনস কি। এর অর্থ হচ্ছে, অ্যাসাঞ্জ নিহত কোন কোনও নথিগুলো ফাঁস করতে হবে তার ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে এই কোডেড মেসেজে। এক টুইট বার্তায় বলা হয়, সরকারের পক্ষ থেকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এসাঞ্জের ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। আমারা বিকল্প পরিকল্পনা শুরু করেছি। ওই টুইট বার্তার পরপরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এসাঞ্জের বিষয়ে বিভিন্ন গুজব ছড়াতে থাকে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী হীলারি ক্লিনটনের গোপন তথ্য তথ্য ফাঁস আটকাতে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলেও দাবি করা হতে থাকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। হিলারির নির্বাচনী প্রচারণা শিবিরের চেয়ারম্যান জন পোডেস্তার ইমেইল ফাঁসের পরপরই এই কথা জানায় উইকিলিকস। এদিকে, ওই গুজবের জবাব দিয়েছে ইকুয়েডর কর্তৃপক্ষ। ইকুয়েডরে অবস্থিত মন্ত্রণালয়ের থেকে একটি সূত্র ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা প্রেস এসোসিয়েশন (পিএ)-এর কাছে দাবি করেছে, ২০১২ সালে রাজনৈতিক আশ্রয় নেওয়া জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে রক্ষা করে যাবে ইকুয়েডর। ওই সূত্র আরও দাবি করেছে, তারা টুইটারে ছড়ানো গুজবের কোনও প্রতিক্রিয়া জানায় না। ওই বক্তব্যের পর অপর এক টুইট বার্তায় উইকিলিকস স্পষ্টভাবেই ওই ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার জন্য ইকুয়েডর কর্তৃপক্ষকে দায়ী করেছে। টাইম, আরটি, ডেইলি মেইল।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন