ঢাকা সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১০ কার্তিক ১৪২৭, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

রাশিয়ায় বিবিসি বন্ধের হুমকি

প্রকাশের সময় : ২৪ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : ব্রিটেনে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম আরটি’র সম্প্রচারে যে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে এর নেপথ্যে বিবিসির ইন্ধন রয়েছে এমন দাবি করে এবার রাশিয়াতে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি বন্ধের হুমকি দিয়েছে মস্কো। রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্রকে উদ্ধৃত করে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এবং প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান খবরটি নিশ্চিত করেছে। রুশ পররাষ্ট্র মুখপাত্রকে উদ্ধৃত করে তারা জানিয়েছে, আরটির বিরুদ্ধে নেয়া ব্রিটিশ তৎপরতার প্রতিশোধ নিতেই এমন সিদ্ধান্ত নিতে পারেন তারা। এর আগে গত সোমবার ব্রিটেনে আরটি’র ব্যাংক অ্যাকাউন্ট বন্ধ হয়ে যাওয়ার পরও মস্কোর তরফ থেকে এমন প্রতিক্রিয়া পাওয়া গিয়েছিল। সোমবার আরটি কর্তৃপক্ষ জানায়, ব্রিটেনে তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট কোনো নোটিশ, আলোচনা বা ব্যাখ্যা ছাড়াই বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। চ্যানেলের প্রধান সম্পাদক মার্গারিটা সিমোনিয়াম সে সময় ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমকে জানান, ব্রিটেন দেশটিতে আমাদের সব অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে এবং ন্যাটওয়েস্ট ব্যাংকের পক্ষ থেকে বলে দেয়া হয়েছে যে, এই সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত। এ নিয়ে তারা কোনো আলোচনা করবেন না। বিদ্রুপের সুরে মার্গারিটা মন্তব্য করেন, মতপ্রকাশের স্বাধীনতার জয় হোক। গত শনিবার রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই মুখপাত্র দাবি করেছেন, ব্যাংক হিসাব বন্ধের এই সিদ্ধান্তের পেছনে ব্রিটেনের ইন্ধন রয়েছে। তিনি দাবি করেন, বিবিসির রুশ দফতর থেকে ব্রিটেনে আরটির কার্যক্রম তদন্ত করে দেখা হয়েছে। ওই তদন্তকে তিনি ফলাফলশূন্য এক তদন্ত বলে আখ্যা দেন। তিনি বলেন, বিবিসির রুশ সার্ভিসের সৌভাগ্য কামনা করি। কেননা সেটা এখন তাদের দরকার। ন্যাটওয়েস্ট ব্যাংকে থাকা ব্রিটেনে রাষ্ট্রীয় রুশ সম্প্রচার মাধ্যম আরটি’র (রাশিয়া টুডে) হিসাব বন্ধের সঙ্গে চলছে গার্ডিয়ানের মতো প্রভাবশালী ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমগুলোর আরটিবিরোধী তৎপরতা। আলেপ্পোতে সরকারি বাহিনীর বোমা হামলায় রুশ মদত থাকার অভিযোগের প্রেক্ষাপটে পশ্চিমা দেশগুলো যখন রাশিয়াতে অবরোধ আরোপের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে, তখন শিশুদের নিয়ে কাজ করা এক বেসরকারি সংস্থা এই সংবাদমাধ্যম থেকে তাদের বিজ্ঞাপন তুলে নেয়ার কথা জানিয়েছে। সবমিলে ব্রিটেনে আরটি’র সম্প্রচার চালু রাখা যাবে কিনা, তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। এই প্রেক্ষাপটে শনিবার রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই মুখপাত্র প্রশ্ন তোলেন, আসলে কোনো তদন্ত হয়েছে কি নাকি অন্যকিছু? তিনি ব্রিটেনে আরটির সম্প্রচার বন্ধের দিকে ইঙ্গিত করে বলেন, আসলে এর নেপথ্যে অন্য কোনো নোংরা উদ্দেশ্য ছিল। অবশ্য ন্যাটওয়েস্ট ব্যাংকের ওয়েবসাইটে একটি চিঠি প্রকাশ করা হয়েছে যেখানে বলা হয়েছে, রাশিয়া টুডে’র অ্যাকাউন্ট এখনই বন্ধ করা হয়নি। ১২ ডিসেম্বর থেকে বন্ধ হবে। তবে ওই সংবাদমাধ্যমের পরিচালক মার্গারিটা সিমোনিয়াম বলেন, সারা ব্রিটেনজুড়ে ন্যাটওয়েস্ট ব্যাংকের মাতৃসংস্থা রয়্যাল ব্যাংক অফ স্কটল্যান্ড ও তার সকল সহযোগী প্রতিষ্ঠান আমাদের সেবা দিতে এখনই অস্বীকার করছে। এর আগে রাশিয়ায় পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষের একজন সদস্য ইগর মোরোজভ এর পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে রাশিয়ায় বিবিসির অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেবার আহ্বান জানিয়েছেন। এদিকে পার্লামেন্টের সের্গেই ঝেলেজনিয়াক বলেছেন, এ পরিস্থিতির বিষয়ে তারা ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষের কাছে একটি ব্যাখ্যা দাবি করবেন। এদিকে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই মুখপাত্র সাংবাদিকদের আভাস দেন, ব্রিটেনে আরটি যেমন সমস্যার মুখোমুখি হয়েছে, রাশিয়ায় বিবিসি একই ধরনের সমস্যায় পড়তে পারে। ইউক্রেন এবং সিরিয়া বিষয়ে বিভ্রান্তিকর ও পক্ষপাতদুষ্ট রিপোর্ট করার অভিযোগে রাশিয়া টুডে-র ওপর এর আগেও ব্রিটেনের সম্প্রচার নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ অফকম বিধিনিষেধ আরোপ করেছিল। তবে এবার ব্রিটেনের সরকার অবশ্য বলছে, তারা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে কিছুই করেনি। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর একজন মুখপাত্র বলেছেন, এটি ন্যাটওয়েস্ট ব্যাংকের ব্যাপার। রয়টার্স, গার্ডিয়ান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন