শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ওমিক্রনের পরে আসছে করোনার সবচেয়ে ভয়ংকর স্ট্রেন ‘নিওকভ’

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:৫৪ পিএম

করোনার জন্মস্থানে ফের আতঙ্ক। এবার এই মারণ ভাইরাসের আরও বিপজ্জনক স্ট্রেনের খোঁজ দিলেন চীনের ইউহান শহরের গবেষকরা। ইউহানের বিজ্ঞানীরা দক্ষিণ আফ্রিকায় ‘নিওকভ’ নামের নতুন করোনার স্ট্রেনের হদিশ পেয়েছেন। যা কিনা আগের সব স্ট্রেনের থেকে বিপজ্জনক এবং সংক্রামক।

যদিও এই নিওকভ নতুন ভাইরাস নয়। এটা মিডল-ইস্ট রেসপিরেটারি সিনড্রোম বা মার্স-কোভ ভাইরাসের সঙ্গে যুক্ত। ২০১২ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলিতে এই ভাইরাসের সংক্রমণ চোখে পড়ত। এই ভাইরাসটি সাধারণত মানুষের শরীরে সংক্রমণ ঘটায় না। মূলত, পশুপাখির শরীরেই এর সংক্রমণ দেখা যেত।

প্রথমে এই ভাইরাসটি বাদুড়ের শরীরে সংক্রমণ ঘটায়। কিন্তু বায়োআরজিভ জার্নালে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে ইউহানের গবেষকরা দাবি করেছেন, এই নিওকভ এবং এর ‘নিকটাত্মীয়’ পিডিএফ-২১৮০-কোভ মানুষের শরীরেও সংক্রমণ শুরু করেছে। বাদুড় থেকে উটের শরীর হয়ে এই ভাইরাসটি মানুষের শরীরের সংক্রমিত হচ্ছে এই নিওকভ।

ইউহান বিশ্ববিদ্যালয় এবং চাইনিজ অ্যাকাডেমি অফ সায়েন্সেসের গবেষকদের দাবি আর মাত্র একবার মিউটেশন হলেই এই ভাইরাসটি মানুষের শরীরে বাসা বাঁধতে পারে। সমস্যা হল, এই ভাইরাস মানুষের শরীরে সংক্রমণ শুরু করলে করোনার কোনও অ্যান্টিবডি বা কোনও ভ্যাকসিন সেটাকে রুখতে পারবে না। চীনা বিজ্ঞানীদের ধারণা, এই নতুন ভাইরাসের স্ট্রেনটির মধ্যে মার্স-হাই-কোভ এর মারণ ক্ষমতা এবং এবং করোনার মতো সংক্রমণ ক্ষমতা থাকবে। যা এককথায় ভয়ংকর।

নতুন এই নিওকভ স্ট্রেনের সবচেয়ে ভয়ংকর দিক হল এর মারণক্ষমতা। বিজ্ঞানীদের দাবি, এই ভাইরাসে মৃত্যুহার ৩৫ শতাংশ। অর্থাৎ প্রতি তিনজন সংক্রমিতের মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়। এর উপসর্গও করোনার সাধারণ উপসর্গের মতো। নতুন এই ভাইরাসে সংক্রমিত হলেও সাধারণ জ্বর, সর্দি এবং শ্বাসকষ্টের মতো উপসর্গ দেখা যেতে পারে। সূত্র: আউটলুক ইন্ডিয়া।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (16)
Shadi Noman ২৮ জানুয়ারি, ২০২২, ৬:২৪ পিএম says : 0
প্রথম করনায় বিয়ে করেছি, এই করনার মধ্যে বাবা হয়েছি, এখন মরার কোন ভয় লাগেনা,
Total Reply(0)
Mustafijur Rahman ২৮ জানুয়ারি, ২০২২, ৬:২৪ পিএম says : 0
আল্লাহ ভরসা আসতে থাক।
Total Reply(0)
Md Maruf Ahmed ২৮ জানুয়ারি, ২০২২, ৬:২৫ পিএম says : 0
এখন তে ভয় পাবো না যখন নিওকভ আসবে তখন
Total Reply(0)
Md Muktar Hossain ২৮ জানুয়ারি, ২০২২, ৬:২৫ পিএম says : 0
বিশ্বের সবচেয়ে বড় ব্যবসা হচ্ছে টিকার ব্যবসা। একেকটা নাম দিবে র টিকা বিক্রির ধান্দা হয়ে যাবে
Total Reply(0)
Sultan Ahmed Emon ২৮ জানুয়ারি, ২০২২, ৬:২৬ পিএম says : 0
ডা.জাহাংগির কবির স্যারের কথা দেখতেছি সত্য হতে চলেছে। করোনা কিছুদিন পর পর ভেরিয়েন্ট বদলাবে।এজন্য বেক্সিন যতেস্ট না,প্রয়োজন ন্যাচারাল ইউমিনিটি শক্তিশালী করা।।আল্লাহ সবাইকে হেফাজত করুক। আমিন
Total Reply(0)
হোসাইন ইকরাম ২৮ জানুয়ারি, ২০২২, ৬:৫১ পিএম says : 0
পৃথিবীতে এখন ব্যাবসা শুরু হইছে, টিকার ব্যাবসা,আর কত কি বাহির হবে সাধারণ মানুষের মরণ।
Total Reply(0)
এম আবদুল্লাহ ভূঁইয়া ২৮ জানুয়ারি, ২০২২, ৮:৫৩ পিএম says : 0
আসলে করোনা বলুন আর যাই বলুন এ সব আমাদের হাতের কামাই, প্রথম করোনার পর মানুষ ভয়ে একটু হলেও সতর্ক হয়েছিল, পাপ কাজ থেকে বিরত ছিল,কিন্তু লকডাউন শেষে আবার সেই আগের মত, মানুষ তো মৃত্যু আল্লাহর আযাব গজব কে ভয় করেনা। যতক্ষণ না আল্লাহর দিকে মুতোওয়াজ্জ না হচ্ছি ততক্ষণ পর্যন্ত এ মহামারী যাবেনা, বরং বাডতে থাকবে। এ জন্য সর্বদা আল্লাহর দিকে মতোওয়াজ্জ হতে হবে। এটাই শেষ কথা
Total Reply(0)
Dark Shadow ২৮ জানুয়ারি, ২০২২, ১০:৪১ পিএম says : 0
ডেল্টাক্রণ মিসিং....
Total Reply(0)
Hasan mahmud ২৮ জানুয়ারি, ২০২২, ১১:২২ পিএম says : 0
আমরা মোটেও চিন্তিত নই। আমাদের .. কাকু আছে
Total Reply(0)
MD.AL-MAHMUD ২৯ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:১২ এএম says : 1
"ও ভাই করোনা তাদেরকে দরোজা মহান রবের আদেশ তার যারা হলেন দ্বীনদার"।
Total Reply(0)
Rakib ২৯ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:৫১ এএম says : 0
এসব চাইয়া গবেষণাতে তৈরি হচ্ছে।কারন তারা এত সব তথ‍্য সবার আগে কোথায় পাচ্ছে
Total Reply(0)
Rakib ২৯ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:৫১ এএম says : 0
এসব চাইয়া গবেষণাতে তৈরি হচ্ছে।কারন তারা এত সব তথ‍্য সবার আগে কোথায় পাচ্ছে
Total Reply(0)
Md Zahangir Alam ২৯ জানুয়ারি, ২০২২, ৫:৪২ পিএম says : 0
মানুষকে পরহেজগার/আত্মসমর্পণ করার বিভিন্ন শিক্ষা। সুতরাং আমাদের উচিত হবে আল্লাহ্ কে বেশি বেশি স্মরণ করা।
Total Reply(0)
হাবিবুর রাহমান ৩০ জানুয়ারি, ২০২২, ৯:২৯ পিএম says : 0
এই বিষয়ে রাসুল (স) এর ভবিষ্যৎ বানী জানুন ...
Total Reply(0)
kos2prio ৩১ জানুয়ারি, ২০২২, ১১:০৪ পিএম says : 0
টীকা ১,২,৩, অলরেডি দিয়েছি,৪ নম্বর টা দেবার অপেক্ষায় আছি.....এভাবে ডোজ নিতে থাকলে শরীরের সব কিছু করোনা সংক্রমিত হবার আগেই এন্টি বডি অকেজো হয়েই হয়তো মানুষ মারা যেতে পারে.... শরীরে একটার পর একটা ভেরিয়েন্ট কি আসতেই থাকবে?আমার মনে হয় করোনা নিয়ে গবেষণা বন্ধ রাখলেই এই মহা আতংক থেকে মানুষ নিশ্চিন্তে যতদিন হায়াতে বাঁচে .... বেঁচে থাকতো
Total Reply(0)
ABUMUSA ২ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ১০:১৫ পিএম says : 0
আল্লাহর উপর ভরসা রাখুন
Total Reply(0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন