শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

পুত্রবধূকে বিয়ে দিলেন শাশুড়ি!

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০১ এএম

ভারতের রাজস্থানের এক শাশুড়ি স্নেহ, কর্তব্য ও দায়িত্বপালনে গর্ভধারিণী মাকেও অতিক্রম করেছেন। বিয়ের মাত্র ৬ মাসের মাথায় ছেলের মৃত্যু হয়েছিল। ছেলের শোকে মায়ের ভেঙে পড়াটা অস্বাভাবিক কিছু নয়। দুঃখের প্রকাশ করতে পারতেন সদ্য বিধবা পুত্রবধূর ওপর রাগ দেখিয়ে। যেমন অনেকেই করে থাকেন। কিন্তু তিনি তা করেননি।
বিয়ের ছয় মাসের মাথায় স্বামী মারা গেলে ভারতীয় সমাজে সদ্য বিধবার কপালে নানা ‘দুঃখ’ লেখা থাকে। তবে এ ক্ষেত্রে তেমনটি হয়নি। ২০১৬ সালের মে মাসে রাজস্থানে শিকরের কমলাদেবীর ছোট ছেলে শুভমের সঙ্গে বিয়ে হয় সুনীতার। বিয়ের পরই স্বামী এমবিবিএস পড়তে চলে যান কিরগিজস্তানে। ওই বছরই নভেম্বর মাসে ব্রেনস্ট্রোকে মৃত্যু হয় শুভমের।
সুনীতা তখন রাজস্থানে শ্বশুরবাড়িতে। তার সঙ্গী এবং অভিভাবক বলতে শাশুড়ি কমলা দেবীই। সদ্য বিধবা তরুণীকে ভালো রাখার দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেন কমলা। সরকারি স্কুলের শিক্ষিকা কমলা ছেলে হারানোর শোক সামলে পুত্রবধূর ভালোমন্দে মন দেন। সুনীতাকে তার পড়াশোনা সম্পূর্ণ করতে বলেন।
শাশুড়ির উৎসাহেই সুনীতা তার স্নাতকোত্তর ডিগ্রি সম্পন্ন করেন। পরে পুত্রবধূকে বিএড পড়ার জন্যও উৎসাহিত করেন কমলা। স্বামীকে হারানোর চার বছরের মধ্যে শিক্ষিকার চাকরিও পেয়ে যান সুনীতা। রাজস্থানেরই একটি স্কুলে তিনি ইতিহাসের শিক্ষিকা।
প্রতিবেশীরা বলেন, সুনীতাকে প্রথম দিন থেকেই ঘরের লক্ষ্মী বলে ডাকতেন তার শাশুড়ি। ছেলের থেকেও বেশি ভালোবাসতেন বউমাকে। তবে মুখে বলা এবং কাজে করে দেখানোর মধ্যে এক কথা নয়; সহজও নয়। কমলা সেই কঠিন কাজ করে দেখিয়েছেন।
কমলা পাঁচ বছর তার ‘গৃহলক্ষ্মী’র খেয়াল রেখেছেন। তারপর তাকে বাড়ি থেকে ‘বিদায়’ও করেছেন রীতি মেনে। মেয়েকে লালন-পালন করার পর বাবা-মা যেমন করে থাকেন। কমলা সম্প্রতি পুত্রবধূর বিয়ে দিয়েছেন। ভোপালের মুকেশ নামে এক সরকারি হিসাব রক্ষকের সঙ্গে বিয়ে দেন।
স্বাবলম্বী সুনীতার জন্য পাত্র পছন্দ করেছেন কমলা নিজেই। সাজিয়ে গুছিয়ে আত্মীয়স্বজনকে ডেকে বিয়েও দিয়েছেন। শ্বশুরবাড়িতেই বসেছে সুনীতার বিয়ের আসর। কন্যাদান করেছেন শাশুড়ি কমলা। এতে শ্রদ্ধায় মাথা নত হয়েছে অনেকেরই।
ভারতীয় সিনেমা, মেগা ধারাবাহিকে পারিবারিক নাটকে খলনায়িকা হয়ে ওঠেন শাশুড়িরাই। সেই ধারার উল্টোপথে হেঁটে কমলা-সুনীতার কাহিনি হয়তো পর্দায় ঠাঁই পাবে না। তবে এই অন্যরকম মা-মেয়ের গল্প যারা চোখের সামনে দেখেছেন বা জেনেছেন- তারা কিন্তু ভুলবেন না। সূত্র : স্টোরিপিক ডটকম, শিক্ষানিউজ ডটকম।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
Amarendro Dhar ২৯ জানুয়ারি, ২০২২, ৬:৫৯ এএম says : 0
মহৎ কাজ শুভকামনা রইলো
Total Reply(0)
Joynal Abedin ২৯ জানুয়ারি, ২০২২, ৭:০০ এএম says : 0
আপনি একজন মা প্রমান করলেন। শুদ্ধা আপনাকে।
Total Reply(0)
Noyon Moni ২৯ জানুয়ারি, ২০২২, ৭:০০ এএম says : 0
এতো এতো খারাপ খবরের মাঝে এমন খবরে মন ভালো হয়! সত্যিই প্রশংসনীয় কাজ করেছেন!
Total Reply(0)
Subodh Sarker ২৯ জানুয়ারি, ২০২২, ৭:০১ এএম says : 0
শাশুড়ি হিসেবে নয়,মমতাময়ী মা হিসাবে স্রোতের বিপরীতে দৃষ্টান্ত।
Total Reply(0)
Nurun Nabi ২৯ জানুয়ারি, ২০২২, ৭:০১ এএম says : 0
আলহামদুলিল্লাহ শাশুড়িকে অনেক অনেক ধন্যবাদ
Total Reply(0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন