সোমবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১০ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ঢাবিতে আন্তর্জাতিক রুমি সম্মেলন শুরু আজ

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১২:০০ এএম

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের শতবর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে ভারত, ইরান, তুরস্কসহ ৭টি দেশের শিক্ষাবিদ ও গবেষকদের নিয়ে ঢাকা ও চট্টগ্রামে আয়োজন করা হচ্ছে তিন দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক রুমি সম্মেলন।

আজ শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট অডিটোরিয়ামে ভিসি প্রফেসর ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন। সম্মেলনকে সামনে রেখে গতকাল শুক্রবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে করে এ তথ্য জানান ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর মোহাম্মদ বাহাউদ্দিন।
বাংলার রুমি সৈয়দ আহমদুল হকের একাদশ মৃত্যুবার্ষিকী এবং ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ শতবর্ষপূর্তি উপজীব্য করে আল্লামা রুমি সোসাইটির সহযোগিতায় এ সম্মেলনের আয়োজন করছে বিভাগটি। সংবাদ সম্মেলনে প্রফেসর মোহাম্মদ বাহাউদ্দিন বলেন, তিনদিনের এই সম্মেলেনে ৭টি দেশের ২৪ জন গবেষক ৮টি একাডেমিক সেশনে তাদের গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন। ৪ সেপ্টেম্বর বিকেলে টিএসসিতে ঢাকার সমাপনী পর্ব শেষে সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে কাওয়ালী ও সুফি নৃত্য পরিবেশন হবে। সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। এরপর ৫ সেপ্টেম্বর সৈয়দ আহমদুল হকের প্রয়ানভূমি চট্টগ্রামের ইন্ডিপেন্ডেন্স ইউনিভার্সিটিতে এ সম্মেলন শেষ হবে।
ফারসি ভাষার জগৎবিখ্যাত কবি জালাল উদ্দিন মুহাম্মদ রুমি প্রেম ও মানবতাবাদী দর্শন প্রচার করে শান্তির বার্তা প্রদানই সম্মেলনের লক্ষ্য বলেন জানান প্রফেসর বাহাউদ্দিন। তিনি বলেন, রুমি বিশ্বের সম্পদ। অশান্ত ও বিশৃঙ্খল মানবাত্মার জন্য প্রশান্ত হৃদয় হিসেবে রুমিকে মূল্যায়ন করা যায়। গোটা পৃথিবীতেই রুমির গ্রহণযোগ্যতা ও স্বীকৃতি রয়েছে। রুমির সেই মানবতাবাদী দর্শন ও আদর্শকে বাঙালি সমাজে ছড়িয়ে দেয়ার কাজটি করেছেন বাংলার রুমি সৈয়দ আহমদুল হক।
একাডেমিক গবেষণা, প্রন্থ রচনা, বক্তৃতা-বিবৃতি ও সাংগঠনিক কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে তিনি আধুনিক বাংলাদেশে রুমিকে উপস্থাপন করেছেন দক্ষতার সাথে প্রেম ও প্রজ্ঞার বাহক সেই রুমি আমাদের আজকের সমাজে বড়ই প্রয়োজন। দেশ-বিদেশের শিক্ষাবিদ ও গবেষকদের অভিজ্ঞতালব্ধ রুমি বিষয়ক কর্ম ও গবেষণার আলোকে সমাজে শাশ্বত শান্তির বার্তা প্রদানই আমাদের লক্ষ্য।
সংবাদ সম্মেলনে আল্লামা রুমি সোসাইটির কোষাধ্যক্ষ ড. মোহাম্মদ আবদুল মজিদ বলেন, সর্বশেষ ২০০৬ সালে আমরা বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক রুমি সম্মেলন করেছি। এর পরের বছরই জাতিসংঘের অধীনে আন্তর্জাতিক রুমি বর্ষ পালিত হয়।
এ সম্মেলনের মাধ্যমে আমরা সমাজের হানাহানি, অস্থীরতার বিপরীতে শান্তি ও সফলতার বার্তা সকলের কাছে পৌঁছে দিতে চাই। জালালুদ্দিন রুমি ও বাংলার রুমি সৈয়দ আহমদুল হকের সর্বজনীন প্রেম ও সম্প্রীতির আদর্শকে সর্বস্তরে ছড়িয়ে দিতে চাই।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের প্রফেসর মো. মুহসীন উদ্দিন মিয়া, প্রফেসর তারিক জিয়াউর রহমান সিরাজী উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন