মঙ্গলবার ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১১ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ওয়াশিংটন-সিউল মহড়ার প্রাক্কালে ব্যালিস্টিক উৎক্ষেপণ উ.কোরিয়ার

উত্তর কোরিয়ার দূতাবাসের মাধ্যমে প্রতিবাদ জানিয়েছে জাপান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১২:০০ এএম

যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার যৌথ সামরিক মহড়ার আগেই শক্তিশালী ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে উত্তর কোরিয়া। রবিবার স্বল্প পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রটি উত্তর পিয়ংইয়ান প্রদেশের তাইচন থেকে সকাল ৭টার দিকে উৎক্ষেপণ করা হয়। এমন দাবি করে বিবৃতিতে দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনী। ক্ষেপণাস্ত্রটি কী ধরনের ছিল এবং কতদূর পর্যন্ত পৌঁছায় তা তাৎক্ষণিকভাবে স্পষ্ট করতে পারেনি সিউল। তবে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, কোরীয় উপদ্বীপের পূর্ব উপকূলের দিকে ক্ষেপণাস্ত্রটি নিক্ষেপ করেছে দেশটি। জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইয়াসুকাজু হামাদা বলেন, টোকিও অনুমান করেছে যে ক্ষেপণাস্ত্রটি উচ্চতায় ৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত পৌঁছেছিল। এটি জাপানের বিশেষ অর্থনৈতিক জোন এলাকার বাইরে পড়ে। এখন পর্যন্ত কোনও ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। প্রতিরক্ষামন্ত্রী উদ্বেগ জানিয়ে আরও বলেন, আপনি যদি ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে থাকেন তবে এটি ঊনিশতম উৎক্ষেপণ। পিয়ংইয়ংয়ের এমন আচরণ আমাদের দেশ, অঞ্চল এবং বিশ্ব সম্প্রদায়ের শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য হুমকি। ইতোমধ্যে বেইজিংয়ের উত্তর কোরিয়ার দূতাবাসের মাধ্যমে এর প্রতিবাদ জানিয়েছে জাপান। সাম্প্রতিক বছরগুলোয় একাধিক স্বল্প পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছে উত্তর কোরিয়া। উত্তর কোরিয়া এমন সময় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করলো যখন যৌথ সামরিক মহড়ায় অংশ নিতে দক্ষিণ কোরিয়ায় অবস্থান করছে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান রণতরী ইউএসএস রোনাল্ড রিগ্যান। শিগগিরই সিউল-ওয়াশিংটনের মহড়া শুরু হতে যাচ্ছে। এছাড়া চলতি সপ্তাহে সিউল সফরের পরিকল্পনা রয়েছে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট কামালা হ্যারিসের। গত জুনের শুরুতে একদিনে আটটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের পর এই প্রথম ছুড়েছে কিম জং উনের দেশ। জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের রেজুলেশন লঙ্ঘনের দায়ে উত্তর কোরিয়ার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞার আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সোমবার থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যে চারদিনের সামরিক মহড়া শুরু হচ্ছে, এতে অংশ নিতে পারমাণবিক শক্তিধর মার্কিন বিমানবাহী রণতরী ইউএসএস রোনাল্ড রিগান এরই মধ্যে দক্ষিণ কোরিয়ায় পৌঁছেও গেছে। পিয়ংইয়ং সবসময় এ ধরনের সামরিক মহড়াকে তার জন্য হুমকি বিবেচনা করে আসছে। চলতি সপ্তাহে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসেরও জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া সফর করার কথা রয়েছে। তার আগে পিয়ংইয়ংয়ের এই ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ অঞ্চলজুড়ে উত্তেজনা আরও বাড়িয়ে দেবে বলেই মনে করা হচ্ছে। ক্ষেপণাস্ত্রটি নিক্ষেপের পর যুক্তরাষ্ট্রের ইন্দো-প্যাসিফিক কমান্ড এক বিবৃতিতে জানায়, তারা উত্তর কোরিয়ার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার বিষয়ে অবগত এবং এ নিয়ে মিত্রদের সঙ্গে আলোচনা চলছে। বিবৃতিতে দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের সুরক্ষায় নিজেদের অঙ্গীকারও পুনর্ব্যক্ত করে তারা। আল-জাজিরা, সিএনএন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন