বৃহস্পতিবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৩ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ঐতিহাসিক বিরোধ : চীনের প্রতি কোয়াড দেশগুলোর প্রচ্ছন্ন বার্তা

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ অক্টোবর, ২০২২, ১১:৫৩ এএম

চীনের সঙ্গে কোয়াড দেশগুলোর নানা বিষয় নিয়ে দীর্ঘস্থায়ী সমস্যা রয়েছে। দীর্ঘস্থায়ী এসব সমস্যা এবং ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে একটি উদীয়মান কৌশলগত পরিবর্তনের ক্রমবর্ধমান উদ্বেগ এই গোষ্ঠীকে চীনের কাছে প্রচ্ছন্ন বার্তা পাঠাতে বাধ্য করছে। যেটি ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে সাহায্য করছে। যৌথ বিবৃতির বরাতে গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
কোয়াড্রল্যাটারাল সিকিওরিটি ডায়ালগ বা কোয়াড হলো ভারত, অস্ট্রেলিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও জাপানের একটি জোট। এ সংগঠনের মূল উদ্দেশ্য চীনের অর্থনৈতিক ও সামরিক অগ্ৰযাত্রা প্রতিহত করা। যদিও প্রশান্ত মহাসাগরে অবাধ নৌ চলাচল নিশ্চিত করার কথা বলে এ সংগঠনটি যাত্রা শুরু করেছিল। বর্তমানে দক্ষিণ চীন সাগরে চীনের আধিপত্য বিস্তারকে রুখে দেওয়া কোয়াডের মূল উদ্দেশ্য।
ভারত, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া এবং জাপানই কোয়াডের সব সদস্যেরই চীনের সঙ্গে ঐতিহাসিক নানা ইস্যু আছে। যা চীনের সম্প্রসারণবাদী লক্ষ্যগুলোকে তাড়া করার চেষ্টা করছে। তার মধ্যে প্রথম হচ্ছে ভারত।
দ্য ডিপ্লোম্যাটের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২১৬৭ মাইল দীর্ঘ চীন-ভারত সীমান্তে নয়াদিল্লি ও বেইজিংয়ের মধ্যে বেশ কয়েকটি বিষয় নিয়ে বিরোধ রয়েছে।
দ্য ডিপ্লোম্যাট আরও জানিয়েছে, কোয়াডের অন্য সদস্যদের সঙ্গেও চীনের সম্পর্ক একটি শক্ত জায়গায় রয়েছে। যখন জাপানের কথা আসে, তখন জাপান-শাসিত সেনকাকু এবং দিয়াওয়ু দ্বীপপুঞ্জের সার্বভৌমত্ব নিয়ে বেইজিংয়ের সঙ্গে চলমান বিরোধের বিষয়টিই সামনে আসে। চীন দাবি করে যে এই দ্বীপগুলি তার ভূখণ্ডের অংশ।
জাপানের পরে আছে অস্ট্রেলিয়া। চীনের সঙ্গে সলোমন দ্বীপের নিরাপত্তা চুক্তি অস্ট্রেলিয়াকে বিরক্ত করে তুলেছে। চীনের সঙ্গে সলোমন দ্বীপের কাছাকাছি অবস্থান নিয়ে সতর্ক অস্ট্রেলিয়া। শেষ কোয়াড সদস্য বিশ্বের প্রাচীনতম গণতন্ত্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।
তাইওয়ান প্রণালীতে স্থিতাবস্থা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে ঝামেলা লেগে আছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র স্পষ্ট বার্তা পাঠিয়েছে যে তাইওয়ানে স্থিতাবস্থার কোনো পরিবর্তন হলে দেশটি তার সামরিক শক্তি ব্যবহার করবে।
অন্যদিকে, চীন দাবি করে যে তাইওয়ান তার অংশ, ছিল এবং থাকবে। কোয়াড সদস্যদের সঙ্গে চীনের এই সমস্ত দীর্ঘস্থায়ী সমস্যা দৃঢ়ভাবে চীনের দিকে প্রতিটি কোয়াড দেশের সামরিক বাহিনীর ব্যক্তিগত মনোযোগকে নির্দেশ করে।
দ্য ডিপ্লোম্যাট প্রতিবেদন করেছে, এই সমস্ত ঐতিহাসিক বিরোধ এবং উদীয়মান কৌশলগত উদ্বেগ স্থিতাবস্থা বজায় রাখার জন্য হুমকি তৈরি করেছে এবং ভবিষ্যতের সংঘাতের জন্য সম্ভাব্য অনুঘটক হিসেবেই তা বিবেচিত হবে। এএনআই।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন