ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৬ আগস্ট ২০২০, ২২ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৫ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

পাকিস্তানী ধারা বাদ দিলে বিএনপিকে স্পেস দেব-এইচ টি ইমাম

প্রকাশের সময় : ২০ মার্চ, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপিকে পাকিস্তানী ধারা বাদ দিয়ে সুস্থ ধারায় ফেরার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম। বিএনপিকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, পাকিস্তানী ধারা বাদ দিয়ে সুস্থ স্বাভাবিক রাজনৈতিক ধারায় ফিরে আসো। তখন আমরা তোমাদের সব ধরনের স্পেস দেব। এ সময় তিনি তথ্য দেন বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান লন্ডন থেকে কয়েকবার পাকিস্তান সফর করেছেন। গতকাল রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটি আয়োজিত ‘সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস মোকাবেলায় শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ’ শীর্ষক সেমিনারে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ তথ্য দেন।
এইচ টি ইমাম বলেন, আমরা তো তাদেরকে (বিএনপি) সব রকমের স্পেস দিয়েছি। তারা যতই বলুক আমাদের (বিএনপি) স্পেস নাই, আমরা (বিএনপি) রাজনীতি করতে পারছি না। আমরা (বিএনপি) বের হতে পারছি না। সভা-সমাবেশ করতে পারছি না। কিন্তু তারা তো সভা-সমাবেশ করছে, বক্তৃতা-বিবৃতি দিচ্ছে। আজকে তাদের সম্মেলনও করছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে।
ইমাম বলেন, খালেদা জিয়া লেডি লাদেন। আর তার ছেলে সম্পর্কে তো সবাই জানে। যে ব্যক্তি (তারেক রহমান) দাউদ ইব্রাহিমের মত একজন আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসীর সঙ্গে উঠাবসা করতে পারে। আমাদের কাছে তথ্য আছে সে কয়েকবার লন্ডন থেকে পাকিস্তান এসেছে। তার কাজই হল পাকিস্তানী ভাবধারা বাস্তবায়ন করা। কাজেই এদের কাছ থেকে কিছু আশা করা সম্ভব নয়।
তিনি অভিযোগ করেন, ১৯৯৭ সালে যখন আওয়ামী লীগ সরকার পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তিচুক্তি করে তখন তার বিরোধিতা করেছিল খালেদা জিয়া ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা। এর কারণ ছিল তখন তা ছিল আইএসআইয়ের ঘাঁটি।
ইমাম বলেন, বিএনপির সম্মেলনের দিন আজকে এ সেমিনার আমরা কেন বেছে নিলাম? তার উদ্দেশ্য হল তাদের (বিএনপি) কাছে একটি ম্যাসেজ দেয়া যে, তোমরা এতদিন যা করেছে তা থেকে সরে দাঁড়াও। পাকিস্তানীদের সঙ্গে থেকে কোন লাভ হবে না।
প্রধানমন্ত্রীর এই উপদেষ্টা বলেন, গণতান্ত্রিক সকল নিয়ম মেনেই আমাদের প্রধানমন্ত্রী তাদের সুযোগ দিয়েছেন। কিন্তু এ সুযোগের যদি তারা অপব্যবহার করেন, তাহলে আমাদের আবার অবশ্যই দৃঢ়ভাবে শক্তভাবে তা দমন করতে হবে।
সেমিনারে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, দলটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, বিএমএ’র মহাসচিব ডা. ইকবাল আর্সেনাল, সিনিয়র আইনজীবী ব্যারিস্টার আমীর-উল-ইসলাম, শাহরিয়ার কবির, ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ প্রমুখ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন