ঢাকা, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৭ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

ইসলামী বিশ্ব

বিতর্কিত আইন বাস্তবায়ন হলে বিনিয়োগকারীরা আস্থা হারাবে

যুক্তরাষ্ট্রে সউদি বিনিয়োগ বন্ধের কথিত হুমকি সম্পর্কে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্যাখ্যা

প্রকাশের সময় : ৪ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : সউদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদেল আল-জুবায়ের হুঁশিয়ার করে বলেছেন, ৯/১১ হামলার ওপর সউদি আরবের কোনো রকম সম্পৃক্ততার ব্যাপারে প্রস্তাবিত মার্কিন আইন বাস্তবায়ন হলে বিশ্বব্যাপী বিনিয়োগকারীরা যুক্তরাষ্ট্রে বিনিয়োগের ওপর আস্থা হারিয়ে ফেলবে। আল-জুবায়ের গত সোমবার জেনেভায় মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। জেনেভায় মূলত সিরিয়ায় শান্তির ব্যাপারে কয়েকটি দেশের প্রতিনিধিরা মিলিত হয়েছিলেন। এরই এক ফাঁকে সউদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে জন কেরির বৈঠক হয়।
তিনি বলেন, ওই হামলার সঙ্গে সউদি আরবের কোনো রকম সম্পৃক্ততা নেই। যুক্তরাষ্ট্র এ ধরনের আইন করলে সউদি আরব তার এই ঘনিষ্ঠ মিত্র দেশটি থেকে সকল বিনিয়োগ গুটিয়ে নেবে বলে যে সংবাদ প্রকাশ হয়েছিল তিনি তা অস্বীকার করেন।
নিউইয়র্ক টাইমস গত মাসে এক প্রতিবেদনে বলেছিল, মার্কিন কংগ্রেস ৯/১১-এর সন্ত্রাসী হামলার ওপর প্রস্তাবিত বিলটি পাস করলে রিয়াদ সরকার যুক্তরাষ্ট্রে ৭৫০ বিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগ বন্ধ করে দেবে। জুবায়ের বলেন, আমরা বলতে চাচ্ছি, এ ধরনের একটি আইন হলে বিনিয়োগকারীদের আস্থায় ফাটল ধরবে। তা ছাড়া সউদি জনগণ এ ব্যাপারে আমাদের হুঁশিয়ার করে দিয়েছে। তিনি বলেন, আমরা রাজনীতিতে ক্ষণস্থায়ী নীতি, জ্বালানি নীতি ও অর্থনৈতিক নীতি ব্যবহার করি না। আমরা বিনিয়োগ করি বিনিয়োগকারী হিসেবে, তেল বিক্রি করি তেল বিক্রেতা হিসেবে। প্রস্তাবিত আইনটি সউদি বিনিয়োগ নীতিকে প্রভাবিত করতে পারেÑ এ বিষয়টির ওপর জোর দিয়ে জুবায়ের বলেন, আমি আপনাদের সাবধান হতে বলছি। আমরা হুমকি দিয়েছি বলে যে কথাটি শোনা যাচ্ছে তা ঠিক নয়। আমাদের বক্তব্য ছিল এরকম, আইনটি বিনিয়োগকারীদের আস্থায় ধস নামাতে পারে এবং তা শুধু সউদি আরবের ক্ষেত্রে নয়, সবার ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য।
এদিকে মার্কিন প্রশাসনিক কর্মকর্তা এবং কংগ্রেস প্রতিনিধিদের উদ্ধৃতি দিয়ে নিউইয়র্ক টাইমস জানায়, এ বছরের প্রথম দিকে সিনেট জুডিশিয়ারি কমিটিতে পাস হওয়া বিলটি আটকাতে ওবামা প্রশাসন কংগ্রেসে লবিং করছে।
সউদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যদি আইনটি পাস হয়ে যায়, তাহলে বিশ্ব আন্তর্জাতিক আইনের নামে একটি অপ-আইনের কবলে পড়বে। এ কারণেই সউদি প্রশাসন এবং প্রত্যেকটি দেশ এই আইনের বিরোধিতা করছে এবং এটাকেই অজ্ঞতার মতো বলা হচ্ছে, সউদি আরব যুক্তরাষ্ট্রে বিনিয়োগ বন্ধের হুমকি দিচ্ছে। রয়টার্স।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Md Abdur Rahim ৪ মে, ২০১৬, ১০:৩৯ এএম says : 0
its excellent security system
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন