মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯, ১৫ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

জাতীয় সংবাদ

ডিবি পরিচয়ে আটক - ৪ যুবক উদ্ধার হয়নি ১৩ দিনেও

প্রকাশের সময় : ২৫ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

পাবনা জেলা সংবাদদাতা : পাবনার ফরিদপুর উপজেলা থেকে র‌্যাবের পরিচয় দিয়ে ৪ যুবক এবং একই রাতে উল্লাপাড়া থেকে অপর যুবককে তুলে নিয়ে যাওয়ার ১৩ দিন অতিবাহিত হলেও তাদের কোনো সন্ধান এখনও মেলেনি।
একই পরিবারের ৩ জন এবং এলাকার আরও ১ জন যুবককে গত ১১ মে ভোরে র‌্যাব পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। ওই রাত ১২টার দিকে দুলাল হোসেন নামে এক যুবককে তুলে আনা হয়। তাদের সন্ধান না পাওয়ায় পরিবারে চলছে শোকের কান্না। নিখোঁজ যুবকরা হলেন, পাবনার ফরিদপুর উপজেলার খাগবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল করিম সরদার (মেম্বার)-এর ৩ পুত্র টিক্কা সরদার (৩৫), এরশাদ সরদার (৩২) এবং সাদ্দাম হোসেন (২৯)। অপর ২ যুবক হলেন সাভার গ্রামের মৃত মোফাজ্জল হোসেন মাস্টারের পুত্র উল্লাপাড়া এলাকার দুলাল হোসেন এবং পাবনার ফরিদপুর থানা পাড়া এলাকার জুলু প্রামাণিকের পুত্র হাফিজুর রহমান ওরফে রনি (২৬)। সূত্র মতে, তুলে নিয়ে যাওয়া ৩ সহোদর ও অপর ২ যুবক এরা সবাই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত। র‌্যাবের পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া ৫ যুবকের পারিবারিক সূত্র ও এলাকাবাসী জানান, গত ১১ মে ভোরে র‌্যাবের পোশাক পরা ৫/৬ জনসহ ২৫/৩০ জনের একটি সশস্ত্র দল বাড়ি ঘেরাও করে ৩ সহোদর টিক্কা, সাদ্দাম ও এরশাদকে ঘুম থেকে ডেকে তুলে নিয়ে যায়। একই দিন ভোরে একইভাবে রনিকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। ওই রাত ১২টার দিকে র‌্যাবের পরিচয়ে সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া থেকে ৩ সহোদরের দুলাভাই দুলাল হোসেনকে তুলে আনা হয়। সূত্র জানায়, দুলাল ও রনির নামে থানায় একটি করে মামলা আছে। তবে আব্দুল করিম সরদার (মেম্বার)’র ৩ পুত্রের বিরুদ্ধে থানায় কোনো অভিযোগ নেই। তিন সহোদর কৃষি কাজের সঙ্গে জড়িত। ৩ জনসহ সবাই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। তিন সহোদরের আত্মীয় পরিচয়দানকারী আবুল কালাম আজাদ নামে একজন পাবনা প্রেসক্লাবে গতকাল মঙ্গলবার সাংবাদিকদের মৌখিকভাবে জানান, ‘র‌্যাবকে দিয়ে অথবা র‌্যাবের পোশাক পরে কোনো দুর্বৃত্তকে দিয়ে এদের তুলে নিয়ে যাওয়ার পেছনে স্থানীয় বিএনপি’র কতিপয় নেতার হাত থাকতে পারে।’ থানা মামলা গ্রহণ না করায় গত বৃহস্পতিবার পাবনা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করা হয়। কিন্তু মামলার বিষয়ে বিজ্ঞ আদালত এখনও কোনো আদেশ দেননি। আজ (বুধবার) পাবনা প্রেসক্লাবে পরিবারের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করা হবে বলে জানা গেছে। পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা সাংবাদিকদের জানান, নিখোঁজদের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট থানাকে অবহিত করা হয়েছে। পুলিশ তাদের উদ্ধারে তৎপরতা চালাচ্ছে। এদিকে, জেলা আওয়ামী লীগের নিয়মিত সভায় এই ঘটনাটি আলোচনায় আসে। জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ নিখোঁজদের খুঁজে বের করতে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন