ঢাকা, মঙ্গলবার , ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

কেড়ে নেয়া হয়েছে ইফা ডিজির প্রশাসনিক ক্ষমতা

স্বেচ্ছায় পদত্যাগ-ছুটিতে যাওয়ার অনুরোধ প্রত্যাখ্যান

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ জুন, ২০১৯, ১২:৩০ এএম

দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক (ডিজি) সামীম মোহাম্মদ আফজালের সকল প্রশাসনিক ক্ষমতা কেড়ে নিয়েছে বোর্ড অব গভর্নরস। গতকাল শনিবার বাংলাদেশ সচিবালয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ইফার বোর্ড অব গভর্নরসের জরুরি সভায় স্বেচ্ছায় পদত্যাগ অথবা ছুটিতে যাওয়ার অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করায় এ কঠোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন বোর্ড অব গভর্নরসের সভাপতি ও ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ শেখ মো. আব্দুল্লাহ। সভায় বোর্ড সদস্যারা বলেন, ইফা ডিজি সামীম মোহাম্মদ আফজালের চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ বাতিলের ক্ষমতা বোর্ডের নেই। সেক্ষেত্রে ডিজি সামীমের সকল প্রশাসনিক ক্ষমতা কেড়ে নেয়া হলো। এতে ডিজি সামীম ব্যতীত উপস্থিত সকল বোর্ড সদস্য একমত পোষণ করেন। ডিজি সামীমের প্রশাসনিক ক্ষমতা কেড়ে নেয়ার খবর ছড়িয়ে পড়ায় সারাদেশে ইফা বিক্ষুদ্ধ কর্মকর্তা-কর্মচারিদের মঝে স্বস্তি নেমে আসে।
অনুষ্ঠিত ইফার বোর্ড সভায় অন্যান্য সদস্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, ধর্ম সচিব মো. আনিছুর রহমান, সিরাজ উদদীন আহমেদ, আলহাজ মিছবাহুর রহমান চৌধুরী, শায়খ আল্লামা গোলাম মাওলান নকশেবন্দী ও ডিজি সামীম মোহাম্মদ আফজাল। সভায় ডিজির পদত্যাগ সংক্রান্ত জটিলতা নিরসনকল্পে সবাই স্বেচ্ছায় পদত্যাগ বা ছুটিতে যাওয়ার অনুরোদ জানালে ডিজি তা প্রত্যাখ্যান করে বলেন, আমি সুস্থ আছি এবং আমার আরো কিছু কাজ বাকি আছে। আজ রোববার থেকে ডিজি নিয়মিত অফিস করবেন বলে জানা গেছে। পদত্যাগের দাবিতে ইফার প্রধান কার্যালয়ে সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারিদে আন্দোলন চলায় ডিজি তিন দিন ছুটিতে ছিলেন। সভায় সদস্যারা জানান, এখন থেকে ইফার কর্মকর্তা-কর্মচারিদের নিয়োগ, পদোন্নতি, বদলি, সাসপেন্ড, কারণ দর্শানোর ক্ষমতাসহ সব ধরনের প্রশাসনিক ক্ষমতা কেড়ে নেয়া হলো। ডিজির এই ক্ষমতাসমূহ এখন থেকে বোর্ড সদস্যরা নিজেরাই পরিচালনা করবেন। সভায় একজন সদস্য বলেন, ডিজিকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনার দুর্নীতির ফিরিস্তি শুনতে শুনতে আমরা ক্লান্ত। আপনি ক্যান্সারে আক্রান্ত আপনি পদত্যাগ করুন। এতেও ডিজি পদত্যাগ অথবা ছুটিতে যেতে রাজি হননি। সভায় বলা হয়, ডিজি সার্ভিস রুল ও ইফার অ্যাক্ট মানেন না। তিনি বোর্ড সদস্যদের চরম অবজ্ঞা করেছেন। বোর্ড সভায় সিদ্ধান্ত হয় এক আর কার্যবিবরনিতে লেখা হয় আর এক। অপর একজন বোর্ড সদস্য বলেন, প্রধানমন্ত্রী আপনাকে সম্মানজনক বিদায় দেয়ার কথা বলছেন অন্যথায় আজকের বোর্ড সভা থেকে আপনাকে বের করে দিতাম। সভায় সদস্যরা ডিজি কর্তৃক পরিচালক মুহীউদ্দিন মজুমদারকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশটি সঠিক ছিল না বলে অভিমত ব্যক্ত করেন। তারা মুহীউদ্দিন মজুমদারের সাময়িক বরখাস্তের আদেশটি ধর্ম মন্ত্রণালয় বাতিল করায় সন্তোষ প্রকাশ করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (9)
Rofi Ahmed ২৩ জুন, ২০১৯, ১:২৭ এএম says : 0
কি সুন্দর আলোকিত চেহারা।একবার তাকালে পরের বার....
Total Reply(0)
Robin Hossain ২৩ জুন, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
এবার আপনারাই বলেন এই কুলাঙ্গার গুলো চুরি করবে না কেন ? এদেশে সততার কোন পুরস্কার নাই কিন্তু চুরির পুরষ্কার দেখলেন তো কেমন মধুর,,, হায় বাংলাদেশ হায়।
Total Reply(0)
Shafiqul Islam Kader ২৩ জুন, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
এত বেহায়া একটা লোক সে মান ইজ্জত বলে কিছু নাই তাৱ ৷
Total Reply(0)
Kamrul Islam Likhon ২৩ জুন, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টিলারেন্স
Total Reply(0)
Mahabub Kiron ২৩ জুন, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
চাকরি যখন আছে তাহলে ক্ষমতা না কমিয়ে বাড়ানো উচিৎ ছিল!!
Total Reply(0)
Rahman Helal ২৩ জুন, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
মানুষ অতীতে যেমনই থাকে, বয়সের শেষ প্রান্তে এসে কিছু ভালো কাজ এ দুনিয়ায় রেখে যেতে চায়। ইফার বর্তমান ডি জি এমন একটা ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সর্বোচ্চ কর্মকর্তা হয়ে গত ১০ বছরে এমন কি কিছু করেছেন, যার জন্য সবাই অনেক দিন মনে রাখবে ?? সম্ভবত উনি এমন কিছুই করতে পারেননি।যদি করতেন তাহলে হয়তো সাধারণ কর্মচারীরা উনার এই বয়সে অপসারণের দাবী তুলতো না। জীবনের শেষ বয়সে যা একজন মানুষের জন্য দুঃখজনক ।
Total Reply(0)
M. Iqbal Mazumder Roney ২৩ জুন, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
তবে ইসলামী ফাউন্ডেশনের কার্য পরিধি,ব্যাপ্তি,সক্ষমতা,জবাবদিহিতা আরো বাড়ানো উচিত এবং সময় উপযোগী প্রাজ্ঞ কার্যপ্রনালী প্রনয়ন ও এখতিয়ার পরিধি বিস্তৃত করা ন্যায্য জরুরী।
Total Reply(0)
Mohammad Lokman ২৩ জুন, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
ক্ষমতা কমার কি আছে প্রায় পদতো ওর আত্মিয়ের দখলে
Total Reply(0)
Syed Zahirul Islam Nayeem ২৩ জুন, ২০১৯, ১:৩০ এএম says : 0
চুরি চামারি যা করার তা তো করেই নিয়েছে। এখন আর ক্ষমতা না থাকলে কি? চেয়ার তো আছে চুক্তি শেষ হওয়া পর্যন্ত। এর মধ্যে ভাগাভাগি করে খাবে। দ্রুপদির মতো।
Total Reply(0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন