ঢাকা, সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬, ১৪ সফর ১৪৪১ হিজরী

ইসলামী জীবন

দৈনন্দিন জীবনে ইসলাম

| প্রকাশের সময় : ৩০ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

উত্তর : এ টাকা যদি আপনাকে নিদাবী করে দিয়ে দেওয়া হয়, তাহলে এ থেকে দান-সদকাহ করলে আপনি সওয়াব পাবেন। যদি শুধু খরচ করার জন্য দেওয়া হয় বাকী টাকা ফেরত দিতে বলা হয়, তাহলে খরচ কম করে আপনি দান-সদকাহ করতে পারবেন। উদ্বৃত্ত থেকে দান করতে পারবেন না। আপনার ভাইয়ের অনুমতি নিয়ে করলে সওয়াব তিনি পাবেন। বিষয়টি এখানে মালিকানার। ব্যবহারের নয়। আর যদি আপনার টাকাই তিনি আপনাকে দিয়ে থাকেন, তাহলে এর সব সুফল ও দায় আপনারই। প্রশ্ন থেকে মনে হয়, বড় ভাই নিজের টাকায় আপনাকে পড়ান। এখানে প্রয়োজন অতিরিক্ত টাকাগুলো আপনার ভাইয়ের। যতক্ষণনা তিনি আপনাকে সব টাকা ব্যয়ের অনুমতি দেন।
প্রশ্ন : ফরজ নামাজের সেজদায় গিয়ে দোয়া করা যাবে কি?
উত্তর : ফরজ নামাজের সেজদায় গিয়ে তাসবীহ পড়া সুন্নত। নির্ধারিত দোয়া ও তাসবীহ পড়াই বিধেয়। ইচ্ছামত দোয়া করা ফরজ নামাজে নিষিদ্ধ। সুন্নাহ অনুযায়ী মুজতাহিদগণ যেভাবে নামাজ সাজিয়েছেন, তাতে বাড়তি কিছু করার সুযোগ নেই। নফল নামাজে বিশেষ করে শেষ রাতের তাহাজ্জুদে অনেক দোয়া দুরুদ সেজদারত অবস্থায়ও করা যায়। হাদীসে যেসব বর্ণনা আছে, তা খুব বড় আলেম ও মুহাক্কেক ব্যক্তিদের কাজ। সাধারণ মানুষের প্রচলিত পদ্ধতিতেই সীমাবদ্ধ থাকা উচিত। তা না হলে মুস্তাহাব বা জায়েজ আমল করতে গিয়ে, তারা নিয়ম ভেঙ্গে ফেলবেন। তাতে নামাজ নষ্ট হওয়ারও আশংকা থেকে যায়।
প্রশ্ন : আমি মুসাফির অবস্থায় এমন জায়গায় গিয়ে পৌছলাম যেখানে জুম্মার নামাজ হবে, আমি কি সেই জামাতের ইমামতি করতে পারবো?
-আল্লামা মুফতী উবায়দুর রহমান খান নদভী

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন