ঢাকা, শুক্রবার , ২২ নভেম্বর ২০১৯, ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

ইসলামী জীবন

দৈনন্দিন জীবনে ইসলাম

-আল্লামা মুফতী উবায়দুর রহমান খান নদভী | প্রকাশের সময় : ১ নভেম্বর, ২০১৯, ১:৪৮ এএম

প্রশ্ন : স্বামী শারীরিক মিলামেশায় সক্ষম কিন্তু সন্তান জন্মদানে অক্ষম হলে বিবাহ সম্পর্ক চালিয়ে যাবে নাকি স্বামীকে ডিভোর্স দিবে। দয়াকরে শরীয়তের আলোকে জানাবেন।
উত্তর : স্বামী শারীরিক মেলামেশায় বাস্তবিকই সম্পূর্ণ অক্ষম হলে স্ত্রী বিবাহ বিচ্ছেদের কথা তুলতে পারে। আপসে হলে ভালো, না হয় আইনের আশ্রয় নিতে পারে। তবে এসব বিষয় সত্যের ভিত্তিতে হতে হবে। অন্য কোনো উদ্দেশ্য থেকে, অসত্য বা অন্যায়ভাবে স্বামীকে দায়ী করে সংসার ভেঙ্গে দেওয়া বড় গুনাহের কাজ। সন্তান জন্মদানে অক্ষম হওয়া স্বামীর জন্য কোনো আমলযোগ্য ত্রুটি নয়। যেমন এটি স্ত্রীর বেলায়ও কোনো ত্রুটি নয়। শুধু এ কারণে বিবাহ ভাঙ্গা যায় না। যথাসম্ভব চিকিৎসা নেওয়ার পরও যদি সন্তান না হয়, তাহলে দু’জনই ভাগ্যকে মেনে নেবে।
প্রশ্ন : বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রাইভেট টিউশনী করা শরীয়তের দৃষ্টিতে জায়েজ আছে কি?
উত্তর : কাজটি নাজায়েজ নয়। তবে এর সাথে কোনো অবৈধ বিষয় যুক্ত থাকলে জায়েজ হবে না।
প্রশ্ন : গৃহকর্মী ও শ্রমিককে কাজ কম করবে মনে করে রোজা রাখতে বাধা দিলে মালিকের কেমন গোনাহ হবে? ভুলবশত এমন করে থাকলে গোনাহ মাফের উপায় কি জানতে চাই?
ফরিদ আহমাদ
খালিশপুর, খুলনা
উত্তর : শরীয়তের বিধান হলো, রমজানে শ্রমিকের কাজ কমিয়ে দেওয়া। আল্লাহ তায়ালা তখন এই মালিকের পাপের বোঝা কমিয়ে সহজে জান্নাত দিবেন। প্রয়োজনে দ্বিগুণ শ্রমিক নিয়োগ দিয়ে হলেও জরুরী কাজ সম্পন্ন করতে হবে, কিন্তু তাদের রোজা রাখা থেকে বিরত করা যাবে না। যদি কেউ করে থাকে, তাহলে সে শাস্তিস্বরূপ প্রচুর দান খয়রাত করবে এবং আল্লাহর নিকট ক্ষমা চাইতে থাকবে। আর সংশ্লিষ্ট শ্রমিক রোজা কাযা করে নিবে।
-আল্লামা মুফতী উবায়দুর রহমান খান নদভী

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন