ঢাকা, শুক্রবার , ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৮ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বাবরী মসজিদ রায় বাতিল না হলে প্রয়োজনে লংমার্চ

বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতৃবৃন্দ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

ভারতের ঐতিহাসিক মসজিদ এর স্থানে মন্দির তৈরির সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক ও ন্যায় বিচারের পরিপন্থী। অবিলম্বে ভারতীয় আদালতের এ রায় বাতিল করতে হবে। অন্যথায় মুসলমানরা বাবরী মসজিদ অভিমুখে লংমার্চ করতে বাধ্য হবে।
গতকাল মঙ্গলবার বাদ আসর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের উত্তর গেইটে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগরীর উদ্যোগে বাবরি মসজিদের স্থানে রাম মন্দির নির্মাণের রায়ের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহাসচিব প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ এসব কথা বলেন। ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি হাফেজ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদের সভাপতিত্ব করেন।
সমাবেশে বি-বাড়িয়ায় রেল দুর্ঘটনায় নিহতদের রূহের মাগফেরাত কামনা করে নিহতদের পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপূরণ ও আহতদের দ্রæত রাষ্ট্রীয়ভাবে চিকিৎসা এবং দুর্ঘটনার কারণ চিহ্নিত করে দায়ীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের প্রতি দাবী জানানো হয়। সমাবেশ শেষে এক মিছিল বের করা হয়।
এদিকে, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের আমীর মাওলানা শাহ আতাউল্লাহ ইবনে হাফেজ্জী হুজুর বলেছেন, ভারতের সুপ্রিমকোর্ট বাবরী মসজিদের স্থলে মন্দির নির্মাণের রায় দিয়ে দেশটির সাংবিধান লঙ্গন করেছে। এ রায়ে প্রমাণ হয়েছে যে, বর্তমান ভারত সরকার একটি সাম্প্রদায়িক ও সন্ত্রাসী সরকার।
গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে কামরাঙ্গীরচরে বাবরী মসজিদের স্থানে মন্দির নির্মাণের অবৈধ রায়ের প্রতিবাদে বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের বিক্ষোভ মিছিল শেষে এক সমাবেশে সভাপতির ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। এতে আরো বক্তব্য রাখেন দলের নায়েবে আমীর মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, মাওলানা সাজেদুর রহমান ফয়েজী, মুফতি আফম আকরাম হুসাইন ও মুফতি আবুল হাসান। পরে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়।
বাবরী মসজিদ রায়ের প্রতিবাদে আজ বুধবার বাদ আসর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের উত্তর গেইটে ইসলামী ঐক্যজোটের উদ্যোগে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। এতে সভাপতিত্ব করবেন দলের চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল লতিফ নেজামী।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (3)
মজলুম জনতা ১৩ নভেম্বর, ২০১৯, ১০:২৫ এএম says : 0
বিশ্ব মুসলীম এক অভিন্ন কর্মসুচি দিলে ভারতের কাপন ধরতো।জাগ্রত হবে কি?
Total Reply(0)
Md: Abutaleb Monol ১৩ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:২০ এএম says : 0
বর্তমানে মোসলমান জীবিত থাকলে ভারতের উগ্রবাদি সম্প্রদায় এমনটি করার সাহস পেতনা।
Total Reply(0)
Yourchoice51 ১৩ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:৩৩ এএম says : 0
বাচ্চাদের মতো কথা কেন বলেন? ওখানে লং মার্চ করে যাওয়া তো দূরের কথা, ওদেশের সীমান্তেই আপনাদের কাউকে যেতে দেবেনা আমাদের সোনার বাংলার সশস্ত্র প্রহরীরা। এসব বড় বড় হুমকি বাদ দিয়ে যা আসলে করতে পারবেন সে ধরনের বক্তব্য দিন; মহান আল্লাহর কাছে বিনীতভাবে ফরিয়াদ করুন; মুসলিম দেশগুলো যাদের সাথে ওই দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্ক রয়েছে, ওসব দেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের মাধ্যমে ওই দেশটির ওপর প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করুন।
Total Reply(0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন