ঢাকা, বৃহস্পতিবার , ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

ইমরান খানকে হুররিয়াত নেতা গিলানির চিঠি

কাশ্মীর ইস্যু আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তুলে ধরায় ধন্যবাদ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

ভারত অধিকৃত কাশ্মীর ইস্যুটি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তুলে ধরায় পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কাশ্মীরের হুররিয়াত কনফারেন্স নেতা সাইয়্যেদ আলী শাহ গিলানি। চিঠিতে তিনি লিখেছেন, এটি হয়তো ইমরান খানের সঙ্গে তার শেষ যোগাযোগ। বয়স হয়তো তাকে আর যোগাযোগের সুযোগ দেবে না।

সাইয়্যেদ আলী শাহ গিলানির এই চিঠির একটি কপি হাতে পেয়েছে পাকিস্তানের ইংরেজি দৈনিক এক্সপ্রেস ট্রিবিউন। চিঠিতে ইমরান খানকে উদ্দেশ করে গিলানি বলেছেন, “জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের বার্ষিক অধিবেশনে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের ব্যাপারে ভারত সরকারের অবৈধ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এবং জম্মু-কাশ্মীরের নির্যাতিত নিপীড়িত জনগণের পক্ষে আপনি যেভাবে কথা বলেছেন তা প্রশংসার দাবিদার। ১৯৪৭ সাল থেকেই ভারতীয় দখলদারিত্ব ও অন্যায় আচরণ হতে মুক্তি লাভের জন্য জনগণ বিভিন্ন পর্যায়ে সংগ্রাম করে এসেছেন। সেই থেকে কাশ্মীরের নারী, পুরুষ এবং শিশুরা সংগ্রামকে বাঁচিয়ে রেখেছেন। তারই ধারাবাহিকতায় ১৯৮৮, ২০০৮, ২০১০ ও ২০১৬ সাল মাইলফলক হিসেবে চিহ্নিত হয়ে আছে। দিন দিন স্বাধীনতার এ সংগ্রাম জোরদার হয়েছে যা ভারত নস্যাৎ করতে ব্যর্থ। ভারতের অবৈধ ইচ্ছা কাশ্মীরের জনগণের ওপর চাপিয়ে দিতে গিয়ে তারা ব্যাপকভাবে এ অঞ্চলে কারফিউ জারি করেছে। এজন্য তারা টেলিফোন এবং ইন্টারনেট-সহ সব ধরনের যোগাযোগ মাধ্যম বন্ধ করে দিয়েছে। হাজার হাজার শিশু, বৃদ্ধ, কিশোর, ব্যবসায়ী, আইনজীবী, ছাত্র, ডাক্তার, হুররিয়াতের নেতা ও তাদের আত্মীয়-স্বজনকে আটক করা হয়েছে এবং ভারতের বিভিন্ন কারাগারে বন্দি রাখা হয়েছে। শত শত তরুণের উপর নির্মম নির্যাতন চালানো হয়েছে।”

সাইয়্যেদ আলী শাহ গিলানি বলেন, “ভারতীয় সেনারা পিলেট গান ব্যবহার করছে এবং কাশ্মীরি তরুণদের অন্ধ করে দিচ্ছে। রাষ্ট্রীয় নীতির আওতায় কাশ্মীরের জনগণের ওপর নিগ্রহ করা হচ্ছে, যৌন হয়রানি, এমনকি পুরুষদের ওপর যৌন নির্যাতন চালানো হচ্ছে। ভারতের দখলদার বাহিনী বাড়ি বাড়ি ঢুকে বাকবিতন্ডা করছে এবং নারীদের ওপর যৌন নির্যাতন চালাচ্ছে। মা-বাবার কাছে তাদের তরুণী মেয়েদের বয়স জানতে চাওয়া হচ্ছে। দখলদার বাহিনী জনগণের কাছে বলছে যে, তাদের আসল লক্ষ্য হচ্ছে কাশ্মীরের মুসলিম নারীদের অসম্মান করা। বহু মানুষকে হুমকি দেয়া হয়েছে যে, তাদের ঘরবাড়ি থেকে বের করে দেয়া হবে। বহু মানুষের ঘরবাড়ি কেড়ে নেয়ার জন্য তাদেরকে নোটিশ দেয়া হয়েছে।”

চিঠিতে বলা হয়, “লাদাখের মুসলমানরাও বর্বর ভারতীয় বাহিনীর করুণার ওপর নির্ভর করতে বাধ্য হচ্ছেন। কারণ ওই অঞ্চলের জনগণও ভারতের অবৈধ কর্মকান্ডের বিরোধিতা করছেন।”

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (8)
Belal Akhand ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ১:০৯ এএম says : 0
Allah help your's
Total Reply(0)
প্রান এরদোগান ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১০ এএম says : 0
হে আল্লাহ আপনি মাজলুন মুসলিম দের কে হেফাজত করুন,আমিন
Total Reply(0)
মুসলিম বিশ্বকে ঐক্য চাই ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১০ এএম says : 0
In Sha Allah..
Total Reply(0)
Mostafa Rayhan ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১০ এএম says : 0
Will must be action PM of Pakistan. May Allah help to you.
Total Reply(0)
Raihan Rana ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১০ এএম says : 0
আল্লাহ সহায় হোন
Total Reply(0)
Reaz Mainul ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১১ এএম says : 0
কারো কথায় প্ররোচিত না হয়ে বিচক্ষণতার সঙ্গে এই সমস্যার সমাধানের পথ খুঁজে নিতে হবে পাকিস্তান এবং ভারতকে।গৃহবন্ধী অবস্থায় যে ভারত কোন বন্ধীকে তাদের শত্রুর নিকট কোন যোগাযোগের সুযোগ দিবে তা বোঝার অপেক্ষা রাখে না। এটা গিলানী সাহেবের চিঠি না হয়ে হতে পারে ভারতের একটা ফাঁদ।তাই পাকিস্তান সরকারকে বুঝেশুনে পদক্ষেপ নিতে হবে।
Total Reply(0)
Atif Islam Sumon ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১১ এএম says : 0
Imran Khan should take tough steps because India is very aggressive with Kashmir. We always want Kashmir to be a separate province to be with Pakistan and I think the biggest urgency to be apart of India.
Total Reply(0)
Yousof ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ৩:১০ এএম says : 0
কি দরকার চিল আমাদেরকে কস্ট দেওয়ার আপনারা দালালী করে যান।
Total Reply(0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন