ঢাকা, সোমবার , ২৭ জানুয়ারী ২০২০, ১৩ মাঘ ১৪২৬, ০১ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ক্ষমা চাইতে ৩ গণমাধ্যমকে নুরের আল্টিমেটাম

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:১৫ এএম

৩ বেসরকারি গণমাধ্যমকে ক্ষমা চাইতে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর। অন্যথা তিনি এসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) মধুর ক্যান্টিনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। এসময় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
নুর অভিযোগ করে বলেন, গত ৩ ডিসেম্বর ‘নিউজ টুয়েন্টিফোর’ ও ‘ডিবিসি চ্যানেলে’ আমার কথোপকথনের এক অডিও ক্লিপের খন্ডিতাংশ বিকৃতভাবে প্রচার করে ভুলভাবে ব্যাখ্যা দেয়। যা আমার সম্মানহানি ও জনমনে বিভ্রান্তির সৃষ্টি করেছে। একইভাবে ‘বাংলাদেশ প্রতিদিন’ অনলাইনেও একই সংবাদ প্রকাশ করে। কিন্তু প্রকৃত সত্য হচ্ছে সেখানে আমি কোন প্রকল্প কর্মকর্তার সঙ্গে কোন কথা বলা কিংবা কোন তদবির করিনি।
ডাকসু ভিপি বলেন, অডিওটির প্রথম অংশের কথোপকথন ছিল আমার খালা ও আমার পরিচিত এক ভাইয়ের সঙ্গে। যেখানে আমার খালার কনস্ট্রাকশন ফার্মের ১৩ কোটি টাকার এক কাজের ব্যাংক গ্যারান্টি নিয়ে ভাইয়ের সঙ্গে আমি আলোচনা করেছিলাম। যা একান্তই ব্যক্তিগত ও পারিবারিক ব্যবসা সংক্রান্ত বিষয়। তিনি নিউজ টুয়েন্টিফোর, ডিবিসি টেলিভিশন ও বাংলাদেশ প্রতিদিনকে ক্ষমা চাইতে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে বলেন, অন্যথায় ছাত্রসমাজের পক্ষ থেকে এসব গণমাধ্যম বর্জনের পাশাপাশি আইনি ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবো।
তিনি বলেন, অডিও ক্লিপটির দ্বিতীয় অংশে অন্য ব্যক্তির সাথে কথোপকথন নিয়ে নিউজ টুয়েন্টিফোর ও ‘বাংলাদেশ প্রতিদিনে’ বলা হয়েছে- আমি প্রবাসী কোন এক ব্যক্তির কাছে আর্থিক সহযোগিতা চেয়েছি এবং ডিবিসি চ্যানেলে প্রচার করা হয়েছে- টেক্সাস প্রবাসী বিএনপি নেতার কাছে আর্থিক সহযোগিতা চেয়েছি। কিন্তু প্রকৃত ঘটনাটি ছিল, জনৈক প্রবাসী ব্যক্তি ফোন করে আমাকে সহযোগিতার কথা বললেও আমি তা নাকচ করে দেই। পুরো ফোনালাপটি শুনলেও আমার কথার সত্যতা পাওয়া যাবে।
নুর বলেন, ঘটনার সত্যতা যাচাই না করে, আমার কোন বক্তব্য না নিয়ে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন এবং বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের ইমেজ ক্ষুন্ন করার জন্যই উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে তথ্য বিকৃত করে এমন সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে। ব্যক্তিগত ফোনালাপ ফাঁস করে গণমাধ্যমে প্রচার সংবিধান ও রাষ্ট্রীয় আইনবিরোধী। তাছাড়া এভাবে তথ্য বিকৃত করে সংবাদ পরিবেশেন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে স্পষ্ট অপরাধ। তাই তথ্য-বিকৃত করে ভুল সংবাদ পরিবেশেন করায় সমংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। একই সঙ্গে দায়িত্বশীল গণমাধ্যম হিসেবে তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে খবর প্রচার ও প্রকাশের আহ্বান জানাই।
তার বিরুদ্ধে পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র হচ্ছে দাবি করে তিনি বলেন, গতকাল (বুধবার) ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ’ নামক ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের এক সংগঠন আমার পদত্যাগ দাবি করে, কক্ষে তালা লাগায়। যার আহ্বায়ক আওয়ামীপন্থী নীল দলের শিক্ষক নেতা সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর আ.ক.ম জামাল উদ্দিন। একই সঙ্গে ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান জয়ও একই দাবি করেন। ঘটনাগুলো বিশ্লেষণ করে আমি মনে করি যে, এটি একটি পরিকল্পিত ঘটনা। আমাকে ও আমার সংগঠনকে বিতর্কিত করে তুলে ধরতেই রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় এমন হীন চক্রান্তের আয়োজন করা হয়েছে।#

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Nadim ahmed ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৮:৫১ এএম says : 0
It was the nasty act of chattra League and awamileague, everyone understands that.
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন