বুধবার, ১০ আগস্ট ২০২২, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯, ১১ মুহাররম ১৪৪৪

জাতীয় সংবাদ

না’গঞ্জে আওয়ামী লীগ নেতার ভাই খুন : খুনী গ্রেফতার

প্রকাশের সময় : ২৯ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

নারায়ণগঞ্জ থেকে স্টাফ রিপোর্টার:
বন্দরে থানা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের ভাই আলহাজ কুতুব উদ্দিন (৭০)কে এলাপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। গত সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টায় সন্ত্রাসীরা বাড়িতে প্রবেশ করে কুপিয়ে হত্যা করে। এ সময় চিৎকার শুনে এলাকাবাসী এসে ছুরিসহ শামীম (২৫) নামে এক খুনীকে ধরে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। নিহত কুতুব উদ্দিন ৪ সন্তানের জনক। তিনি বাড়ির পাশে মুদি দোকানে ব্যবসা করতেন। রাতেই পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।
নিহতের ভাই বন্দর থানা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলহাজ আবেদ হোসেন বলেন, স্থানীয় পঞ্চায়েতের বিরোধের জেল ধরে জাতীয়পাটির নেতা আজিজুল হক আজিজ ও রাজা মিয়া ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে তার ভাইকে খুন করিয়েছে। তারা ৯০ সালেও একবার তার ভাইকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছিল। রাতে খুনীরা তাকে মোবাইল ফোনে বলে তার দোকানে তালা দেয়া হয়নি, তালা খোলা রয়েছে। এ কথা শুনে তিনি তার রুম থেকে বেরিয়ে নিচে চলে এলে সন্ত্রাসীরা তাকে এলোপাকাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে যায়। এ সময় তার চিৎকার শুনে এলাকাবাসী বেরিয়ে এসে সন্ত্রাসী শামীমকে ধরে ফেলে এবং মুর্মূষ অবস্থায় তার ভাইকে হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যান। নিহত আলহাজ কুতুব উদ্দিন বন্দরের সোনাকান্দা এলাকার মৃত ইউনুছ আলীর ছেলে।
এ ব্যপারে বন্দর থানার ইনস্পেক্টর (তদন্ত) হারুন অর রশিদ জানান, নৌ-বাহিনী পরিচালিত ডক ইয়ার্ডের গেইটের উল্টো দিকে নিহত কুতুব উদ্দিনের বাড়ি। বাড়ির সামনেই তিনি খুন হন। খুনের কারণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। গ্রেফতারকৃত ভাড়াটিয়া খুনী শামীমকে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রয়েছে। এ হত্যার ঘটনায় আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আবেদ হোসেন বাদী হয়ে ৮ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন। মামলার এজাহারে আসামিরা হলো নারায়ণগঞ্জ মহানগর জাতীয়পার্টির ১ম যুগ্ম আহবায়ক আজিজুল হক আজিজ, তার ভাই সাজু, লেংড়া বাচ্চু, পাকিস্তানী লিটন, ধৃত শামীমসহ ৮ জন। এদিকে ময়না তদন্ত শেষে বাদ জোহর লাশ এলাকায় এনে জানাজা শেষে লাশ নিয়ে খুনীদের ফাঁসির দাবিতে মিছিল করে কবরস্থানে নেয়া হয়। এ ঘটনার পর থেকে জাতীয়পার্টি নেতা ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা পলাতক রয়েছে। রাতে লেংড়া বাচ্চুই নিহত কুতুব উদ্দিনকে মোবাইলে ফোন করে নামিয়ে আনে। এ ঘটনার পর থেকে এলাকায় থম থমে ভাব বিরাজ করছে। মামলার বাদী আলহাজ্ব আবেদ হোসেন তার ভাইয়ের হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি যাতে হয় এ জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন