ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১ কার্তিক ১৪২৭, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

হাজিদের নিরাপত্তায় বিশেষ প্রযুক্তির ই-ব্রেসলেট দেবে সউদি আরব

প্রকাশের সময় : ৩ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : চলতি বছর অনুষ্ঠিতব্য বিশ্বব্যাপী মুসলিমদের সবচেয়ে বড় মিলনক্ষেত্র হজে মক্কায় হজযাত্রীদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে ইলেক্ট্রনিক ব্রেসলেট আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সউদি আরব। ২০১৫ সালের হজে এক দুর্ঘটনায় প্রায় সড়ে সাতশ’ জনের প্রাণহানি এবং নয়শ’ জনের বেশি আহত হওয়ার ঘটনার পর নতুন কয়েকটি নিরাপত্তা ব্যবস্থার একটি অংশ হবে দেয়া হবে এই ব্রেসলেট। সউদি সংবাদ সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, ব্রেসলেটে ব্যক্তিগত এবং চিকিৎসাবিষয়ক তথ্য থাকবে। ব্যক্তিগত তথ্য ব্যবহার করে জরুরি অবস্থায় মানুষকে শনাক্ত করতে পারবে কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়াও নিরাপত্তার অংশ হিসেবে প্রায় এক হাজার নতুন নজরদারি ক্যামেরা যুক্ত করা হয়েছে। আইডি ব্রেসলেটে বিভিন্ন দরকারি তথ্য যেমন পাসপোর্ট নাম্বার এবং ঠিকানা সংরক্ষিত থাকবে। তবে ব্রেসলেটটি হজযাত্রীদেরকে বিভিন্ন রকম উপকারী তথ্যও প্রদান করতে পারবে, যেমন- নামাজের সময়সূচি, আরবি না জানা ভ্রমণকারীদেরকে অন্য ভাষায় দিকনির্দেশনা দেওয়া ইত্যাদি। ব্রেসলেটগুলো হবে পানিরোধক এবং সংযুক্ত থাকবে জিপিএসের সঙ্গে। ব্রেসলেটে সংরক্ষিত তথ্য সরকারি কর্মকর্তা, নিরাপত্তারক্ষী এবং সেবাদাতা সংস্থা স্মার্টফোন ব্যবহার করে দেখতে পারবেন। সেউদি সংবাদপত্রগুলোর প্রতিবেদন অনুযায়ী, মক্কার প্রধান মসজিদের বিভিন্ন স্থানে ক্যামেরা স্থাপন করা হবে। ক্যামেরাগুলো সংযুক্ত থাকবে একটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে, যেখানে মনিটরিংয়ের দায়িত্বে থাকবে স্পেশাল ফোর্স। ২৫ বছরের মধ্যে ২০১৫ ছিল হাজযাত্রীদের জন্য সবচেয়ে বেশি মর্মান্তিক একটি বছর। ওই ঘটনার কারণে প্রতিবেশী দেশ ইরানের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি ঘটে সউদি আরবের। তবে সউদি রাজা সালমান পরবর্তীতে অবকাঠামোগত ব্যবস্থাপনা উন্নত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। দুর্ঘটনায় ইরানের প্রায় চারশ’ নাগরিক নিহত হন। এ ঘটনায় সউদি আরবের তীব্র সমালোচনা করে এবং এ বছর হজে কোন নাগরিককে না পাঠানোর ঘোষণা দেয়। ইরানের হজ বর্জনের ঘটনা এটাই প্রথম নয়। এর আগেও দেশটি তিন বছর হজ বর্জন করেছিল। ১৯৮৭ সালে মক্কায় যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইলবিরোধী মিছিলে সউদি নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে ৪০২ জন হজযাত্রী প্রাণ হারালে পরবর্তী তিন বছর ইরানিরা হজে যায়নি। তখন নিহত অধিকাংশই ছিলেন ইরানের নাগরিক। প্রতিবছর হজ পালনে প্রায় ২০ লাখ মুসলমানের সমাগম ঘটে সউদি আরবে। খবরে বলা হয়, হাজিদের যেসব ই-ব্রেসলেট সরবরাহ করা হবে, তা পানি প্রতিরোধক এবং গ্লোবাল পজিশনিং সিস্টেমের (জিপিএস) সঙ্গে যুক্ত থাকবে। এই ডিভাইসটি হাজিদের নামাজের ওয়াক্ত স্মরণ করিয়ে দেবে। এছাড়া ডিভাইসটি ভিন্নভাষীদের জন্য হেল্প ডেস্ক-এর সঙ্গে সংযুক্ত থাকবে, যার মাধ্যমে হজের বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতা পালনে নির্দেশনা দেয়া যাবে। এদিকে, মক্কার গ্র্যান্ড মসজিদে প্রায় এক হাজার নতুন ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। এসব ক্যামেরার মধ্য দিয়ে হাজিদের সার্বক্ষণিক চলাচল পর্যবেক্ষণ করা হবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। বিবিসি, আল-জাজিরা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন