সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ১৪ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

ইসলামী বিশ্ব

শীর্ষ কমান্ডার শিশানির মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে আইএস

প্রকাশের সময় : ১৫ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) শীর্ষ কমান্ডার ওমর আল-শিশানি নিহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে সংগঠনটির বার্তা সংস্থা আমাক এজেন্সি। যদিও গত তিন মাস আগেই তার মারা যাওয়ার খবর প্রকাশ করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলে মার্কিন বিমান হামলায় শিশানি মারা যান বলে তখন খবর প্রকাশিত হয়। তবে সে সময় আইএসের পক্ষ থেকে কিছু জানানো হয়নি। মৃত্যুর চার মাস পর তার নিহত হওয়ার সংবাদটি প্রকাশ করা হলো। সশস্ত্র সংগঠনগুলোর তৎপরতা পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা সাইট ইন্টেলিজেন্স সূত্রে এ তথ্য জানা যায়। লাল দাড়িওয়ালা শিশানির প্রকৃত নাম তারখান বাতিরাশভিলি। তবে তিনি ওমর দ্য চেচান নামেও পরিচিতি ছিলেন। জন্ম জর্জিয়ায়, ১৯৮৬ সালে। এক সময় রুশ নিয়ন্ত্রিত চেচেনিয়ার স্বাধীনতার জন্য চেচেন বিদ্রোহীদের হয়ে লড়াই করেছেন। পরে জর্জিয়ার সেনাবাহিনীতে যোগ দেন এবং রুশ সেনাদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছিলেন। ২০১২ সালে তিনি জর্জিয়া ছেড়ে সিরিয়ায় আসেন এবং এর পরের বছর আইএসে যোগ দেন। আইএস প্রধান আবু বকর আল বাগদাদির সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতা ছিল এবং তিনি তার সামরিক উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করতেন। গতবছর এই জঙ্গি নেতাকে ধরিয়ে দেয়ার পুরস্কার হিসেবে ৫০ লাখ ডলার পুরস্কার ঘোষণা করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। উল্লেখ্য, গত ৪ মার্চ যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন জোট সিরিয়ার আল-শাদানি শহরের কাছ বিমান হামলা চালায়। ওমর এ সময় নিহত হয়ে থাকতে পারেন বলে ধারণা করা হলেও দেশটির সরকার তখনই ওমরকে নিহত ঘোষণা করতে নারাজ ছিলো। তবে যুক্তরাষ্ট্রের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করে বলেন, একটি গাড়ি লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালানো হয়। ধারণা করা হয় ওই গাড়িতে ওমর ছিলেন। গত বুধবার আইএসের সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে, ইরাকের মসুল শহরের দক্ষিণ অংশে শিরকাত নামক এলাকায় এক লড়াইয়ে শহীদ হয়েছেন তাদের শীর্ষ নেতা শায়েখ ওমর আস শিশানি। তবে তারা ওই নেতার নিহত হওয়ার সময়কাল উল্লেখ করেনি। তবে শিশানি সম্পর্কে বুধবার আমাক-এ যে খবর প্রকাশিত হয়েছে তাৎক্ষণিকভাবে তার সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে রয়টার্স। আমাক’র দেয়া ওই খবরের ওপর কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি পেন্টাগনও। তবে হিশাম আল হাশিমি নামের ইরাক সরকারের এক নিরাপত্তা উপদেষ্টা বলেছেন, শিরকাতে আরো কয়েকজন জঙ্গির সঙ্গে নিহত হয়েছেন ওই আইএস কমান্ডার। আইএসের অধীনে থাকা ইরাকের বৃহত্তম নগরী মসুল উদ্ধারে তৎপর রয়েছে ইরাকি সেনারা। তারা ওই শহরটির দিকে সামরিক অভিযান শুরু করেছে। ইতিমধ্যেই তারা শিরকাতের অধিকাংশ এলাকা দখল করে নিয়েছে বলেও জানা গেছে। এদিকে ব্রিটিশভিত্তিক মানবাধিকার গোষ্ঠী সিরিয়ান অবজারভেটরি অব হিউমেন রাইটসের প্রধান রামি আবদেল রহমান জানিয়েছেন, শিশানি গত মার্চ মাসেই আহত হয়েছিলেন। পরে তিনি রাক্কার নিকটবর্তী এক গ্রামে মারা যান। তিনি বলেন, আমি শিশানির এক চিকিৎসকের কাছ থেকে তার মৃত্যু সম্পর্কে নিশ্চিত হয়েছি। তবে তিনি মনে করছেন, তার উত্তরসূরী নির্বাচিত করার জন্যই আইএস তার মৃত্যুর খবরটি প্রকাশে এত দেরি করেছে। বিবিসি, রয়টার্স।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন