ঢাকা বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮ আশ্বিন ১৪২৭, ০৫ সফর ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

বর্ণবাদের আরেক ঘটনা অস্ট্রেলিয়ায়

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ জুন, ২০২০, ১২:০১ এএম

যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গ আমেরিকান জর্জ ফ্লয়েড হত্যায় বিশ্বজুড়ে বিক্ষোভের মধ্যেই এবার আরেকটি বর্ণবাদের ঘটনায় আলোচনায় অস্ট্রেলিয়া। একজন আদিবাসী ছেলেকে মাটিতে ফেলে দেয়ার পর টেনে হিঁচড়ে নেয়ার ভিডিও প্রকাশিত হওয়ায় দায়িত্ব সীমিত করে দেয়া হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার এক পুলিশ কর্মকর্তার। ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ। ভিডিওতে দেখা যায়, নিউ সাউথ ওয়েলসের এক পুলিশ কর্মকর্তা ও তার দুই সহকর্মী মিলে মাটিতে পতিত ছেলেটিকে টেনে নিচ্ছেন। কর্তৃপক্ষ বলছে, ছেলেটিকে গ্রেফতার ও পরিশেষে মুক্তির মধ্য দিয়ে ঘটনাটির সমাপ্তি হয়েছে। অবশ্য পর্যবেক্ষণের জন্য তাকে সাময়িক সময়ের জন্য হাসপাতালে নেয়া হয়। নিউ সাউথ ওয়েলস বলছে, তাদের প্রফেশনাল স্ট্যান্ডার্ড ইউনিট এ ঘটনার তদন্ত করছে। সিডনির শহরতলী সারি হিলস এলাকায় সোমবার এ ঘটনা ঘটে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে শেয়ার হওয়ার পরই এ নিয়ে শোরগোল তৈরি হয়। অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যম বলছে, ছেলেটির বয়স ১৬ থেকে ১৭ বছর হবে। যুক্তরাষ্ট্রে ফ্লয়েড হত্যার পর দেশে দেশে বিক্ষোভ যখন চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে তখন অস্ট্রেলিয়ায় আদিবাসী বালকের ওপর পুলিশি নির্যাতনের ঘটনা বেশ সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের মতো অস্ট্রেলিয়াজুড়েও প্রতিবাদের পরিকল্পনা চলছে। ভিডিওতে দেখা যায়, রাস্তায় দাঁড়িয়ে তিন টিনএজ বালকের সঙ্গে কথা বলছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত টিনএজ একজন অফিসার বলছিল ‘আমি তোমার চোয়াল ভেঙে দেব’। তখন ওই ছেলেটিকে বলা হয় ‘ঘুরে দাঁড়াও’। অফিসারটি তখন ছেলেটার পায়ে লাফি মেরে তাকে মাটিতে ফেলে দেয়। ছেলেটির মুখ সরাসরি মাটিতে গিয়ে আঘাতপ্রাপ্ত হয় বলে জানিয়েছে ঘটনার সময় উপস্থিত থাকা এক ব্যক্তি। পুলিশ কর্মকর্তারা তখন ছেলেটিকে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যায় এবং গ্রেফতার করে। নিউ সাউথ ওয়েলস পুলিশ জানায় হাসপাতালে অল্প সময় পর্যবেক্ষণ শেষে ছেলেটিকে তার পরিবারের হাতে ছেড়ে দেয়া হয়। পুলিশের এক বিবৃতিতে বলা হয় ‘ছেলেটিকে গ্রেফতারের পুরো ঘটনাটি এখন প্রফেশনাল স্ট্যান্ডার্ড কমান্ডের অধীনে তদন্তাধীন। এ নিয়ে রিভিউ চলাকালেই ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত কনস্টেবলের দায়িত্ব সীমিত করে দেয়া হয়েছে। এছাড়া পুলিশ কর্মকর্তারা স্থানীয় স¤প্রদায় ও তাদের জ্যেষ্ঠ ব্যক্তিদের সঙ্গে সাক্ষাত করেছেন এবং পুরো প্রক্রিয়াটি নিয়ে তাদের অবহিত করবেন বলে জানিয়েছেন।’ বিবিসি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন