ঢাকা শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ২০ ফাল্গুন ১৪২৭, ২০ রজব ১৪৪২ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

আরব পুরুষদের বিয়ে করে ইসলাম গ্রহণ করছেন ইসরাইলের নারীরা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:০২ এএম

ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে কয়েক যুগ ধরে চলছে রক্তক্ষয়ী সংঘাত ও বিপর্যয়। এমন পরিবেশে ইহুদি ও আরবদের মধ্যে আন্তবিবাহের প্রতিবাদ করে আসছে মূলধারার ইহুদি ধর্মাবলম্বীরা। কারণ আরবদের সঙ্গে সম্পর্ক করে বেশির ভাগ ইহুদি ইসলামের প্রতি ঝুঁকে পড়েন। ফলে ইহুদি ও আরবদের মধ্যে আন্তবিবাহের বিরোধিতায় তৈরি হয়েছে বহু ইসরাইলি সংগঠন। ইহুদি ও অইহুদিদের মধ্যে যারা আরব পুরুষদের বিয়ে করে ইসলাম গ্রহণ করে, এমন নারীদের পুনরায় ফিরিয়ে আনতে সহায়তা প্রদান করে লেহাভা নামের সংগঠনটি। সংগঠনটি ইহুদি জাতিকে সুরক্ষিত রাখার কাজ করছে। অবশ্য অনেকে ইহুদি সংগঠনটির বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদ ও চরমপন্থার অভিযোগ তুলেছে। খবর স্পুটনিক নিউজের। ২০০৭ সালে ইহুদি ধর্মাবলম্বী তরুণ নোয় শিটরিত ইসলাম গ্রহণ করলে ইসরাইলে বেশ তোলপাড় শুরু হয়েছিল। কিন্তু সংগঠক আনাত পোপেস্টাইনের স্বামীর ভূমিকায় নোয় ওই সম্পর্ক থেকে ফিরে আসেন। ২০০৫ সালে আনাত পোপস্টাইন নিজের স্বামীর সঙ্গে মিলে লেভাকা সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেন। তার কাছে প্রতিদিন অনেকে সাহায্য চেয়ে আবেদন করে বলে তিনি দাবি করেন। বহু নও-মুসলিম নারী নিজ ধর্মে ফেরার সমাধান চেয়েছেন বলে জানান তিনি। অনেকে পরিবার ও পরিচিতজনদের মাধ্যমে আপত্তিকর সম্পর্কের কথা জানিয়েছেন। এ ছাড়া সংগঠনটি নানা জটিলতায় আক্রান্ত দুর্বল নারীদের সহায়তা করে সমাজে প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করছে। পোপস্টাইন বলেন, ইসরাইলে ইসলাম গ্রহণের সুনির্দিষ্ট সংখ্যা বলা কঠিন হবে। তবে আমরা জানি যে, ইহুদি থেকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণের হার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর বাস্তব কারণ হলো, নারীরা মুসলিম পুরুষদের বিয়ে করে। পরবর্তী সময়ে মুসলিম পুরুষরা ইহুদি নারীদের তাঁদের ধর্মে নিয়ে যায়। ইহুদি ধর্মানুসারে মিশ্র পরিবারের শিশুরা মায়ের কাছ থেকে ইহুদি ধর্মের উত্তরাধিকার লাভ করে। গোপস্টাইনের বর্ণনামতে, এখানেই বিষয়টি অত্যন্ত জটিল আকার ধারণ করে। কারণ শিশুরা আরব পিতার সঙ্গে থেকে যান। পরবর্তী সময়ে বড় হয়ে তারা আরবদের বিয়ে করে। এর মাধ্যমে তারা ইহুদি ধর্ম থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। ইহুদি ধর্মাবলম্বীদের ইসলাম গ্রহণের বর্তমান পরিসংখ্যান সুনিশ্চিতভাবে বলা না গেলেও তা ক্রমাগত বাড়ছে।

উদাহরণত, ২০০৩ সালে সরকারি পরিসংখ্যান মতে, মাত্র ৪০ জন ইসলাম গ্রহণ করেছেন। কিন্তু ২০০৬ সালের প্রতিবেদনে ৭০ জন অর্থাৎ ইহুদি ধর্ম থেকে ইসলাম গ্রহণের সংখ্যা গত তিন বছরের চেয়ে প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে। এরপর থেকে ধর্মান্তরের হার ক্রমাগত বাড়ছে। স্পুটনিক নিউজ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (15)
গাজ ওয়া তুল হিন্দ ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১:০৬ এএম says : 0
sobai ke bissas korleo ehudider bissas kora jay na
Total Reply(0)
Mushfiq Ali ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১:০৬ এএম says : 0
এবার Moshad রা কি করেছে আরব রা দেখবে
Total Reply(0)
Saifullah Mahmud ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১:০৭ এএম says : 0
এগুলো সব স্পাই
Total Reply(0)
মাইক পম্পেও ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১:০৭ এএম says : 0
এগুলা আরব রা বুঝবে।
Total Reply(0)
Faruk Ahammed ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১:০৭ এএম says : 0
এটা পাতানো ফাঁদ হতে পারে ইজরায়েল ফ্রান্সের
Total Reply(0)
salman ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৭:৩৮ এএম says : 0
Yahudi ra Munafik, Vondo, Protarok, Jott Kharap kisu ase, ara Tai. Allah ai MAGDUB der Ovisap deyesen. Aea kono sondeho na MOSAD er AGENT.
Total Reply(0)
করিম ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৯:০৩ এএম says : 0
এভাবে কত হাজার ইহুদি গুপ্তচর আরবে মিশে গেছে তার কোনো হিসেব তাদের আছে কি? বা তার প্রয়োজনীয়তা আছে বলে মনে করে কি
Total Reply(0)
এন ইসলাম ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৯:৫৩ এএম says : 0
এদের সন্তানরাই পরবর্তীতে ইসলামী দেশগুলোতে ইহুদীবাদ প্রতিষ্ঠা করবে ।
Total Reply(0)
habib ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১০:১৯ এএম says : 0
Israel is a common enemy of Muslim..those Israeli women married by arab Muslim they are Musad agent. Israel America and their western spy agency working together to collection more important information from the regime to help more occupation arab lands.
Total Reply(0)
Md.Altaf+Hossain ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:১১ পিএম says : 0
কোন কু মতলব থাকতে পারে।
Total Reply(0)
ওমর ফারুক ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৬:৪৭ এএম says : 0
ইতিহাস বলে, সবগুলো গুপ্তচর।
Total Reply(0)
Shafiqul+Islam ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:২৮ পিএম says : 1
সত্যিকার অর্থে এসব ইহুদীরা মুসলিম ছেলে-মেয়েদের সাথে বিবাহ নামক সম্পর্কে জড়ায় গুপ্তচর বৃত্তি করার জন্য। ইহুদীরা মুনাফিক-যার প্রমাণ পবিত্র কুরআন থেকে পাওয়া যায়। সুতরাং মুসলিমরা বিশেষ করে আরব অঞ্চলের মুসলিম যুবক-যুবতীরা সাবধান।
Total Reply(0)
এ,+কে,+এম+জামসেদ ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৩:১৩ পিএম says : 0
ইহুদি, খৃষ্টান, হিন্দু বা বোদ্ধ ধর্ম এর মেয়েদের বিয়ে করে মুসলিম বানালে অনেক সওয়াব হয়। তাই ইহুদি, খৃষ্টান, হিন্দু বা বোদ্ধ ধর্ম এর মেয়েদের বিয়ে করা উচিত।
Total Reply(0)
এনাম ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৫:২৯ পিএম says : 0
সত্যিকার অর্থে এসব ইহুদীরা মুসলিম ছেলে-মেয়েদের সাথে বিবাহ নামক সম্পর্কে জড়ায় গুপ্তচর বৃত্তি করার জন্য। ইহুদীরা মুনাফিক-যার প্রমাণ পবিত্র কুরআন থেকে পাওয়া যায়।
Total Reply(0)
Ehsanuddin ১ মার্চ, ২০২১, ১১:০২ এএম says : 0
alhamdulillah
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন