বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮, ২০ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক যানজটে নাকাল যাত্রীরা

প্রকাশের সময় : ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) উপজেলা সংবাদদাতা : ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে দিনভর তীব্র যানজট ছিল। বুধবার ভোর থেকে শুরু হওয়া যানজটে মহাসড়ক দিয়ে যাতায়াতকারী হাজারো যাত্রীকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় বলে জানা গেছে। ভুক্তভোগী যাত্রী, যানবাহনের চালক এবং পুলিশ সূত্র জানান, কুরবানির পশুবাহী একাধিক ট্রাক মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে বিকল হওয়ায় ভোর ৫টা থেকে গোড়াই ও মির্জাপুর বাইপাসসহ যানজট শুরু হয়। এছাড়াও পাটুরিয়া ফেরিঘাটে ফেরি চলাচল বিঘিœত হওয়ায় আরিচা মহাসড়ক দিয়ে চলাচলকারী অধিকাংশ বাস এবং পশুবাহী ট্রাক এই মহাসড়ক দিয়ে চলাচল করায় যানবাহনের চাপ বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাড়তে থাকে। এতে যানজট তীব্র আকার ধারণ করে। এক পর্যায়ে তা গাজীপুরের কালিয়াকৈর থেকে টাঙ্গাইল রামনা বাইপাস পর্যন্ত বিস্তৃতি ঘটে। তীব্র এই যানজট সন্ধ্যায় এই রিপোর্ট পাঠানো পর্যন্ত অব্যাহত থাকে।
যানজটের বর্ণনা দিতে গিয়ে মির্জাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেন মন্টু বলেন, গোড়াই থেকে মির্জাপুর পর্যন্ত ৬ কিলোমিটার রাস্তা উপজেলার পরিষদের গাড়ীতে আসতে তার সময় লেগেছে এক ঘন্টা।
টাঙ্গাইল থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসা ধলেশ্বরী পরিবহনের চালক রিপন মিয়া জানান, সকাল এগারোটায় টাঙ্গাইল ছেড়ে এসে মির্জাপুর পর্যন্ত আসতে তার সময় লাগে তিন ঘন্টা।
মির্জাপুর পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সেক্রেটারি মো. নুরুল ইসলাম বলেন, টাঙ্গাইল থেকে বাসে মির্জাপুর আসতে যেখানে সময় লাগে বড়জোর ৩৫ মিনিট, সেখানে তার সময় লেগেছে তিন ঘন্টা বলে উল্লেখ করেন। এ ব্যাপারে মির্জাপুরের গোড়াই হাইওয়ে থানার ওসি খলিলুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে বিকেলে ৫টার পরে মহাসড়কে যানচলাচল স্বাভাবিক হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।
রাত সাড়ে ৮টার দিকে মির্জাপুরের বাইপাস এলাকায় দেখা গেছে, যানবাহনের দীর্ঘ সারি অপেক্ষমাণ। মহাসড়কের যানজট সারা রাতেও অব্যাহত থাকতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে
ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কচ্ছপ গতিতে যানবাহন
সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা জানান, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সোনারগাঁয়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। মেঘনা সেতুর পশ্চিম পার্শ্বে দু’টি যানবাহন বিকল হওয়ার কারণে সেতুর উভয় পার্শ্বে প্রায় দীর্ঘ ১৫ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। যানজটে মহাসড়কের দুইপাশে শত শত গাড়ী আটকা পরে ভোগান্তিতে পড়েছে হাজার হাজার যাত্রী। এদিকে দুপুরের দিকে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হলেও তা ছিল অনেকটা কচ্ছপ গতি।
কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশের ওসি শরিফুল আলম জানান, আগামী ঈদুল আজহা সামনে রেখে পশুর হাটের গরু বোঝাই ট্রাক ঘরমুখো মানুষের জন্য অতিরিক্ত গাড়ীর চাপ ও ধারণ ক্ষমতার চেয়ে অতিরিক্ত মাল বোঝাই ট্রাক চলাচলের ফলে মহাসড়কে যানবাহনের চাপ বেড়ে গেছে। তাছাড়া, ঢাকা-চট্টগ্রাম মেঘনা সেতুর দুই লেন হওয়ায় যানবাহন ধীরে ধীরে চলাচল করে কৃত্রিম যানজটের সৃষ্টি করেছে। এছাড়া গত রাতে মুন্সিগঞ্জ থানার গজারিয়া এলাকায় দুটি মালবাহী ট্রাক বিকল হওয়ায় রাত থেকে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। তিনি আরো জানান, আমাদের পুলিশের র‌্যাকার নষ্ট থাকায় বিকল গাড়ীগুলো মহাসড়ক থেকে সরাতে দেরী হওয়ায় যানজট তীব্র হয়েছে। আমাদের হাইওয়ে পুলিশ দিনরাত যানজটের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। যানজট পরিস্থিতি আস্তে আস্তে স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন