ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ১০ আষাঢ় ১৪২৮, ১২ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ইতেকাফে যিকিরে সিক্ত রাখুন ক্বলব

মুহাম্মদ সানাউল্লাহ | প্রকাশের সময় : ৮ মে, ২০২১, ১২:০০ এএম

ইতিকাফের অর্থ এবং প্রকারভেদ গতকালের আলোচনায় স্থান পেয়েছিল। আমরা আজ ইফতারের শর্তাবলী, নিয়্যাত, করণীয়-বর্জনীয় এবং মহিলাদের ইতিকাফ বিষয়ে বিশদ আলোচনা করার প্রয়াস পেলাম।
ইতিকাফের শর্ত ৩টি। যথা- ১. যে কোনো মসজিদে নিয়মিত জামাতের সঙ্গে নামাজ আদায় করা হয়, এরূপ কোনো মসজিদে পুরুষদের অবস্থান করতে হবে। মহিলারা আপন ঘরে পর্দার সঙ্গে ইতিকাফ করবে। ২. ইতিকাফের নিয়তে ইতিকাফ করতে হবে। কারণ বিনা নিয়তে ইতিকাফ হয় না। এবং ৩. ইতিকাফকারীকে সর্বদা পাক-পবিত্র থাকতে হবে।

ইতিকাফের নিয়ত : ইতিকাফের জন্য মসজিদে প্রবেশের সময় নিয়ত করে নিতে হয়। মনে মনে নিয়ত করতে হবে যে, আমি এই মসজিদে ইতিকাফের মনস্থ করছি।’ এই নিয়ত করে মসজিদে প্রবেশ করে এক কোণে বিছানা বিছাতে হবে। যাতে নামাজী মুসল্লিদের যাতায়াত বা নামাজে কোনো ব্যাঘাত না ঘটে।
ইতিকাফে করণীয় : ইতিকাফ অবস্থায় করণীয় হচ্ছে- ১. বেশি বেশি আল্লাহর জিকির-আজকার করা, ২. নফল নামাজ আদায় করা, ৩. কোরআন তেলাওয়াত করা, ৪. দ্বীনি ওয়াজ-নসিহত শোনা ও ৫. ধর্মীয় গ্রন্থাবলী পাঠ করা।

ইতিকাফে বর্জনীয় : ইতিকাফ অবস্থায় যেসব কাজ বর্জনীয়- ১. ইতিকাফ অবস্থায় বিনা ওজরে মসজিদের বাইরে যাওয়া, ২. দুনিয়াবি আলোচনায় মগ্ন হওয়া, ৩. কোনো জিনিস বেচাকেনা করা, ৪. ব্যবসা-বাণিজ্যের হিসাব-নিকাশ করা, ৫. ওজরবশত বাইরে গিয়ে প্রয়োজনাতিরিক্ত বিলম্ব করা ও ৬. স্ত্রীর সঙ্গে সহবাস করা। এসব কাজ করলে ইতিকাফ ভঙ্গ হয়ে যায়।
বর্তমানকালে অনেকে আধুনিক মোবাইল ফোন ব্যবহার করে বাসার সাথে ভিডিও লিঙ্কে সংযুক্ত থাকতে সচেষ্ট হন, অনেকে ইতিকাফে অবস্থানকালীন সময়টাকে ভিডিও করে রাখতে চান যা একান্ত গর্হিত কাজ। কারণ এতে এতিকাফের যে একাগ্রতা ও আন্তরিকতা থাকে তাতে ছেদ ঘটে। অনেকে এমনকি ল্যাপটপ নিয়ে মসজিদে অবস্থান করে ব্যবসা সংক্রান্ত হিসাব-কিতাবও দেখে থাকেন বলে শোনা যায়।

মহিলাদের ইতিকাফ : পুরুষ যেমনভাবে মসজিদে ইতিকাফ করবে তেমনি মহিলারাও তাদের নিজ নিজ গৃহে ইতিকাফ করবে। নারীদের জন্য ইতিকাফ জায়েজ ও বৈধ। তবে ইসলামের প্রথম যুগে মহিলারা যেমন অবাধে মসজিদে ইতিকাফ করতেন, বর্তমান সময়ে ফেতনার আশঙ্কায় তা জায়েজ নয়। বরং মহিলারা ঘরে নিজ কক্ষে ইতিকাফ করবে।

হযরত ওমর ও হযরত আয়শা (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিস। তারা বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা.) রমজানের শেষ দশকে ইতিকাফ করতেন। নবীজীর (সা.) ইন্তেকালের পর তার স্ত্রীগণ ইতিকাফ করতেন। (বুখারী) ।
আল্লাহ তা‘আলা সন্তুষ্টির জন্য পূর্ণ আন্তরিকতার সাথে ইতিকাফ করার তওফিক দান করুন এবং আল্লাহ তা‘আলা কবুল করুন। আমীন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন