ঢাকা, বুধবার, ২৭ মে ২০২০, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৩ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

সংবিধান অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী মনে করলে মধ্যবর্তী নির্বাচন সৈয়দ আশরাফ

প্রধানমন্ত্রীকে গণসংবর্ধনা দেবে আওয়ামী লীগ

প্রকাশের সময় : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির মধ্যবর্তী নির্বাচন দাবি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন, জাতীয় সংসদ নির্বাচন কবে হবে, তা সংবিধান অনুসারে প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভর করে। দেশে মধ্যবর্তী কোনো নির্বাচন হওয়ার সম্ভাবনা আছে কি না- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, দেশের সংবিধান অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট এবং প্রধানমন্ত্রী যদি মনে করেন সেটা হবে, না হয় হবে না। তবে সংবিধান লঙ্ঘন করে কিছুই করা হবে না। তিনি জানান, জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে অংশগ্রহণ শেষে আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর দেশে ফিরলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গণসংবর্ধনা দেবে আওয়ামী লীগ।
গতকাল মঙ্গলবার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সম্পাদকম-লীর এক বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান দলের সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।
শক্তিশালী বিরোধীদল না থাকায় আওয়ামী লীগ শূন্যতা অনুভব করছে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে দলটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেন, তাদের (বিএনপি) বলুন নির্বাচনে অংশ নিতে। তারা নির্বাচনে অংশ নিক। সেখানেই প্রমাণ হবে কার জনপ্রিয়তা আছে কি নেই। জনগণ সিদ্ধান্ত নেবে।
সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক পদক্ষেপের কঠোর সমালোচনা করে আশরাফ বলেন, খালেদা জিয়া যে রাজনৈতিক কৌশল নিয়েছেন, তা গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রব্যবস্থার অংশ নয়। ষড়যন্ত্র করা, কূটচাল করা, জঙ্গিদের লেলিয়ে দেয়া গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রব্যবস্থার অংশ না।
জঙ্গি নির্মূলের নামে সরকার বিরোধীদের ওপর দমন-পীড়ন চালাচ্ছে; বিএনপির এমন অভিযোগ বিষয়ে আশরাফ বলেন, যাদের হয়রানি করা হচ্ছে, তারা জঙ্গি। দু-চারজন জঙ্গি বিএনপিতে থাকলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হতেই পারে। বাংলাদেশ সন্ত্রাসী রাষ্ট্র হয়ে গেলে আওয়ামী লীগ, বিএনপি কেউই রেহাই পাবে না। সুতরাং, সবাইকে জঙ্গি দমনে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। তিনি আরও বলেন, আমরা জঙ্গি দমনে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করছি। এ বিষয়ে কোনো ছাড় দেয়া হবে না।
সৈয়দ আশরাফ বলেন, প্রধানমন্ত্রী ইতিমধ্যেই জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে অংশগ্রহণের জন্য যুক্তরাষ্ট্র সফরে আছেন। তিনি জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে ভাষণ দেবেন। এটা আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশের অর্জনগুলো তিনি সমগ্র বিশ্ববাসীর সামনে তুলে ধরবেন। এ জন্য আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর বিকাল ৪টায় শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীকে গণসংবর্ধনা দেয়া হবে। রাস্তার দুই পাশে নেতাকর্মীরা দাঁড়িয়ে সংবর্ধনায় অংশ নেবেন।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, এছাড়াও আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন। এই দিন সকালে আমরা দলের পক্ষ থেকে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানাব এবং বিকাল ৩টায় রাজধানীর খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আলোচনা সভা করব। সেখানে দেশের শিশু-কিশোর, বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশু-কিশোর, লেখক, বুদ্ধিজীবী ও রাজনীতিকরা উপস্থিত থাকবেন।
সৈয়দ আশরাফ বলেন, শেখ হাসিনা ইতোমধ্যে কানাডাও সফর করেছেন। এটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল। সেখানে বঙ্গবন্ধুর একজন হত্যাকারী অবস্থান করছে। তাকে কীভাবে বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনা যায় এবং তার বিরুদ্ধে আদালতের রায় কীভাবে কার্যকর করা যায়, সে বিষয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কানাডীয় প্রধানমন্ত্রীর গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা হয়েছে। এখানে একটি সমস্যা আছে। এটা হলো যেদেশে মৃত্যুদ- কার্যকর আছে সেখানে কানাডা আসামিকে ফেরত পাঠায় না। তারপরও কিন্তু আলোচনায় তা উঠে এসেছে। কীভাবে কানাডা নূর চৌধুরীকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে দিতে পারে সেটা উদ্ভাবন করার জন্য দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী একসঙ্গে কাজ করবেন।
এছাড়াও আইসিটি খাতে প্রধানমন্ত্রীপুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়ের পুরস্কারপ্রাপ্তি নিয়েও পরবর্তী সময়ে সংবর্ধনার আয়োজন করা হবে বলেও জানান সৈয়দ আশরাফ।
আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে পাকিস্তানের কেউ থাকবেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে দলের সাধারণ সম্পাদক বলেন, এ বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে এ কথাতো সবারই জানা পাকিস্তানেও আমাদের স্বাধীনতার পক্ষের কিছু দল আছে, মানুষ আছে যারা দেশকালের ঊর্ধ্বে উঠে মানবতাবাদী। সে বিবেচনায় তাদের আহ্বান করাও হতে পারে।
বৈঠকে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ড. আব্দুর রাজ্জাক, আইন বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মতিন খসরু, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইয়াফেস ওসমান, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, কার্যনির্বাহী সদস্য সুজিত রায় নন্দী, আমিনুল ইসলাম আমিন ও এনামুল হক শামীম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
আশিক ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১:৫৮ পিএম says : 0
আর মধ্যবর্তী নির্বাচন !
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন