ঢাকা, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৮ আশ্বিন ১৪২৬, ২৩ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

প্রত্যাহারের পরদিনই নতুন নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশের সময় : ১৯ জানুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছেন, পরমাণু অস্ত্র প্রসঙ্গে মার্কিন বন্দিদেরকে ইরান থেকে মুক্ত করানোর জন্য তেহরানের সঙ্গে তিনি যে সরাসরি সম্পৃক্ত হওয়ার নীতি গ্রহণ করেছিলেন সেটির যথার্থতা নিয়ে এখন আর কোনো প্রশড়ব থাকবে না। কিন্তু ইরানের উপর থেকে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা উঠার একদিন যেতে না যেতেই দেশটির উপরে নতুন করে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ইরানের সাম্প্রতিক ব্যালাস্টিক মিসাইল পরীক্ষা করার বিষয়টিকে ঘিরে দেশটির উপরে আবারো নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। নিষেধাজ্ঞার আওতায় দেশটির ১১ জন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ব্যাংকিং সুবিধা না দেয়ার ঘোষণা এসেছে। আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছেন, পরমাণু অস্ত্র প্রসঙ্গে মার্কিন বন্দিদের ইরান থেকে মুক্ত করানোর জন্য তেহরানের সঙ্গে তিনি যে সরাসরি সম্পৃক্ত হওয়ার নীতি গ্রহণ করেছিলেন, সেটির যথার্থতা নিয়ে এখন আর কোনো প্রশড়ব থাকবে না। 

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্র ইরানের পাওনা ৪শ’ মিলিয়ন ডলার ও সুদ বাবদ আরো ১.৩ বিলিয়ন ডলার পরিশোধ করতে যাচ্ছে বলে রোববার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি জানিয়েছেন। এই ঋণ মূলত ইরানের একটি ফান্ড যেটি মার্কিন সামরিক অস্ত্র কেনার উদ্দেশ্যে দেয়া হয়েছিল। কিন্তু পরবর্তীতে ইরানে বিপ্লব ঘটায় ১৯৮১ সালে সেই অর্থ আটকে দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র। কেরি জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের নিকট ইরানের আরো পাওনা নিষ্পত্তির অপেক্ষায় আছে। উভয়পক্ষ আলোচনার মাধ্যমে অন্যান্য পাওনাগুলোর ব্যাপারে শিগগিরই একটি সমাধানে পৌঁছবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি। তবে, ইরানের উপর থেকে কিছু নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার এই বিষয়টিকে ইতিবাচকভাবে দেখছেন জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি-মুন। মুন বলেছেন, সকল প্রতিবন্ধকতা বিষয়ে আলাপ-আলোচনা করে একে অন্যকে সহযোগিতার মাধ্যমে একটি নিরাপদ ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যাবার এটিই এক অনন্য সময়।
ইরানের উপর থেকে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের জন্য কূটনৈতিক তৎপরতায় ব্যস্ত একটি সপ্তাহ কাটানোর পর, গণমাধ্যমের সামনে বারাক ওবামা কথা বলতে গিয়ে জোর গলায় উল্লেখ করেছেন যে, পরমাণু অস্ত্র নির্মাণে ইরানকে কোনো সুযোগই দেয়া হবে না তবে তরুণদেরকে লক্ষ্য করে ওবামা বলেছেন, এই পরমাণু চুক্তি তাদের জন্য একটি সুযোগ এনে দিয়েছে। ওবামা আরো বলেছেন, পরমাণু বিষয়ক এই চুক্তিটি অনুসরণ করেই ইরানের তরুণ-তরুণীরা সারা পৃথিবীর সঙ্গে নতুন করে সম্পর্ক গড়ার এক সুযোগ পেতে পারে। একটা ভিনড়ব ও উনড়বত ভবিষ্যৎ যা আমাদের জনগণ এবং একই সঙ্গে গোটা বিশ্ববাসীর জন্য অগ্রগতির সুযোগ এনে দেয়- সেই রকম নতুন পথ গ্রহণ করার খুব কম সুযোগই আমাদের আসে। ইরানি জনতার সামনে এখন তেমনি এক সুযোগ এসেছে- তাই এটির সুবিধা নিতে হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। তবে, ইরানের এই পরমাণু চুক্তিটিকে সমালোচনা করেছে ইসরাইল। এদিকে অন্য আরেক খবরে জানা গেছে, ইরান যে তিনজন মার্কিনীকে মুক্তি দিয়েছে তারা এখন জার্মানিতে মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে রয়েছে। রয়টার্স, বিবিসি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন