ঢাকা, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০১ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ সফর ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

গুলশানে জঙ্গি হামলা ৫৪ ধারা থেকে হাসনাত ও তাহমিদকে অব্যাহতি

প্রকাশের সময় : ৬ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

কোর্ট রিপোর্টার : গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তরাঁয় জঙ্গি হামলার ঘটনায় ফৌজদারি কার্যবিধির ৫৪ ধারার অভিযোগ থেকে হাসনাত ও তাহমিদকে অব্যাহতি দিয়েছেন আদালত। গতকাল ঢাকা মহানগর মো. নূর নবী এ আদেশ দেন।
এর আগে গত ২৮ সেপ্টেম্বর কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের পরিদর্শক মো. হুমায়ুন কবীর অব্যাহতির এ আবেদন করেন। গতকাল ওই আবেদনের উপর শুনানী শেষে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক হাসনাত রেজা করিম ও আফতাব বহুমুখী ফার্মের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফজলে রহিম খান শাহরিয়ারের ছেলে তাহমিদ হাসিব খানকে অব্যাহতি দেন আদালত। এর আগে গত ৩ আগস্ট এ দু’জনকে সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেফতার করা হয়। তবে ফৌজদারি কার্যবিধির ৫৪ ধারার অভিযোগ থেকে অব্যাহতি পেলেও গুলশান হামলার ঘটনায় সন্ত্রাস দমন আইনে করা মূল মামলায় আসামি থাকছে হাসনাত রেজা করিম। তিনি বর্তমানে কারাগারে আছেন। এছাড়া তদন্ত শেষে সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ না পাওয়ায় রেহাই পেয়েছে তাহমিদ। এর আগে ২ অক্টোবর আদালত তাহমিদকে জামিন দিয়েছিলেন। গতকাল জামিনে থেকে অব্যাহতির শুনানীতে আদালতে হাজির হন তিনি।
এদিকে গত ২ জুলাই তাহমিদকে গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তরাঁ থেকে উদ্ধার করে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট ১০ জুলাই এবং ২১ জুলাই তাহমিদকে হাজির হতে নোটিশ ইস্যু করেন। কিন্তু তাহমিদ সেই নোটিশের বিষয়টি গুরুত্ব দেয়নি এবং জঙ্গিদের বিষয়ে কোন বক্তব্য না দেওয়ায় তার বিরুদ্ধে ১৭৬ ধারা অনুযায়ী প্রসিকিউশন দাখিলের জন্য ২৮ সেপ্টেম্বর অনুমতি চেয়ে আদালতে আবেদন করে। গতকাল শুনানী শেষে হাকিম ওই আবেদন মঞ্জুর করেন। একই সঙ্গে আগামী ১৬ অক্টোবর প্রসিকিউশন রিপোর্ট দাখিলের জন্য দিন ধার্য করা হয়েছে।
মামলার নথি সূত্রে জানাগেছে, কমান্ডো অভিযানে জঙ্গিরা নিহত হওয়ার পর হলি আর্টিজান থেকে তাহমিদের সঙ্গে উদ্ধার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক হাসনাত রেজা করিমকেও গ্রেফতার করে পুলিশ। এর আগে ১ জুলাই রাত ৯টার দিকে হলি আর্টিজান রেস্তরাঁয় হামলা চালায় বন্দুকধারীরা। ওই হামলায় ২০ জন নিহত হয়। এছাড়া অভিযানের সময় বন্দুকধারীদের বোমার আঘাতে নিহত হন পুলিশের দুই কর্মকর্তা। পরের দিন সকালে যৌথ বাহিনীর অভিযানে নিহত হয় পাঁচ হামলাকারী ও রেস্তরাঁর এক কর্মী।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন