মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

নির্বাচন ছাড়া ক্ষমতার পালাবদলের কোনো সাংবিধানিক পথ নেই

সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০০ এএম

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচন ছাড়া ক্ষমতার পালাবদলের কোন সাংবিধানিক পথ নেই। নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণই তাদের পরবর্তী সরকার নির্বাচন করবে। বিএনপিকে উদ্দেশ করে বলেন, এদিক-ওদিক না ঘুরে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিন। জনগণের রায় মেনে নেওয়ার সৎ সাহস শেখ হাসিনার আছে।

গতকাল শনিবার বিকেলে তার বাসভবনে আয়োজিত সাংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন। তের বছরের ব্যর্থতার গ্লানি মুছে বিএনপিকে এখন নির্বাচনমূখী হওয়ার আহবান জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, জনগণের রায় মেনে নেওয়ার সৎসাহস শেখ হাসিনার আছে, তাই এদিক ওদিক না ঘুরে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিন। ষড়যন্ত্র করে গত একযুগ ধরে কোন লাভ হয়নি,বাকি সময়েও লাভ হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ।আন্দোলন শুরু হলে মানুষ রাজপথে ঝাঁপিয়ে পড়বে বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, জনগণ ঝাঁপিয়ে পড়াতো দুরের কথা, আন্দোলনের ডাক দিয়ে বিএনপি নেতারাই ঝাঁপ বন্ধ করে ঘরে অবস্থান নেয়,হিন্দি সিরিয়াল দেখে আর জানালা দিয়ে উঁকিঝুঁকি মেরে পুলিশের গতিবিধি লক্ষ্য করে। বারো বছর ধরে বিএনপির কথিত আন্দোলনের ডাক রাজপথে কোন কম্পন তুলতে পারেনি, তাই জনগণ মনে করে এসব হাঁক-ডাক আষাঢ়ে গল্পের মতো। ফেসবুক আর মিডিয়ায় যতটা গর্জে, বাস্তবে রাজপথে ততটা বর্ষে না। আন্দোলনের জন্য প্রয়োজন জনঘণিষ্ট ইস্যু ও যুৎসই সময়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন ও গণমূখী রাজনীতিতে বিরোধী দলগুলো ইস্যুর খরায় ভুগছে। এজন্যই এই মূহুর্তে দেশে বিএনপির কথিত আন্দোলনের অবজেক্টিভ কোন অবস্থা নেই। করোনার অভিঘাত মোকাবেলায় সরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি দেশের মানুষ এখন নিজের অবস্থান উন্নয়নে প্রাণান্ত প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, এ সময় গণ-অভ্যুত্থানের দিবাস্বপ্নে বিভোর বিএনপি
আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক বলেন, বিএনপি ভাবছে আন্দোলনের ডাক দিলেই মানুষ হুড়মুড় করে বেরিয়ে আসবে,প্রকৃতপক্ষে এসব তাদের আকাশকুসুম ভাবনা। বিএনপি নেতারা যা বলছেন নিজেরাও তা বিশ্বাস করেনা বলে জনগণ মনে করেনা।

বিএনপি নেতারা সরকারের বিরোধিতাকে দেশবিরোধীতায় নিয়ে গেছেন,তারা ক্ষমতার জন্য রাষ্ট্রের ইমেজ নষ্ট করতেও ভ্রুক্ষেপ করছে না। নিজেরা আন্দোলন তো করতেও পারেই না,আবার পরাশ্রয়ী আন্দোলনে ভর করতে গিয়েও ব্যর্থ হয়েছে। জনমানুষের প্রয়োজনে জনগণের পাশে না দাঁড়ালে জনগণও কখনো কোন রাজনৈতিক দলের আহবানে সাড়া দেয় না। এসব কথা বুঝতে পেরেই বিএনপি অগণতান্ত্রিক পথে ক্ষমতা ফিরে পেতে ব্যাকুল হয়ে দিগ্বিদিক ছুটছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
মোহাম্মদ দলিলুর রহমান ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৩:৫৪ এএম says : 0
(1)সাংবিধানিক শব্দের অর্থ জানে চাই।(2)পালাবদল অর্থ জানতে চাই।এরশাদের শাসনামলে 1990তে পালাবদলের সিদ্ধান্ত কি কারনে হয়েছিল তাহার উত্তর চাই। সাংবিধান বলদি করেছেন কি জন্য তাহার উত্তর চাই। রাষ্ট্রপতি পদ্ধতি এবং সংসদীয় পদ্ধতি উভয়ের সাংবিধানিক একই রূপ রেখার সমান কি না তাহার উত্তর চাই। যদি রুপ রেখা সমান না হয়,তবে হাতে ক্ষমতা রেখে নির্বাচন হবে কি জন্য উত্তর চাই। যদি হাতে ক্ষমতা রেখে নির্বাচন করেন সেটা কি 1990 এর রাষ্ট্র পতি পদ্ধতির সাংবিধানিক নয়। তাহা হইলে ঘু আর গোবর পার্থক্য কি বলেন। যদি পালাবদলের পথ নাই থাকে তবে রাষ্ট্র পতি পদ্ধতি বাতিল করলেন কোনো। সংসদীয় পদ্ধতির কি দরকার ছিল। এক দলীয় আমলাতান্ত্রিক সংসদীয় পদ্ধতি 360 জন আমলার দফাদারি বেশি না কি রাষ্ট্র পতি একজনের দফাদারি জনগণের জন্য মংগল বলুন দেখি। কি লাভ হয়েছে রাষ্ট্র পতি পদ্ধতি বাতিল করে। 1জনে খাইলে আর 360 জনে খাইলে সেখানে ব্যবধান আছে কি না বলুন দেখি। জনগণ আপনাদের চোখে বোকা মনে হয় না কি যে কিছু বুজে না আপনারাই পন্ডিত,এখনও সময় আছে নিরপক্ষ সরকার দিয়ে নিরপক্ষ নির্বাচন করে ক্ষমতায় আসেন,কে ক্ষমতায় আসবে জনগণের ভোটে যারা নির্বাচিত হবে।ক্ষমতা ছেড়ে দিন মহিলার মত কথা বলিয়েন না।একটি মহিলা আপনার কাছে বিবাহ বসতে রাজী নাই আপনি কি জোর করে সাদী করবেন না কি। জনগণ চাইতেছে আপনারা ক্ষমতা ছেড়ে নির্বাচন দিন,কিন্তু আপনারা তালাকের ভয়ে ঘর থেকে বাহির হইতেছেন না,বিচার মানি তাল গাছ আমার ভাগে দিতে হবে এটাই কি সাংবিধানিক। সাহস করুন ঘর থেকে বাহিরে আসুন ভয় কিসের জনগন অবশ্যই আবার ঘরের ভিতরে পাঠাইবে,যদি ভালো কিছু করে থাকেন। আল্লা হাফেজ।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন