মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

সম্পর্কের উন্নয়ন চায় পাকিস্তান-যুক্তরাষ্ট্র

কুরেশির সাথে শেরম্যানের বৈঠক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০১ এএম

যুক্তরাষ্ট্রের সহকারী-পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়েন্ডি শেরম্যান শুক্রবার পাকিস্তানের নেতাদের সঙ্গে তালেবান শাসিত আফগানিস্তানের উন্নয়ন এবং দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক বিষয়ক সহযোগিতা এগিয়ে নেয়ার পন্থাগুলো নিয়ে আলোচনা করেছেন। প্রতিবেশী ভারত থেকে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে শেরম্যান পাকিস্তান পৌঁছান। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন দায়িত্ব নেয়ার পর ওয়েন্ডি শেরম্যান যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে জ্যেষ্ঠ কূটনীতিক যিনি পকিস্তান সফর গেলেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশির সঙ্গে প্রতিনিধি পর্যায়ে আলোচনার আগে ওয়েন্ডি শেরম্যান পাকিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা ময়িদ ইউসুফের সঙ্গে বৈঠকের মাধ্যমে তার পাকিস্তান সফরের সূচনা করেন। সাক্ষাতে কুরেশি বলেছেন, তার দেশ অর্থনৈতিক সহযোগিতা উন্নয়নে এবং এ অঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠায় যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বিস্তৃত, দীর্ঘমেয়াদী এবং স্থিতিশীল সম্পর্ক চায়। পররাষ্ট্র দপ্তরের এক বিবৃতিতে বলা হয়, বৈঠকে দুই পক্ষ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক, আফগানিস্তান এবং আঞ্চলিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন। শেরম্যান আফগানিস্তানে মানবিক সহায়তা প্রদানের জন্য পাকিস্তানের প্রচেষ্টার প্রশংসা করে বলেন, দেশটি ‘আফগান শরণার্থীদের ৪২ বছর সাহায্য করার জন্য অত্যন্ত গর্বিত’ হওয়া উচিত এবং আমেরিকা তথা বিশ্বও কৃতজ্ঞ।
পাকিস্তান সফরে মার্কিন প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে থাকা শেরম্যান পিটিভি নিউজের অনুষ্ঠান ‘শাহরাহ-ই-দস্তুর’-এ একান্ত সাক্ষাৎকারে এ ব্যাপারে পাকিস্তানের ভূমিকার প্রশংসা করেন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তিনি দিনের শুরুতে এখানে জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক ড্রাইভ সেন্টারে গিয়েছিলেন, যেখানে আফগান শরণার্থীদের জন্য নিবন্ধন কার্ড ইস্যু করা হচ্ছিল যাতে তারা পাকিস্তানে স্বাস্থ্যসেবার মতো সুবিধা পেতে পারে। পররাষ্ট্র দফতরের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র ও পাকিস্তানের পারস্পরিক সুবিধার পাশাপাশি আঞ্চলিক উদ্দেশ্যগুলোর উন্নয়নে দুই দেশের মধ্যে একটি সঠিক সংলাপ ‘প্রয়োজনীয়’ ছিল। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পাকিস্তান ও যুক্তরাষ্ট্রের দৃষ্টিভঙ্গি একই রকম এবং আফগানিস্তানের পরিস্থিতির শান্তিপূর্ণ সমাধানের ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন। তিনি আরো বলেন, পাকিস্তান আশা করেছিল আফগানিস্তানে অন্তবর্তীকালীন তালেবান সরকার শান্তি ও স্থিতিশীলতার পাশাপাশি সব আফগান নাগরিকের উন্নতির জন্য কাজ করবে।
কুরেশি বলেন, ‘একটি প্রতিনিধিত্ব এবং অন্তর্ভুক্তিমূলক (আফগান) সরকার আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের জন্য একটি নির্ভরযোগ্য অংশীদার হতে পারে। বর্তমান পরিস্থিতিতে, ইতিবাচক অন্তর্ভুক্তি, মানবিক সহায়তা এবং আর্থিক সম্পদের বিধান নিশ্চিত করার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঠিক পদক্ষেপের প্রয়োজন রয়েছে। আফগান জনগণের সমস্যা সমাধানে একটি স্থিতিশীল অর্থনীতি। ভারতের অধিকৃত কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়ে মার্কিন প্রতিনিধিদলকে অবহিত করার সময় দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলে স্থায়ী শান্তি ও স্থিতিশীলতার জন্য কাশ্মীর বিরোধের সমাধানের ওপরও জোর দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি পাকিস্তানকে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন দান করায় মার্কিন উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন।
এদিকে, শেরম্যান একদিন আগে বেলুচিস্তানের হারনাই জেলায় ভূমিকম্পে নিহতদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। পররাষ্ট্র দফতরের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আফগানিস্তান থেকে বিদেশি নাগরিকদের প্রত্যাহারে পাকিস্তানের প্রচেষ্টার পাশাপাশি আঞ্চলিক শান্তির জন্য তার প্রচেষ্টারও তিনি প্রশংসা করেছেন। মার্কিন কর্মকর্তা আবহাওয়া পরিবর্তন এবং শক্তির বিকল্প উৎস নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও পাকিস্তানের মধ্যে আলোচনার অগ্রগতির প্রশংসা করেছেন। বৈঠকে মার্কিন দক্ষিণ ও মধ্য এশীয় বিষয়ক সহকারী সচিব ডেভিড লু এবং পররাষ্ট্র সচিব সোহেল মাহমুদও উপস্থিত ছিলেন। দিনের শেষে টুইটে শেরম্যান বলেন, তিনি আফগানিস্তানের ভবিষ্যৎ এবং বৈঠকে কুরেশির সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ ও দীর্ঘদিনের মার্কিন-পাকিস্তান সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা করেছেন। তিনি আরো বলেন, ‘আমরা আঞ্চলিক এবং বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা অব্যাহত রাখার অপেক্ষায় রয়েছি’। সূত্র : ডন, সিএনবিসি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন