শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৬ কার্তিক ১৪২৮, ১৪ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় প্রাণ দুইজনের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০০ এএম

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন দুইজন। তাদের মধ্যে উত্তরা পূর্ব থানার আজমপুর রেলগেট এলাকায় ট্রেনের ধাক্কায় মো. শেখ মানিক নামে এক নাবিক নিহত হয়েছেন। গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

মানিককে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া পথচারী জুনায়েদ হোসেন বলেন, মঙ্গলবার রাতে বাসায় ফেরার সময় দেখি আজমপুর রেললাইনের পাশে ওই ব্যক্তি রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছেন। পরে আমি একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে ঢামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যাই। এখানে আনার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও বলেন, প্রথমে তার নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি। এরপর তার পকেটে থাকা কার্ডে পরিচয় পাওয়া যায়। নিহতের বাড়ি নোয়াখালী জেলায়। ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই আব্দুল্লাহ খান বলেন, রাতে দুর্ঘটনায় আহত এক ব্যক্তিকে ঢামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আনা হয়। পরে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। প্রথমে তার নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি। নিহতের সঙ্গে থাকা কার্ড দেখে জানা যায়, তিনি একজন নাবিক ছিলেন। তার লাশ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের মর্গে রাখা হয়েছে। আমরা সংশ্লিষ্ট রেলওয়ে থানাকে বিষয়টি জানিয়েছি।

এদিকে, কলাবাগান থানার গ্রিন রোডের একটি বাসায় সাদিয়া নামের এক গৃহকর্মীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে এই ঘটনা ঘটে। সাদিয়ার মৃত্যুর খবর পেয়ে গ্রিন রোডের ওই ভবনের চতুর্থ তলার ব্যবসায়ী মির্জা আহমার বাসা থেকে শায়িত অবস্থায় ওই গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। কলাবাগান থানার এসআই মো. বিপ্লব হোসেন বলেন, গত তিন বছর ধরে সাদিয়া ওই বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করতো। গত মঙ্গলবার বাসার মধ্যে সে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে এমন সংবাদের পরিপ্রেক্ষিতে রাতে শায়িত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়। মৃত মেয়েটি কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার মো. তোফিক মিয়ার সন্তান।

তিনি আরও জানান, গৃহকর্তা মির্জা আহমারসহ তার পরিবারের লোকজন পুলিশকে জানিয়েছেন, সাদিয়াকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে তারা তাকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পুলিশ রাত ৮টার পর ঘটনাস্থলে আসে। তারা সাদিয়ার লাশ সুরতহাল প্রস্তুত করেছেন। পরে আইনি প্রক্রিয়া শেষে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। সব বিষয়ে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে বলে জানান তিনি।
এদিকে, গৃহকর্মী সাদিয়ার রহস্যজনক মৃত্যুর প্রতিবাদে ওই এলাকার অর্ধশতাধিক গৃহকর্মী ওই বাসার সামনে জড়ো হন এবং তারা ‘সাদিয়াকে হত্যা করা হয়েছে, সে আত্মহত্যা করেনি’ বলে প্রতিবাদ করতে থাকেন। এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ জানিয়েছে, সাদিয়ার পরিবারকে খবর দেওয়া হয়েছে। তারা যদি অভিযোগ দেন তা গ্রহণ করা হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন