বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

র‍্যাব ও তার ছয় কর্মকর্তার ওপর মানবাধিকার লংঘনের দায়ে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা আরোপ

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১১ ডিসেম্বর, ২০২১, ১০:১৩ এএম | আপডেট : ৭:২৬ পিএম, ১১ ডিসেম্বর, ২০২১

  • অভিযোগ মানবাধিকার লঙ্ঘনের
  • যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে বাংলাদেশের আরও কিছু আইন প্রয়োগকারী সংস্থার ওপর তাদের অভিযোগ রয়েছে
  • নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেজারি বিভাগ
  • ডিপার্টমেন্ট অব স্টেট, ফরেন অপারেশন্স এবং রিলেটেড প্রোগ্রাম অ্যাপ্রোপ্রিয়েশন্স অ্যাক্টের ৭০৩১(সি) ধারার অধীনে বেনজির আহমেদের বিরুদ্ধে ভিসায় বিধিনিষেধ ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়
  • বাংলাদেশ সরকারের মাদকের বিরুদ্ধে অভিযানের অংশ হিসেবে র‌্যাব ভয়াবহ মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে বলে অভিযোগ করা হয়
  • এসব ঘটনায় টার্গেট করা হয়েছে বিরোধী দলীয় সদস্য, সাংবাদিক ও মানবাধিকারকর্মীদের

মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) এবং এর সাবেক-বর্তমান ছয় কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেজারি বিভাগ। শুক্রবার (১০ ডিসেম্বর) আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবসে এ নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়। এক বিজ্ঞপ্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেজারি বিভাগ জানায়, মাদকের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ সরকারের যুদ্ধে অংশ নিয়ে র‌্যাব আইনের শাসন ও মানবাধিকার খর্ব করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থ এতে হুমকির মুখে পড়েছে। ইতিমধ্যে তাদের একজনের ভিসা বাতিল করা হয়েছে।


এ বিষয়ে ওই মন্ত্রণালয় থেকে ১০ ডিসেম্বর দেয়া বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ভয়াবহ মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে অর্থবছর ২০২১ ডিপার্টমেন্ট অব স্টেট, ফরেন অপারেশন্স এবং রিলেটেড প্রোগ্রাম অ্যাপ্রোপ্রিয়েশন্স অ্যাক্টের ৭০৩১(সি) ধারার অধীনে বেনজির আহমেদের বিরুদ্ধে ভিসায় বিধিনিষেধ ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এতে বাংলাদেশে ভয়াবহ মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে বলেও বলা হয়। র‌্যাবের সাবেক ডিজির দায়িত্বে থাকার সময় সংঘটিত মানবাধিবার লঙ্ঘনের জন্য বেনজির আহমেদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়। র‌্যাবের সাবেক ও বর্তমান মোট ৬ জন কর্মকর্তাকে নির্বাহী আদেশে ‘ফরেন এনটিটি’ বা বিদেশি হিসেবে অভিহিত করে এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় আনা হয়েছে।


বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশ সরকারের মাদকের বিরুদ্ধে অভিযানের অংশ হিসেবে র‌্যাব ভয়াবহ মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে বলে অভিযোগ আছে। এর মধ্য দিয়ে আইনের শাসন, মানবাধিকার ও মৌলিক স্বাধীনতাকে খর্ব করা হচ্ছে। খর্ব করা হচ্ছে বাংলাদেশের জনগণের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিকে। আর তাতে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা স্বার্থ হুমকিতে রয়েছে।
ওই বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ২০০৪ সালে বাংলাদেশে র‌্যাব গঠন করা হয়। পুলিশ, সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, বিমান বাহিনী এবং সীমান্তরক্ষীদের সমন্বয়ে এটি গঠিত হয়। এনজিওগুলো অভিযোগ করেছে যে, ২০০৯ সাল থেকে কমপক্ষে ৬০০ গুমের জন্য দায়ী র‌্যাব এবং বাংলাদেশের অন্যান্য আইন প্রয়োগকারীরা। ২০১৮ সাল থেকে প্রায় ৬০০ মানুষকে বিচারবহির্ভূতভাবে হত্যা করা হয়েছে। নির্যাতন করা হয়েছে। কোনো কোনো রিপোর্টে বলা হয়েছে, এসব ঘটনায় টার্গেট করা হয়েছে বিরোধী দলীয় সদস্য, সাংবাদিক ও মানবাধিকারকর্মীদের।


নিষেধাজ্ঞাপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা হলেন, র‌্যাব ডিজি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন, সাবেক ডিজি ও বর্তমান আইজিপি বেনজির আহমেদ, র‌্যাবের অতিরিক্ত ডিজি খান মোহাম্মদ আজাদ, তোফায়েল মুস্তাফা সারোয়ার, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, মোহাম্মদ আনওয়ার লতিফ খান।


এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত র‌্যাবের পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য বা প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বিবিসি বাংলাকে বলেছেন, তারা এখনও বিজ্ঞপ্তিটি দেখেননি। দেখার পর প্রতিক্রিয়া জানাবেন।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
এদেশের নাগরিক ১১ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:৫৩ পিএম says : 10
এ বিষয়ে মন্তব্য করা যাবে না।
Total Reply(0)
ম নাছিরউদ্দীন শাহ ১১ ডিসেম্বর, ২০২১, ৩:৫৩ পিএম says : 5
বাংলাদেশের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক গভীর ষড়যন্ত্রের অংশকিনা? বাংলাদেশের শক্তিশালী অর্থনীতি ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র কিনা?? যুক্তরাষ্ট্রের গনতন্ত্রের সম্মেলনে পর কেন রাষ্ট্রের আইন শৃংখলা বাহিনীর উপর নিষেধাজ্ঞা? যুক্তরাষ্ট্রের অর্থে অস্ত্র গোটা মধ্য প্র‍্যাচের লাখ লাখ মানুষ কে ইসরাইল দিয়ে হত‍্যা করাচ্ছেন আমেরিকা গোটা পৃথিবী আমেরিকার নিকট জিম্মি হয়ে আছে অস্ত্র অর্থ মার্কিন ডলারের গনতন্ত্রের স্বীকার বাংলাদেশ। আজ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে প্রতিবাদ করেছে দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পরারাষ্ট্রমন্ত্রী প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। কিছু মানুষ গুম হয়েছেন। কিছু মানুষ আইন শৃংখলা বাহিনীর নির্যাতনের স্বীকার হয়েছেন। সরকার নারায়ণগঞ্জের ঘটনায় কাওকে ছাড় দেননি। পৃথিবীর প্রত‍্যেকটিদেশে রাষ্ট্রের বাহিনী কতৃক কাক্ষিত অনাকাঙ্ক্ষিত কিগ ঘটনা ঘটে। যুক্তরাষ্ট্রের গনতন্ত্র ভারতের গনতন্ত্র পাকিস্তানের গনতন্ত্র শ্রীলঙ্কার গনতন্ত্র বাংলাদেশের গনতন্ত্রের ভাষা কখনো এক হবেনা।আমেরিকা পৃথিবীর একক পরাশক্তি ইসরাইল দিয়ে মধ‍্যপ্রার্চে এবং আমেরিকা নিজের লক্ষ লক্ষ সৈনিক অত‍্যাধনিক মারাত্মক ভয়ংকর মারনাস্ত্র দিয়ে ইরাক আফগানিস্তান লাখো লাখ মানুষ হত‍্যা করেছেন গোটা মধ‍্যপ্রার্চের মাটি ক্ষতবিক্ষত রক্তাক্ত এটি আমেরিকার কোন গনতন্ত্রের নমুনা।ইসরাইল আন্তর্জাতিক কোন বিধিবিধান মানেনা যখন তখন মধ‍্যপ্রার্চে বিমান হামলা চালাচ্ছে গনতন্ত্রের টিকাদার আমেরিকার মদতে। বাংলাদেশ নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। এই মুহুর্তে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ব‍্যাক্তিরা দায়িত্বশীল বক্তব্য দিবেন।রাষ্ট্রের নির্বাহী প্রধান সহ গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র আন্তর্জাতিক রাজনীতির স্বীকার হতে বাংলাদেশ কিভাবে কি কৌশলে বাহির হওয়া য়ায় চিন্তা করতে হবে। কোন অবস্থায় বাইডেন প্রশাসনের বিরুদ্ধে আমেরিকা বিরুদ্ধে তর্কাতর্কি সৃষ্টি করা যাবেনা। এরাই আন্তর্জাতিক শযতানের বড়ভাই। দক্ষ কুটনৈতিক প্রজ্ঞা বুদ্ধিমত্তা কৌশলে আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র হতে বাহির হবে। এর বিকল্প নেই। বাংলাদেশ বিশ্বের মাঝে অর্থনৈতিক শক্তিশালী হচ্ছে। শক্তিশালী অর্থনীতি হচ্ছে রাষ্ট্রের নির্বাহী প্রধানের ভীশনারী লিডারশিপে বাংলাদেশ আজ উন্নয়ন অগ্রগতি চুড়ান্ত লক্ষে যাচ্ছে। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র কিনা?? দেশের অর্থনীতি ধ্বংস হলে কারা লাভবান হবে? প্রতিটি ঘুম খুনের পিছনে সরকারের ভূমিকা কি রাষ্ট্রের কি দায়িত্ব ছিল। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে রাষ্ট্রের পরিস্কার করতে হবে। ক্ষুদ্রজ্ঞানে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে মতামতে ভুল হল ক্ষমাপ্রার্থী
Total Reply(0)
মোহাম্মদ দলিলুর রহমান ১১ ডিসেম্বর, ২০২১, ৫:৩৭ পিএম says : 9
যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার বিষয় ঐ 100% যুক্তি সংগত ও সত্য,বাংলাদেশের জনগণ এখনও চোখ খুলে নাই,এদের কে হাত করে আজ দলীয় আমলাতান্ত্রিক চৌরাচার দলীয় সংসদীয় পদ্ধতির শাসন ব্যবস্থা বাংলাদেশে চলছে,জনগণ কি এদের কাছে জনগণের মূল্য নেই,দলীয় এই আমলাতান্ত্রিক চৌরাচার দলীয় সংসদীয় পদ্ধতি জরুরি বাতিল করা হউক,অন্যথায় জনগণ ফকির হয়ে যাবে,জরুরি রাষ্ট্রপতি পদ্ধতি চালু করতে হবে করা হউক।
Total Reply(0)
প্রবাসী-একজন ১১ ডিসেম্বর, ২০২১, ৯:৪০ পিএম says : 4
অনেক জালেমদের বিচার দুনিয়া থেকেই শুরু হয়ে যায়, আর আখেরাতের বিচার তো সামনে আছে।
Total Reply(0)
Rafsan Ahmed ১১ ডিসেম্বর, ২০২১, ১০:৫৩ পিএম says : 0
উনারা যে আস্তা আফগানিস্তানের বাড়োটা বাজায় আসছে সেইটা কি মানবাধিকার পুন্রুদ্ধার ছিলো?
Total Reply(0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন