রোববার, ২২ মে ২০২২, ০৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

দিশাহীন মানবতার ভরসাস্থল আল্লাহর ওলীদের দরবার

শাহসূফী আব্দুল হাকিম মাইজভাণ্ডারীর ওরশ সম্পন্ন

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৭ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০৪ এএম

আলহাজ মোস্তফা হাকিম ওয়েল ফেয়ার ফাউন্ডেশন ও হোছনে আরা মনজুর ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্টের যৌথ উদ্যোগে খাদেমুল আওলিয়া শাহসূফী আব্দুল হাকিম আল-মাইজভাণ্ডারীর (রহ.) ২৬তম ওরশ মাহফিল গতকাল বুধবার নগরীর উত্তর কাট্টলী মোস্তফা হাকিম বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠান উপলক্ষে দুস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র, বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়।
এতে প্রধান অতিথি ছিলেন মাইজভাণ্ডার দরবারের সাজ্জাদানশীন ও পার্লামেন্ট অব ওয়ার্ল্ড সূফীজের প্রেসিডেন্ট শাহসূফী সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ আল-হাসানী ওয়াল হোসাইনী আল-মাইজভাণ্ডারী। তিনি বলেন, মানুষ দুনিয়ার মোহে পড়ে সম্পদ সম্মান অর্জনের নেশায় আল্লাহকে পর্যন্ত ভুলে গিয়ে পথহারা ও দিশাহীন হয়ে পড়ে। নানাভাবে কলুষতার শিকার বিভ্রান্ত, বিপন্ন দিশাহীন মানবতার ভরসাস্থল হচ্ছে আল্লাহর ওলীদের দরবার ও খানকা। তিনি বলেন, মোস্তফা হাকিম (রহ.) স্মরণীয় হয়ে আছেন মাইজভাণ্ডারী আউলিয়ায়ে কেরামের ছোহবতের কারণে। তিনি ছিলেন প্রকৃত আশেকে মাইজভাণ্ডারী তার আদব আখলাক রিয়াজত ও চারিত্রিক মাধুর্যপূর্ণ বৈশিষ্ট ছিল অতুলনীয়।
সভাপতির বক্তব্যে মানবকল্যাণমূলক সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠান মোস্তফা হাকিম ওয়েল ফেয়ার ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা, সাবেক সিটি মেয়র এম মনজুর আলম বলেন, আব্দুল হাকিম (রহ.) ছিলেন ধৈর্য্য, সহিষ্ণু, সৃষ্টি ও মুর্শিদপ্রেমীক অতুলনীয় আদর্শের প্রতিক এক সম্মাননীয় বিরল ব্যক্তিত্ব। তিনি তার পীরের নির্দেশে কঠোর রিয়াজতের মাধ্যমে মাইজভাণ্ডারী তরীক্বার মাশায়েখদের খেদমত ও নজরে করমে কামেলিয়াত অর্জন করেন। তাই মাইজভাণ্ডারী শাশ্বত দর্শনের আলোকে মানবজীবন পরিচালনা করতে পারলে জীবন হবে সুন্দর, সমৃদ্ধ, সফল ও স্বার্থক।
মাহফিল উদ্বোধন করে চট্টগ্রাম-৪ (সীতাকুন্ড) আসনের সংসদ সদস্য দিদারুল আলম বলেন, ইসলাম শান্তি ও কল্যাণের ধর্ম। আউলিয়ায়ে কেরাম চর্চিত ইসলামের অসাম্প্রদায়িক দর্শন সূফিবাদ। সূফিবাদ মানুষকে অসাম্প্রদায়িকতার শিক্ষা দেয়। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মোস্তফা হাকিম গ্রুপের পরিচালক মোহাম্মদ সারওয়ার আলম, মোহাম্মদ ফারুক আজম। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মো. সাইফুল আলম ও মো. সাহেদুল আলম। বক্তব্য রাখেন মোস্তফা হাকিম বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের প্রিন্সিপাল প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলমগীর, ভাইস-প্রিন্সিপাল প্রফেসর বাদশা আলম, প্রফেসর ড. আব্দুল মমিন খান। কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন মোস্তফা হাকিম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ নিজামুল আলম। বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন শাহসূফী সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ আল-হাসানী।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
zafor imam ২৭ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:১৪ এএম says : 0
eta shirki kotha.
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন