শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

ইসলামী জীবন

ক্যাম্পাসে সকল ছাত্র সংগঠনের সহাবস্থান নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৮ জানুয়ারি, ২০২২, ৬:৪৩ পিএম

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের সিনিয়র নায়েবে আমীর মাওলানা ইউসুফ আশরাফ বলেছেন, দেশের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্যাম্পাসে সকল ছাত্র সংগঠনের সহাবস্থান নিশ্চিত করতে কর্তৃপক্ষকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে সন্ত্রাস ও অস্ত্রের ঝনঝনানি বন্ধে ইসলামী ছাত্র সংগঠন গুরুত্বর্পূণ ভূমিকা পালন করবে। তিনি আরও বলেন, ইসলামী ছাত্র মজলিস হলো যোগ্য নেতৃত্ব তৈরির কারখানা। ইসলামী ছাত্র মজলিসের প্রত্যেক কর্মীকে প্রশিক্ষিত ও সুদক্ষ করে গড়ে তুলতে হবে। তিনি সরকারের প্রতি আহ্বান জানান, করোনা পরিস্থিতিতে দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতি সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে। বাজার মনিটরিং করে দ্রব্যমূল্য সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার ভিতরে নিয়ে আসুন। বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিস ঢাকা মহানগরীর উদ্যোগে আজ শুক্রবার পুরানা পল্টনস্থ দারুল খিলাফাহ মিলনায়তনে আয়োজিত ৩২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মদ দেলওয়ার আল হুসাইনের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি মুহ্ম্মাদ সাকিব সাইফির পরিচালনায় সম্মেলনে আরও বক্তব্য রাখেন, খেলাফত মজলিসের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মাওলানা আব্দুল আজীজ,যুগ্ম মহাসচিব মুফতি শরাফত হোসাইন, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের প্রাক্তন কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা আজিজুর রহমান হেলাল, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় সভাপতি মুফতি নূর মুহ্ম্মাদ আজিজী, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা হারুনুর রশীদ ভূঁইয়া, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় সভাপতি মুফতি আব্দুর রহীম সাঈদ, কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন সাকি, মুহাম্মদ লোকমান হুসাইন, মাহমুদুল হাসান ও মুহাম্মদ সাআদ। নেতৃবৃন্দ বলেন, খেলাফত মজলিসের মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা জালালুদ্দীন আহমদ, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা আতাউল্লাহ আমীন, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা কুরবান আলী ক্বাসেমী সহ গ্রেফতারকৃত আলেম উলামা ও ইসলামী নেতৃবৃন্দদের অবিলম্বে নি:শর্ত মুক্তি দিতে হবে। সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মদ তারিক বিন হাবীব বলেন, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিম ৩২ বছর ধরে দেশ, জাতি ও উম্মাহর স্বার্থে কাজ করে যাচ্ছে। বাবরী মসজিদ অভিমুখী ঐতিহাসিক লংমার্চ, নাস্তিক মুরতাদ বিরোধী আন্দোলন, ফতোয়া বিরোধী রায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলন, টিপাইমুখ বাধ অভিমুখি লংমার্চ, পাঠ্যপুস্তক থেকে বিতর্কিত লেখকের লেখা অপসারণসহ নানা আন্দোলন সংগ্রামে ছাত্র মজলিসের ভূমিকা ছিল অনস্বীকার্য।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন