ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ০৫ ভাদ্র ১৪২৬, ১৮ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাত শিক্ষকের

প্রকাশের সময় : ৪ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

সিলেট অফিস : সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার দরবস্ত বাজারে কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এক জেএসসি শিক্ষার্থীকে (১৪) ছুরিকাঘাতে আহত করেছে মোক্তার হোসেন (৩৪) নামক এক গৃহশিক্ষক। এ ঘটনায় মোক্তারকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় জনতা। গতকাল (বৃহস্পতিবার) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় সেন্ট্রাল জৈন্তা উচ্চ বিদ্যালয়ের ওই শিক্ষার্থীর বাড়ি উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের তেলিজুরি গ্রামে। আটক মোক্তার হোসেন ওই গ্রামের রহমত আলীর ছেলে। স্থানীয় সূত্র জানায়, দীর্ঘদিন ওই শিক্ষার্থীকে বাড়িতে গিয়ে পড়াতো মোক্তার হোসেন। গত কিছুদিন ধরে ওই শিক্ষার্থীকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল মোক্তার। কিন্তু কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় গতকাল বৃহস্পতিবার জেএসসি পরীক্ষা দিয়ে বেলা আড়াইটার দিকে বাড়ি ফেরার পথে দরবস্ত বাজারে ওই শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাতে আহত করে মোক্তার। স্থানীয় লোকজন ওই শিক্ষার্থীকে জৈন্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। পরে সেখান থেকে তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।
এদিকে ছুরিকাঘাত করার পরপরই মোক্তার পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। একপর্যায়ে স্থানীয় দরবস্ত বাজারের পার্শ্ববর্তী ডাইয়া গ্রামে যুবলীগ নেতা কুতুব উদ্দিনের বাড়ির ঘরে চৌকির নিচে গিয়ে লুকায় মোক্তার। উত্তেজিত জনতা খবর পেয়ে কুতুব উদ্দিনের বাড়ি ঘেরাও করেন। খবর পেয়ে বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে জৈন্তাপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে চৌকির নিচ থেকে মোক্তার হোসেনকে আটক করে। এ সময় মোক্তারকে গণপিটুনি দেয় স্থানীয় জনতা।
স্থানীয় ইউপি সদস্য জালাল উদ্দিন জানান, মোক্তার হোসেন খারাপ প্রকৃতির লোক। এর আগেও তার কুকর্মের কারণে সেন্ট্রাল জৈন্তা উচ্চ বিদ্যালয়ের খ-কালীন শিক্ষকের পদ থেকে তাকে অব্যাহতি দেয়া হয়। জৈন্তাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সফিউল কবির জানান, মোক্তার হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।





 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন