শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ২২ আশ্বিন ১৪২৯, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে জনগণ দিশেহারা

দেশব্যাপি বিক্ষোভ পালিত বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতৃবৃন্দ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১২ আগস্ট, ২০২২, ১২:০৩ এএম

জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়ে মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলা হচ্ছে। জ্বালানিসহ দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে বৃদ্ধিতে জনগণ শুধু দিশেহারা নয় বরং মানুষ সর্বহারা হয়ে যাচ্ছে। মানুষের পেটে ভাত না থাকলে ঋণ করে দেশের উন্নয়ন করে কোনো লাভ নেই। জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিভিন্ন ইসলামী দল আয়োজিত সভা সমাবেশে নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন। একই দাবিতে ইসলামী আন্দোলনের পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে মঙ্গলবার দেশব্যাপি বিক্ষোভ পালিত হয়েছে।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঃ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম শায়খে চরমোনাই বলেছেন, সরকারের দুর্নীতিকে আড়াল করতে জ্বালানি তেলে দাম অস্বাভাবিকভাবে বাড়িয়েছে। ফলে দেশকে বিপর্যয়ের দিকে ঠেলে দিবে। জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়ে মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলা হচ্ছে। দেশকে এই ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করতে গণ-আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। এ ছাড়া বিকল্প ননেই। মঙ্গলবার ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঘোষিত দেশব্যাপী বিক্ষোভের অংশ হিসেবে চাঁদপুরে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন দলের জেলা সভাপতি শেখ মুহাম্মদ জয়নুল আবেদীন। জেলার অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।
এছাড়া, জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ এবং বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহারের দাবিতে মঙ্গলবার সারাদেশে জেলায় জেলায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে। কোন কোন জেলায় বিক্ষোভ সমাবেশ করলেও মিছিল করতে দেয়নি পুলিশ। কোথাও কোথাও বাধার সম্মুখীন হয়েছে জেলা নেতৃবৃন্দ।
ইসলামী আন্দোলন ঢাকা জেলা দক্ষিণ ঃ ইসলামী আন্দোলন ঢাকা জেলা দক্ষিণের উদ্যোগে বিক্ষোভ সমাবেশে দলের কেরাণীগঞ্জ উপজেলা সভাপতি আলহাজ সুলতান আহমদ খান বলেন,
জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত চরম অমানবিক ও গণবিরোধী। এ সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে। অন্যথায় সারাদেশে জনতার রুদ্ররোষ সৃষ্টি হলে সরকারের করুণ পরিণতি বরণ করতে হবে। মঙ্গলবার কেরাণীগঞ্জের জোড় পুল থেকে বিক্ষোভ মিছিল কদমতলী চত্বরে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। মো. শাহাদাত হোসেনের সভাপতিত্বে এতে আরো বক্তব্য রাখেন, আলহাজ সুলতান আহমদ খান, আবু হানিফ মিয়া, হাফেজ জহিরুল ইসলাম।
যেসকল জেলায় বিক্ষোভ কর্মসূচি একযোগে পালিত হয়েছে সেগুলোর মধ্যে রয়েছে, ঢাকা জেলা দক্ষিণ, নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী, মুন্সিগঞ্জ, গাজীপুর, মানিকগঞ্জ, টাঙ্গাইল, শেরপুর, মোমেনশাহী, কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোনা, জামালপুর, শেরপুর, রাজবাড়ী, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর, শরীয়তপুর, মাগুরা, ঝিনাইদহ, যশোর, খুলনা, নড়াইল, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা, মেহেরপুর, চুয়াডাঙ্গা, কুষ্টিয়া, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, নাটোর, রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, চট্টগ্রাম মহানগর, বি-বাড়ীয়া, চাঁদপুর, নোয়াখালী, কুমিল্লা, ফেনী, বরিশাল, পটুয়াখালী, ঝালকাঠী, বরগুনা, পিরোজপুর, সিলেট, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ ও মৌলভীবাজার। বিক্ষোভ কর্মসূচি সফল হওয়ায় পীরসাহেব চরমোনাই’র অভিনন্দন জানিয়েছেন।
বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস ঃ বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মাওলানা জালালুদ্দীন আহমদ বলেছেন, জ্বালানিসহ দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে বৃদ্ধিতে জনগণ শুধু দিশেহারা নয় বরং মানুষ সর্বহারা হয়ে যাচ্ছে। মানুষের পেটে ভাত না থাকলে ঋণ করে দেশের উন্নয়ন করে কোনো লাভ নেই। তিনি বলেন,
অবিলম্বে জ্বালানি তেল অকটেন ও পেট্রোল এর বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহার করতে হবে। অন্যথায় দেশের জনগণ রাস্তায় নেমে আসলে তখন ক্ষমতায় থাকা যাবে না। গতকাল বিকেলে বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস ঢাকা মহানগরীর উদ্যোগে আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
ঢাকা মহানগরীর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাওলানা নূর মোহাম্মদ আজিজীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল মুমিনের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় অফিস ও সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুর রহমান হেলাল, মাওলানা এনামুল হক মুসা, মাওলানা আবুল হাসানাত জালালী, মাওলানা হারুনুর রশীদ ভূইয়া, মাওলানা ফজলুর রহমান, মাওলানা শরীফ হোসাইন, মাওলানা রুহুল আমীন খান। সমাবেশ শেষে বিক্ষোভ মিছিল নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সুরমা টাওয়ারের সামনে এসে শেষ হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন