শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বিএনপিকে রাজপথ ছেড়ে দেবে না আ.লীগ

ইয়াছিন রানা | প্রকাশের সময় : ১৩ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

সমসাময়িক নানা ইস্যুতে রাজনীতির মাঠ দখল করা ও গরম করার চেষ্টা করছে বিএনপি। এমনাবস্থায় রাজনীতির মাঠের দখল হাত ছাড়া করতে চায় না আওয়ামী লীগ। তাই নেতাকর্মীদের মাঠে থাকার নির্দেশনা দিয়েছে দলটি। কর্মসূচির বিপরীতে কর্মসূচি দিয়ে মাঠে থাকবে আওয়ামী লীগ। বিরোধী দলগুলো যেন ‘অযৌক্তিক’ ইস্যুতে মাঠ গরম করতে না পারে এবং জনগণকে বিভ্রান্ত করতেনা পারে সেজন্য নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকতে বলেছেন কেন্দ্রীয় নেতারা। আগামী সেপ্টেম্বর মাস থেকে নিয়মিত কর্মসূচি নিয়ে রাজপথে সক্রিয় থাকবে আওয়ামী লীগ। সারাদেশের নেতাকর্মীদের এ নিয়ে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বিশেষ করে ঢাকা মহানগরের নেতাকর্মী ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের আরও সক্রিয় হতে বলেছে আওয়ামী লীগের হাই-কমান্ড।

আওয়ামী লীগের হাই-কমান্ডের নেতারা বলছেন, জ্বালানী ও দ্রব্যমূল্যের ইস্যুতে জনগণকে বিভ্রান্ত করে ফায়দা লুটতে চাচ্ছে বিএনপি। এছাড়া কয়েকটি প্রভাবশালী দেশের রাষ্ট্রদূতদের সাথে যোগাযোগ করে পরিস্থিতি ঘোলাটে করতে চাচ্ছে। তাই আগামী নির্বাচনের আগে বিএনপিকে সংগঠিত হয়ে রাজপথ গরম করার সুযোগ দেবে না ক্ষমতাসীনরা। আগামী অক্টোবর মাসে জেলা ভিত্তিক তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী সারাদেশের নেতাকর্মীদের এমন বার্তা দেবেন বলেও জানা গেছে।
দলীয় সূত্র জানায়, সেপ্টেম্বরে প্রধানমন্ত্রীর প্রথমে দিল্লি পরে লন্ডন ও যুক্তরাষ্ট্র সফরে যাওয়ার কথা। নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দেবেন তিনি। তাই সেপ্টেম্বরে জেলা নেতাদের সঙ্গে তার বসার সুযোগ না-ও হতে পারে। তাই অক্টোবর মাসের হিসেবে কাজের পরিকল্পনা করা হচ্ছে। এদিকে প্রধানমন্ত্রী দেশের বাইরে অবস্থান করার সময়ে অপ্রীতিকর কিছু যেন না ঘটে সেজন্য নেতাকর্মীরা সতর্ক থাকবে।
গতকাল লক্ষ্মীপুরে বিএনপির সমাবেশের মঞ্চ ও চেয়ার-টেবিল ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। হামলার ঘটনার পর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা শহরে মিছিলও করেন। স্থানীয় সূত্র জানায়, লোডশেডিং ও জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে লক্ষ্মীপুরে সমাবেশের প্রস্তুতি নেওয়া হয়। বিএনপি নেতারা বলছেন, ছাত্রলীগের ৩০-৪০ জন নেতাকর্মী এসে সভাস্থলে হামলা চালিয়েছে। তবে এ বিষয়ে জেলা ছাত্রলীগ বলেছে, তারা শহরে মিছিল করেছে তবে হামলার ঘটনা বিএনপির অভ্যন্তরীণ দ্বদ্বের বিষয়।
এ বিষয়ে আওয়াশী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায়, বাংলাদেশকে বিশ্বের বুকে সন্ত্রাসী দেশ হিসেবে প্রমাণ করতে চায়। তারা আরেকটি ১৫ আগস্ট ঘটাতে চায়। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বেঁচে থাকতে তাদের এ আশা কোনো দিন পূরণ হবে না।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ কর্মীরা মাঠে নামলে রাজপথ নয়, বিএনপি অলিগলিও খুঁজে পাবে না। রাজপথ কারো পৈত্রিক সম্পত্তি নয়, রাজপথ জনগণের সম্পদ, কাজেই অতীতের মত আবারও যদি রাজপথ দখলের নামে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা হয় তাহলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে সমুচিত জবাব দেওয়া হবে।
আওয়ামী লীগকে অচিরেই রাজপথে দেখা যাবে এমনটা জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে বলেন, বিএনপির হাঁকডাক লোক দেখানো, কর্মীদের চাঙ্গা রাখার অপকৌশল মাত্র, এসব তাদের ব্যর্থতা ঢাকার কৌশলী অপপ্রয়াস ছাড়া আর কিছু নয়।
এদিকে কেন্দ্রীয় সম্মেলনের আগে দল গোছানো এবং আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতিসহ সার্বিক বিষয়ে নির্দেশনা অক্টোবরে দলের ৮ বিভাগের নেতাদের নিয়ে গণভবনে বৈঠকে বসবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আগামী রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় দলের ৮ বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদকদের গণভবনে ডেকেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। বৈঠকে কয়টি উপজেলায় সম্মেলন হয়েছে, কয়টিতে হয়নি এসব বিষয়ের অগ্রগতি জানার পাশাপাশি তিনি দ্রুত সম্মেলনের কাজ শেষ করার নির্দেশনা দিতে পারেন বলে জানা গেছে।
প্রায় ৪ বছর পর আবার জেলা, উপজেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ের নেতাদের নিয়ে বসছেন প্রধানমন্ত্রী। সবশেষ ২০১৮ সালের ২৩ জুন গণভবনে আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিতসভা হয়। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে অনুষ্ঠিত ওই বর্ধিতসভায় ৮ বিভাগ থেকে আসা জেলা নেতারা সারা দেশে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক অবস্থার পাশাপাশি ওই সময়ের বিতর্কিত দলীয় এমপিদের কর্মকাণ্ড তুলে ধরেন। এর আগের বছর ২০১৭ সালের ২০ মে জেলা নেতারা গণভবনে আরেক বর্ধিতসভায় তুলে ধরেন বেশকিছু জনবিচ্ছিন্ন দলীয় এমপির বিতর্কিত কর্মকাণ্ড।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন