বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯, ১৬ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

জাতীয় সংবাদ

দিল্লির প্রেসক্রিপশনে এই দেশ চলবে না

বিক্ষোভ সমাবেশে নুরুল হক নুর

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ নভেম্বর, ২০২২, ১২:০০ এএম

গণ অধিকার পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক নুর বলেছেন দিল্লির প্রেসক্রিপশনে এই দেশ চলবে না। এদেশ চলবে এ দেশের জনগণের সরকার দিয়ে। আমরা দিল্লিকে বলে দিতে চাই, আপনারা এই ফ্যাসিবাদ সরকারকে চান নাকি জনগণের সরকারকে চান সেটা স্পষ্ট করতে হবে।
জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে গতকাল তিনি এসব কথা বলেন। ছাত্রনেতাসহ সব রাজবন্দীদের মুক্তি ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

নুরুল হক নুর বলেন, হামলা-মামলা করে আন্দোলন বন্ধ করা যাবে না। একদিকে সরকার বিরোধীদের সভা সমাবেশে বাধা দিচ্ছে, অন্যদিকে তারা তাদের সমাবেশকে কেন্দ্র করে কোটি কোটি টাকা চাঁদা তুলেছে। আর সেই টাকা দিয়ে লোক ভাড়া করে সমাবেশ করছে।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের জনপ্রিয়তা আছে কি না যাচাই করার জন্য তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিয়ে পরীক্ষা করেন। তা না করে সরকার পুরোনো কায়দায় খেলা শুরু করেছে। ক্ষমতায় থাকার জন্য পশ্চিমাদের বোঝাতে জঙ্গিবাদের নাটক সাজাচ্ছে। ডিসেম্বরে বিরোধীদের আন্দোলন দমন করার জন্য আবারও বাসে পেট্রলবোমা ও অগ্নি সন্ত্রাসের নাটক সাজাচ্ছে।

ডাকসুর সাবেক এই ভিপি বলেন, জনগণের ভ্যাট-ট্যাক্সের টাকায় বেতন পায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, অথচ এরাই জনগণের ওপর গুলি চালাচ্ছে, জনগণকে হয়রানি করছে। ফলে এই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি জনগণের কোনো বিশ্বাস নাই।

নুর বলেন, রিজার্ভ সংকটের কারণে ব্যবসায়ীরা এলসি খুলতে পারছে না। অথচ সরকার এ নিয়ে নয়-ছয় করছেন। একবার বলে দুর্ভিক্ষ হবে, আরেকবার বলে দুর্ভিক্ষ হবে না। তাদের কথায়ই তো গড়মিল।
সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, অনতিবিলম্বে অন্তরবর্তীকালীন সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করুন। দেশের এই সংকট থেকে উত্তরণের জন্য রাজনৈতিক দলের নেতাদের সঙ্গে আলোচনায় বসুন। আপনারা আলোচনায় না বসলে বাধ্য করা হবে। আপনারা পদত্যাগ না করলে বাধ্য করা হবে পদত্যাগ করতে।

সমাবেশ থেকে নুরুল হক নুর অবিলম্বে আটক ছাত্রনেতাসহ সব রাজবন্দীদের মুক্তির দাবি করেন। তিনি বলেন, সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। আগামী ১৪ ও ২০ তারিখে ছাত্রদের জামিনের শুনানি আছে। ছাত্রদের জামিন না হলে সরকার পতনে কাফনের কাপড় নিয়ে রাস্তায় নামা হবে।

বিক্ষোভ সমাবেশে সংহিত জানিয়ে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জুনায়েদ সাকি, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট হাসনাত কাইয়ুম, ভাসানী অনুসারী পরিষদের সদস্যসচিব ঋজু, এনডিপির চেয়ারম্যান কারি আবু তাহের, নৈতিক সমাজের চেয়ারম্যান মেজর (অব.) আমসা আমিন প্রমুখ। সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন- গণঅধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খান, হাসান আল মামুন, ফারুক হাসান, যুগ্ম সদস্যসচিব তারেক রহমান প্রমুখ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন