মঙ্গলবার, ০৯ এপ্রিল ২০২৪, ২৬ চৈত্র ১৪৩০, ২৯ রমজান ১৪৪৫ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

নাইজেরিয়ার সঙ্কট সমাধানে সফল হবেন বোলা টিনুবু?

ইনকিলাব ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ৩ মার্চ, ২০২৩, ১২:০০ এএম

নাইজেরিয়ার ক্ষমতাসীন অল প্রগ্রেসিভস কংগ্রেস (এপিসি) প্রার্থী বোলা টিনুবুকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়েছে, যা পশ্চিম আফ্রিকার দেশ জুড়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে। বুধবার, স্বাধীন জাতীয় নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান মাহমুদ ইয়াকুবু ঘোষণা করেছেন যে, টিনুবু শনিবারের নির্বাচনে ৩৭ শতাংশ ভোট জিতেছেন এবং তাকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়েছে।

এ ঘোষণার পরে রাজধানী আবুজায় একটি হোটেলের বাইরে বিক্ষোভ-সমাবেশ হয়েছে যেখানে অনেক নির্বাচনী পর্যবেক্ষক অবস্থান করছেন। ইউরোপীয় ইউনিয়ন দল সহ অন্তত দুটি পর্যবেক্ষক মিশন প্রধান লজিস্টিক সমস্যা, ভোটারদের বঞ্চিত করা এবং নির্বাচন কমিশনের স্বচ্ছতার অভাবকে চিহ্নিত করেছে। হোটেলটি মঙ্গলবার বিরোধী লেবার পার্টি, পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টি (পিডিপি) এবং আফ্রিকান ডেমোক্রেটিক কংগ্রেসের নেতাদের পাশাপাশি দুই ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ইউসুফ দত্তি বাবা-আহমেদ এবং ইফেয়ানি ওকোওয়ার একের পর এক সংবাদ সম্মেলনের স্থানও ছিল।

সেখানে লেবার পার্টির চেয়ারম্যান জুলিয়াস আবুরে ব্যাপক কারসাজির অভিযোগে বলেছেন, ‘এটি অন্তত বলতে গেলে গণতন্ত্রের ওপর একটি ধর্ষণ’। ডিনো মেলায়ে, একজন পিডিপি নেতা, ভোটের সমষ্টিকে ‘ভোটের বরাদ্দ’ বলেছেন। নির্বাচন কমিশন জাতীয় পর্যায়ে প্রথমবারের মতো বায়োমেট্রিক ভোটার শনাক্তকরণ প্রযুক্তি চালু করেছে এবং স্বচ্ছতা উন্নত করতে নির্বাচনী ফলাফল আপলোড করার জন্য একটি পোর্টালও ব্যবহার করেছে।

কিন্তু বিরোধী দল এবং এর সমর্থকরা বলেছে যে, সিস্টেমের ব্যালট ম্যানিপুলেশন এবং ভোট কেন্দ্রে ম্যানুয়াল গণনা থেকে ফলাফলে বৈষম্যের জন্য অনুমোদিত ট্যালি আপলোড করতে ব্যর্থতা। লেবার পার্টির প্রার্থী পিটার ওবির নিজ রাজ্য আনাম্ব্রার রাজধানী আওকাতে ব্যবসায়ী মার্সি ইফং বলেন, ‘ঈশ্বরের চোখে, লোকটি (টিনুবু) বিজয়ী নয়।’

এতে টিনুবুর ক্ষমতা গ্রহণে কোন অসুবিধা হবে না। আফ্রিকার সবচেয়ে জনবহুল গণতন্ত্রের প্রেসিডেন্ট হিসাবে তার অভিষেক ২৯ মে পর্যন্ত ঘটবে না। ফেব্রুয়ারিতে, বিদায়ী প্রেসিডেন্ট মুহাম্মদু বুহারি রূপান্তরটি মসৃণ করার জন্য একটি কমিটি গঠন করেছিলেন। তবে বিরোধীরা তার আগে একটি আইনি চ্যালেঞ্জ জানাতে প্রস্তুতি নিচ্ছে। লেবার পার্টির বাবা-আহমেদ নিজের এবং ওবি সম্পর্কে বলেছেন, ‘আমরা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আদালতে যাব। এ জন্য কাগজপত্র প্রস্তুত করা হচ্ছে।’ ফলাফল ঘোষণার কয়েকদিন পরেই আদালতে ফলাফলের বিরুদ্ধে পিটিশন দায়ের করা যেতে পারে। নির্বাচনী পিটিশন ট্রাইব্যুনাল ১৮০ দিনের মধ্যে যেকোনো চ্যালেঞ্জের নিষ্পত্তি করবে বলে আশা করা হচ্ছে। পিটিশনের ওপর চূড়ান্ত রায় দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

প্রত্যাশিত হিসাবে শপথ নিলে, টিনুবু বুহারির কাছ থেকে একটি বিভক্ত দেশের উত্তরাধিকারী হবেন। নির্বাচনী ফলাফলে এর বিভাজন তুলে ধরা হয়েছে। টিনুবু দেশের ৩৬ টি রাজ্যের মধ্যে ১২ টিতে জিতেছেন এবং রাজধানী আবুজা এবং তার নিজ রাজ্য লাগোসে হেরেছেন। তিনি এবং ভাইস-প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত কাশিম শেট্টিমা উভয়েই মুসলিম, যেখানে দেশটি খ্রিস্টান এবং মুসলমানদের মধ্যে মোটামুটি সমানভাবে বিভক্ত।

নাইজেরিয়ার অর্থনীতিও বিপর্যস্ত। গত পাঁচ বছরে সেখানে দুটি মন্দা হয়েছে, আংশিকভাবে নীতির ভুল পদক্ষেপ এবং কোভিড-১৯ মহামারীর ফলস্বরূপ। নগদ অর্থ এবং জ্বালানীর ঘাটতিও নির্বাচনের আগের সপ্তাহগুলিতে দেশব্যাপী ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে। এর বাইরে, নতুন প্রশাসনকে তার প্রায় ছয়টি ভূ-রাজনৈতিক অঞ্চল জুড়ে ব্যাপক নিরাপত্তাহীনতা মোকাবেলা করতে হবে। বোকো হারাম উত্তর-পূর্বে ১৩ বছরের সশস্ত্র অভিযান পরিচালনা করছে এবং দক্ষিণ-পূর্বে বিচ্ছিন্নতাবাদী এবং উত্তর-পশ্চিম ও মধ্য নাইজেরিয়ায় দস্যুদের দল সহ দেশের অন্যত্র একাধিক সশস্ত্র গোষ্ঠী কাজ করছে। এ সবই টিনুবুর জন্য চ্যালেঞ্জ হিসাবে কাজ করবে। সূত্র : আল-জাজিরা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন