ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭, ১৩ সফর ১৪৪২ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

ইরাকে আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে মার্কিন সমর্থন অব্যাহত থাকবে

হোয়াইট হাউজে ট্রাম্প-আবাদি আলোচনা

| প্রকাশের সময় : ২২ মার্চ, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরাকে আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থনের কথা ব্যক্ত করেছেন। সোমবার হোয়াইট হাউজে সফররত ইরাকি প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল-আবাদির সঙ্গে আলোচনাকালে তিনি এ সমর্থনের কথা ব্যক্ত করেন। ট্রাম্প বলেন, আমরা আইএসকে নির্মূল করতে যাচ্ছি। তিনি ইরাকের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মসুলকে চরমপন্থী আইএসের কবল থেকে পুনরুদ্ধারের প্রশংসা করেন। মার্কিন নেতৃত্বাধীন ইরাকি বাহিনী মসুলের পশ্চিমাঞ্চলে আইএসের সর্বশেষ শক্ত ঘাঁটি পুরুদ্ধারের চেষ্টায় রয়েছে। আল-আবাদি বলেন, তার দেশ আইএস উৎখাতের যুদ্ধে সবার আগে রয়েছে। আইএসকে তিনি সারা বিশে^র জন্য হুমকি হিসেবে উল্লেখ করেন।
পেন্টাগন আইএসর বিরুদ্ধে যুদ্ধে নতুন কলাকৌশল নিয়ে ভাবলেও ইরাক ও সিরিয়া থেকে আইএস উৎখাতের কথা বললেও ট্রাম্প প্রশাসন এখনও এ ব্যাপারে নতুন কোন রণকৌশল ঘোষণা করেনি। তবে, ট্রাম্প ইতিমধ্যে প্ররিক্ষা খাতে বড় ধরনের বাজেট সংযোজন করেছেন, যার মধ্যে এ বছর আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ব্যবহারের জন্য অতিরিক্ত তিনশো কোটি ডলার রয়েছে। ট্রাম্প সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ইরাক থেকে মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহারের সমালোচনা করেন এবং অভিযোগ করেন, এ কারণেই আইএস ইরাকে শক্ত ঘাঁটি গড়তে পেরেছে। যুক্তরাষ্ট্র এ সপ্তাহের শেষদিকে আইএস-বিরোধী ৬৮সদস্য দেশের সঙ্গে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে বৈঠক করবে। তাতে, সংগঠনটির বিরুদ্ধে সামরিক তৎপরতা, সন্ত্রাসবিরোধী অর্থায়ন, বিদেশী জিহাদিদের যোগদান বন্ধ করাসহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। আল-আবাদির কার্যালয় থেকে জানানো হয়, সফরকালে আবাদি দু’দেশের মধ্যে সম্পর্কোন্নয়নে অন্যান্য মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গেও আলোচনা করবেন। আল-আবাদির ওয়াশিংটন সফরকালে দেশটির মিনিস্ট্রি অব ডিসপ্লেসমেন্ট এন্ড মাইগ্রেশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, পশ্চিম মসুলে মার্কিন নেতৃত্বাধীন ইরাকি বাহিনী অভিযান পরিচালনা করার পর থেকে এ পর্যন্ত এক লাখ ৮১ হাজার সাধারণ নাগরিক তাদের ঘরবাড়ি ছেড়ে চলে গেছে।
গত বছর অক্টোবর মাসে ইরাক মার্কিন বাহিনীর নেতৃত্বে মসুল পুনরুদ্ধারের কাজ শুরু করে এবং গত জানুয়ারি মাসে ফোরাত নদীর পূর্বাংশের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করে। ওই মন্ত্রণালয়ের সূত্র আরও জানায়, সামরিক অভিযান শুরু হওয়ার পর সাড়ে তিন লাখেরও বেশি মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছিলো। তবে, অপেক্ষাকৃত নিরাপদ এলাকাগুলোতে ৮১ হাজার মানুষ তাদের ঘরবাড়িতে ফিরে এসেছে।
সম্প্রতি শহরের পুরনো এলাকার দিকে ধাবমান সেনাবাহিনীর সাথে আইএস জিহাদিদের তুমুল সংঘর্ষ হচ্ছে। তবে, অগ্রগতি হচ্ছে সামান্যই। কারণ, মসুলের কেন্দ্রস্থল ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা এবং সেখানকার রাস্তাঘাটগুলোও অপ্রশস্ত। কেন্দ্রীয় পুলিশ বাহিনীর ব্রিগেডিয়ার সালাম হায়দার সোমবার জানান, খারাপ আবহাওয়ার কারণে গুরুত্বপূর্ণ গুরুত্বপূর্ণ আল-নূর মসজিদমুখী অভিযান ব্যর্থ হয়েছে। বিমান অভিযানও এত বাধাগ্রস্ত হয়েছে। এই মসজিদটিতেই আইএস নেতা আবু বকর আল-বাগদাদি ২০১৪ সালের জুলাই মাসে জনসমক্ষে হাজির হয়েছিলেন এবং তার পরিকল্পিত ইসলামী খিলাফত প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দিয়েছিলেন। ডিপিএ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন