ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

কূটনীতিকদের পৌর নির্বাচনে অনিয়মের চিত্র দেখালো বিএনপি

গুলশানে সিনিয়র নেতাদের সাথে ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক

প্রকাশের সময় : ২১ জানুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : বাংলাদেশে নিযুক্ত ২৪টি দেশের কূটনীতিককে পৌরসভা নির্বাচনে ক্ষমতাসীনদের তা-ব, নির্বাচন কমিশন ও জনপ্রশাসনের পক্ষপাতমূলক ভূমিকার দালিলিক প্রমাণ দিয়েছে বিএনপি। দলটির তরফ থেকে বলা হয়েছে, এ নির্বাচন আবারও প্রমাণ করলো আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। গতকাল বুধবার গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বিকাল ৪টা ১০ মিনিট থেকে ৫টা ২৭ মিনিট পর্যন্ত বিশ্বের প্রভাবশালী দেশের কূটনীতিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন দলের সিনিয়র নেতারা। ওই বৈঠক সূত্র এ তথ্য জানা গেছে।
বৈঠকে উপস্থিত এক নেতা ইনকিলাবকে জানান, পৌরসভা নির্বাচনের কারচুপি ও অনিয়ম বিএনপি ৭২ মিনিটের একটি ডকুমেন্টারি তৈরি করেছে। কূটনীতিকদের দেখানোর জন্য ওই ডকুমেন্টারি ২০ মিনিটের সার সংক্ষেপ দেখানো হয়।
বৈঠকের শুরুতেই বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর একটি লিখিত বক্তব্য পেশ করেন। মহানগর বিএনপির আরেক কর্মসূচিতে তার প্রধান হিসেবে বক্তব্য রাখার সিডিউল থাকায় বৈঠকের এক পর্যায়ে চলে যান তিনি। বৈঠকে অন্যদের মধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা রিয়াজ রহমান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইনাম আহমেদ চৌধুরী, সাবিহ উদ্দিন আহমেদ এবং বিএনপির আন্তর্জাতিক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন ও সাংবাদিক শফিক রেহমানও উপস্থিত ছিলেন।
যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইউএনডিপি, জার্মানি, স্পেন তুরস্ক, সুইডেন, জাপানসহ ২৪টি দেশের কূটনীতিকরা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।
বিএনপির কূটনীতিক কোরের সদস্য ওই নেতা বলেন, কূটনীতিকদের নিয়মিত অবহিতকরণের অংশ হিসেবে এ বৈঠক হয়েছে। এতে পৌরসভা নির্বাচনে কারচুপির সচিত্র রিপোর্ট তুলে ধরা হয়েছে।
সূত্রমতে, বিএনপির দাবি গত বছরের ৫ জানুয়ারির জাতীয় নির্বাচনের মতো সদ্য অনুষ্ঠিত পৌরসভায় কারচুপির মহোৎসব হয়েছে। এর আগে ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের কারচুপির কথাও উল্লেখ করে দলটির নেতারা বলেন, সামনে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। ওই নির্বাচনও সুষ্ঠু হবে না।
নির্বাচন কমিশন ও সরকারের ভূমিকার বিষয়টিও আলোচনায় এসেছে বলে জানা গেছে। ইসিকে সরকারের আজ্ঞাবহ আখ্যা দিয়ে বলা হয়, অনিয়ম ও কারচুপির বিষয়ে ইসি তেমন কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। নির্বাচনের আগে থেকে ইসিকে আচরণবিধি লঙ্ঘনসহ নানা বিষয়ে অবহিত করা হলেও তারা নিশ্চুপ ছিল।
বিএনপির ব্রিফিং
বৈঠকের পর দলের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন বৈঠকের বিষয়বস্তু সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরে বলেন, কূটনীতিকদের সঙ্গে এই বৈঠক রুটিন মতবিনিময়ের মতো। আমরা বিভিন্ন সময়ে তাদের সঙ্গে এরূপ বৈঠক করে থাকি। কয়েকদিন আগে পৌর নির্বাচন হয়ে গেলো। এই নির্বাচন সম্পর্কে আমরা আমাদের উন্নয়ন সহযোগী দেশসমূহের কাছে অনেক অভিযোগ তুলে ধরেছিলাম। সেখানে ভোট ডাকাতি হয়েছে, মানুষের অধিকার ছিনিয়ে নেয়া হয়েছেÑ একথাগুলো আমরা দলের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময়ে তুলে ধরেছিলাম। এসব বিষয়ে তাদের (কূটনীতিক) আগ্রহ ছিলো, আমাদের অবস্থানটি কি? আমরা নির্বাচনটি কিভাবে দেখলাম। সে বিষয়গুলো আমরা তাদের কাছে রুটিন মতবিনিময়ের এই অনুষ্ঠানে মধ্যে উঠে এসেছে।
বৈঠকে পৌর নির্বাচনের ভোট কারচুপির বিষয়ে কোনো দালিলিক প্রমাণ উপস্থাপন করেছেন কিনা প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, আমরা নিসন্দেহে কূটনীতিকদের কিছু দালিলিক প্রমাণ দেখিয়েছে। পৌর নির্বাচনে কিভাবে নির্বাচন হয়েছে, কিভাবে ভোট কারচুপি হয়েছে, কিভাবে ভোটারদের ভোটদান থেকে বিরত রাখা হয়েছে, কিভাবে প্রার্থীদের বের করে দিয়েছে, কিভাবে ভোটারদের লাঞ্ছিত করা হয়েছে ইত্যাদি বিষয়ের ওপর একটি ডুকোমেন্টারি আমরা তাদের দেখিয়েছি।
রিপন বলেন, আমরা কুটনীতিকদের বলেছি এই সরকার মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে। তাদের অধীনে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব হবে না। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচন আমরা যখন যোগদান করলাম না, তখন থেকে সুশীল সমাজের পক্ষ থেকে আমাদের নানাভাবে বলা হতো যে নির্বাচন না যেয়ে সম্ভবত আমরা ভালো করিনি।
৫ জানুয়ারি পরে আমরা যতগুলো নির্বাচনে অংশ নিয়েছি, সরকার কোনো নির্বাচনই সুষ্ঠুভাবে করিনি। মানুষের ভোটের অধিকার কখনোই ফিরিয়ে দেয়নি। সুতরাং পৌর নির্বাচনে যে আমরা গেলাম, তাদের অধীনে যে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে নাÑ এটা আবার প্রমাণিত হলো।
এর আগে গত বছরের জানুয়ারিতে অবরুদ্ধ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাথে আকস্মিক বৈঠক করেন ১৬ দেশের কূটনীতিক। এরপরও গত ২৩ ডিসেম্বর কূটনীতিদের নিয়ে আরেকটি বৈঠক করে বিএনপির সিনিয়র নেতারা। এছাড়াও বিভিন্ন সময় কূটনীতিকদের নিয়ে নিজ বাসায় নৈশভোজে মিলিত হয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন