ঢাকা শনিবার, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ০২ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউল সানী ১৪৪২ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

পেট্রোনাসের উপদেষ্টা পদ থেকে মাহাথিরকে অপসারণ

প্রধানমন্ত্রী নাজিবের মন্ত্রিসভার প্রথম প্রতিশোধাত্মক সিদ্ধান্ত

প্রকাশের সময় : ১৩ মার্চ, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদকে রাষ্ট্রায়ত্ত তেল, গ্যাস অনুসন্ধান কোম্পানি পেট্রোনাসের উপদেষ্টা পদ থেকে অপসারণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের সভাপতিত্বে গত শুক্রবার মন্ত্রিসভা বৈঠকে সর্বসম্মতিক্রমে মাহাথিরকে অপসারণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী জাতীয় কারমেকার পোরশন এবং পারডানার লিডারশিপ ফাউন্ডেশনসহ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানের উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। সরকারের এ সিদ্ধান্তে সেসব প্রতিষ্ঠান থেকেও মাহাথির মোহম্মদকে অপসারণ করা হচ্ছে কিনা তা স্পষ্ট নয়। সরকারের দুর্নীতি, অনিয়মের প্রতিবাদে সম্প্রতি ক্ষমতাসীন ইউনাইটেড মালয়স ন্যাশনাল দলের উপদেষ্টার পদ থেকে সরে দাঁড়ান মাহাথির মোহাম্মদ। এ দল থেকে নির্বাচিত হয়েই মাহাথির মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী পদে আসীন হয়েছিলেন। দীর্ঘ ২২ বছর ওই পদে থেকে সরকার পরিচালনা করেন তিনি। সেচ্ছায় পদত্যাগের পরেও মাহাথির ইউনাইটেড মালয়স ন্যাশনাল দলের উপদেষ্টা হিসেবেও সক্রিয় ছিলেন। সাম্প্রতিক সময়ে প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজ্জাকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠলে বিরোধী দল তার পদত্যাগ দাবি করে। প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত অর্থ নিজের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে রাখার জোরালো অভিযোগ উঠে। এতে বিরোধীদের ওপর দমন-পীড়ন বাড়ে সরকারের। এ সময় ড. মাহাথির প্রধানমন্ত্রীকে পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর পরামর্শ দেন। তার ওই পরামর্শে সাড়া না দেয়ায় ড. মাহাথির ইউনাইটেড মালয়স ন্যাশনাল দল থেকে পদত্যাগ করে বিরোধী দলের দাবির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেন। সরকার প্রধানের পদত্যাগের দাবিতে বিরোধী রাজনৈতিক দল ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার সদস্যদের ডাকা সম্মেলনে যোগ দেন ড. মাহাথির। সম্মেলন থেকে নাজিব রাজ্জাক নেতৃত্বাধীন সরকারের অপসারন দাবিতে ঘোষণাপত্রেও সই করেন সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী। মন্ত্রিপরিষদ বৈঠকে ড. মাহাথিরের সাম্প্রতিক ঘোষণা নিয়ে আলোচনা হয়। এ নিয়ে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ। এতে বলা হয়, গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত সরকারকে উৎখাতের লক্ষ্যই ছিল ড. মাহাথিরের ওই ঘোষণার মূল প্রতিপাদ্য বিষয় যা দেশের ফেডারেল সংবিধানের পরিপন্থী বলে মনে করে সরকার। বিবৃতিতে বলা হয়, মন্ত্রিপরিষদ সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, যেহেতু মাহাথির মোহাম্মদ বর্তমান সরকারকে আর কোনভাবে সমর্থন দিচ্ছেন না সেহেতু সরকারী কোন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তাকে যুক্ত রাখা উচিত হবে না। ওয়েবসাইট।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন