বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৯ শ্রাবন ১৪৩১, ১৭ মুহাররম ১৪৪৬ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ওসমানীনগরে চাঞ্চল্যকর মা ছেলে হত্যার আসামী আটক

বালাগঞ্জ (সিলেট) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৩ এপ্রিল, ২০১৮, ৪:৫৯ পিএম

সিলেটের ওসমানীনগরের চাঞ্চল্যকর মা ও ছেলে হত্যার আসামী আটক। দুটি গলিত লাশ উদ্ধারের ২ সপ্তাহের মধ্যেই ঘটনার রহস্য উদঘাটন করে ৩ আসামীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। সোমবার রাতে অভিযান চালিয়ে উপজেলার পশ্চিম পৈলনপুর ইউনিয়নের গলমুকাপন গ্রামের জবেদ আলীর ছেলে জখরুল মিয়া, গোয়ালাবাজার ইউনিয়নের গদিয়ারচর গ্রামের মৃত আবদুল মন্নানের ছেলে শাহ্ মো. নজরুল ইসলাম ও একই গ্রামের মৃত আবুল কালামের ছেলে জয়নাল মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়।
পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা মহিলাকে ধর্ষণের পর তার ছেলেসহ হত্যা করে লাশ গুম করার কথা স্বীকার করেছে বলে জানিয়েছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস এম মাইন উদ্দিন। ঘটনার সাথে জড়িত আরেক আসামীকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।
গত ২৪ মার্চ বিকেলে ওসমানীনগরের গোয়ালাবাজার ইউনিয়নের একারাই গ্রামের ছোট হাওর এলাকা থেকে অজ্ঞাত হিসেবে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার কাচারি মালাকারপাড়া গ্রামের মৃত দেবেন্দ্র মালাকারের স্ত্রী দিপু মালাকার (৩৬) ও তার ছেলে বিকাশ মালাকারের (৭) গলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ঐদিন রাতেই লাশের স্বজনরা এসে পরিচয় সনাক্ত করে।
এ ঘটনায় ২৬ মার্চ নিহত মহিলার ছেলে যিশু মালাকার বাদী হয়ে অজ্ঞাত কয়েক জনকে অভিযুক্ত করে ওসমানীনগর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলাটি গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করে অল্প সময়ে ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটন ও আসামী গ্রেফতারে করতে সক্ষম হয় পুলিশ।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, দিপু মালাকার গোয়ালাবাজার এলাকায় ছোট ছেলেকে নিয়ে একটি কলোনিতে বসবাস করে বিভিন্ন বাসাবাড়িতে কাজ করতেন। ১৭ মার্চ রাতে আসামীরা একারাই এলাকায় একটি মোরগ ও মাছের খামারে নিয়ে ঐ মহিলাকে ধর্ষণের পর মহিলাসহ তার ছেলেকে হত্যা করে পাশ^বর্তী হাওর এলাকায় লাশ গুম করে রাখে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসমানীনগর থানার ওসি (তদন্ত) এসএম মাইন উদ্দিন ৩ আসামী গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ২৬ মার্চ মামলা দায়েরের পর অনেকের সহযোগিতায় রহস্য উদঘাটন করে জড়িতদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হই। গ্রেফতারকৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাবাদে মা ছেলেকে হত্যার দায় স্বীকার করেছে। মঙ্গলবার গ্রেফতারকৃত আসামীদের আদালতে পাঠানো এবং স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী গ্রহণের জন্য আবেদন করা হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন