ঢাকা, বুধবার, ০৫ আগস্ট ২০২০, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৪ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়ায় সিপিবির সমাবেশে শাজাহান খানকে গ্রেফতারের দাবি

স্টাফ রিপোর্টার নারায়ণগঞ্জ থেকে | প্রকাশের সময় : ৪ আগস্ট, ২০১৮, ৪:১২ পিএম

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য মঞ্জুরুল আহসান খান বলেছেন, আমাকে অনেকে জিজ্ঞাসা করেছে এ যে মাফিয়া নিয়ন্ত্রণ করছে গোটা পরিবহন ব্যবস্থাকে এর থেকে রক্ষা করার কি উপায়। আমি খালেদা জিয়াকে বলেছি, শেখ হাসিনাকেও বলেছি, হোম মিনিস্টার নাসিম ছিলেন তাকেও বলেছিলাম পরবর্তীতে মান্নান ভূঁইয়া মন্ত্রী ছিলেন তাকেও বলেছিলাম যে এ মাফিয়া সিন্ডিকেট ভেঙে দিতে হবে। ওই শাহজাহান খান ভুয়া শ্রমিক নেতা তাকে গ্রেফতার করতে হবে। মালিক নয় চাঁদাবাজ মাস্তানকে গ্রেফতার করতে হবে। কারণ শাহজাহান খানের ভাই হচ্ছে এক কোম্পানির মালিক ও শাহজাহান খানের স্ত্রীও এক কোম্পানির মালিক। এভাবে চারদিকে ছিটিয়ে আছে আওয়ামীলীগের নেতা। আর যারা বিএনপি জামায়াতের নেতা তারা হয়ে গেছে গাড়ির মালিক। এটাকে ভাঙতে না পারলে এটা কোন দিন ঠিক হবে না।
৩ আগস্ট শুক্রবার বিকেলে শহরের চাষাঢ়ায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টি শহর কমিটির চতুর্দশ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্যে দিয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন মঞ্জুরুল আহসান সহ অতিথিরা।
তিনি আরো বলেন, আজকে দেশে রাজনৈতিক সংকট। এ সংকট রাজনৈতিক ভাবে সমাধান করতে হবে। এ আওয়ামীলীগ সরকার আপাদমস্তক দুর্নীতিগ্রস্ত। আওয়ামীলীগ তৃণমূলের পার্টি ছিল। এখন দুর্নীতিও তৃণমূলে চলে গেছে। বিএনপি হওয়া ভবনে ছিল। আর দুর্নীতিও ছিল হওয়া ভবনের ভিতরে সেখানে সাধারণ মানুষের প্রবেশ নিষেধ ছিল তাই সবাই দেখতে পায় না।
তিনি আরো বলেন, বিএনপিতো ডাকাত আর জামায়াত সন্ত্রাস ও ডাকাত। আওয়ামীলীগ সমস্যা আর বিএনপি নিয়ে আছি বিপদে। আওয়ামীলীগ পড়ে গেলে বিএনপি আসবে। আওয়ামীলীগের অত্যাচারে বিএনপির নির্যাতন ভুলে গেলে চলবে না। তাই আমাদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আওয়ামীলীগ বিএনপির বাইরে একটি গণতান্ত্রিক বামজোট গঠন করতে হবে।’
সিপিবির শহর কমিটির সভাপতি আব্দুল হাই শরীফের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য আবদুল্লা আল কাফি রতন, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শ্রমিক নেতা মন্টু ঘোষ, নারায়ণগঞ্জ জেলা সিপিবির সভাপতি কমে হাফিজুল ইসলাম, নারী নেত্রী সাহানারা বেগম, শ্রমিক নেতা আব্দুস সোবহান, মৈত্রী ঘোষ, শরৎ চন্দ্র মণ্ডল, সুজয় রায় চৌধুরী।
উক্ত সম্মেলনের উদ্বোধনী সমাবেশে বক্তব্যে বক্তারা দেশে চলমান অসন্তোষ, খুন, ধর্ষণ, ক্রসফায়ার, শিশু হত্যা, সড়ক দুর্ঘটনায় হত্যা সহ শ্রমিক শোষণ এবং আন্দোলনের প্রেক্ষাপট তুলে ধরেন। আগামী দিনে শ্রমিকদের ন্যায্য মজুরির দাবিতে আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান। বাংলাদেশের বর্তমান রাজনৈতিক ও সামাজিক পরিস্থিতির কথা উলে¬খ করে বলেন, বাংলাদেশ এক উদ্ভট উটের পিঠে মরুভূমি পারি দিচ্ছে। আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নানান অস্থিতিশীলতার কথা উলে¬খ করেন। বিভিন্ন সিটি নির্বাচনে অগণতান্ত্রিক নির্বাচন ব্যবস্থা ও জনগণের দুর্ভোগ এবং নির্বাচনী দুর্নীতির কথা উলে¬খ করে আগামী দিনে দ্বিদলীয় বৃত্ত ভেঙে বাম গণতান্ত্রিক বিকল্প গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন