ঢাকা বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২ কার্তিক ১৪২৭, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

চাষি-ব্যবসায়ীর মিলনমেলা

নিমসার সবজির হাট

মুন্সী কামাল আতাতুর্ক মিসেল, চান্দিনা (কুমিল্লা) থেকে : | প্রকাশের সময় : ২৪ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

ভোর পৌনে পাঁচটা। ঘন কুয়াশার কারণে চারিদিক তখনো অন্ধকার। তারও আগে থেকে ক্ষেতের ফুলকপি আহরণে ব্যস্ত কৃষক। কৃষক আল আমিন ও আনোয়ার জানালেন, সেই কুয়াশাচ্ছন্ন ভোর থেকেই নিমসার সবজির হাট বসে। সবজি তুলে পরিস্কার করে হাটে নিতে হয়। তাই তাদের কর্মব্যস্ততা শুরু হয় সেই ভোর থেকেই।

কুমিল্লার নিমসার সবজির হাটে প্রতিদিন কেনাবেচা হয় কোটি টাকার সবজি। স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে সবজি চলে যাচ্ছে রাজধানীসহ আশেপাশের বাজারে। নিমসার এই সবজির হাটটি সুনাম সম্পন্ন। এই হাটে সবজি কেনাবেচা করে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হচ্ছেন সংশ্লিষ্টরা।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশেই বুড়িচং উপজেলার নিমসার এলাকায় সবজির বড় হাট বসে। প্রতিদিন ভোর দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সবজি কেনা বেচায় সরগরম থাকে হাটটি। জেলার বিভিন্ন এলাকার উৎপাদিত নানা জাতের সবজির দেখা মিলে এই হাটে। যাতায়াত ব্যবস্থা ভাল থাকায় কৃষকরা তাদের উৎপাদিত পণ্য নিয়ে এই হাটে বিক্রির জন্য আসেন। পাশাপাশি মহাসড়কের পাশে হওয়ায় পাইকাররাও খুব সহজেই সবজি পরিবহন করে ঢাকায় নিতে পারছেন। সবজি বিক্রেতা আলমগীর দৈনিক ইনকিলাবকে বলেন, তিনি ৪০ হাজার টাকা পুঁজি খাটিয়ে চলতি মৌসুমে প্রায় দেড় লাখ টাকার সবজি বিক্রি করেছেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চারিদিকে শুধু সবজি আর সবজি। এ যেন সবজি চাষীদের মিলনমেলা। এই রকম দৃশ্য চোখে পড়ে নিমসার সবজি হাটে। ভোর থেকে সকাল ৯ পর্যন্ত চলে এ হাট। সবজি ব্যবসায়ী দেলোয়ার হোসেন বলেন, মূলা, শিম, বাঁধাকপি, ফুলকপি, মিষ্টিকুমড়া, চালকুমড়া, বরবটি, লাউ. বেগুন, ওলকপি, টমেটো, লাইশাক, লাল শাক, শশা, পালংশাক, ধনেপাতা এছাড়াও এই হাটে সব জাতের সবজি পাওয়া যায়। ব্যবসায়ী আব্দুল কাইয়ুম জানান, স্থানীয় এই সবজি টাটকা ও তরতাজা হওয়ায় বাজারে ভাল চাহিদা রয়েছে। তাছাড়া অন্যান্য হাটের তুলনায় এই হাটে দরদামও সুলভ এবং বিক্রেতারা আন্তরিক। আড়তদার রতন চৌধুরী দৈনিক ইনকিলাবকে জানান, হাটে কুমিল্লার বুড়িচং, চান্দিনা ও দেবিদ্বারসহ আশপাশের জেলা থেকে ভাল মানের সবজি আসে। তাছাড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থাসহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা থাকায় ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়ের জন্যই অনুকূল পরিবেশ বিরাজমান। প্রতিদিন এই হাটে প্রায় ১ থেকে ৫ কোটি টাকার সবজি কেনা বেচা হয়। ঢাকার কাওরান বাজার থেকে হাটে আসেন কাঁচা মাল ব্যবসায়ী মোতালেব মিয়া। তিনি জানান, আশেপাশের অনেক হাটের তুলনায় নিমসার বাজারে প্রতি মণ সবজির দাম ১০০-২০০ টাকা কমে পাওয়া যায়। আর তরতাজা সবজি মেলে এ হাটে। শুধু মাত্র কাওরান বাজরের ব্যবসায়ীরা নন, ব্রাক্ষণবাড়িয়া, চাঁদপুর, নোয়াখালী, মুন্সীগঞ্জ জেলার ব্যবসায়ীদের কাছে এ হাট এখন বিশেষ ভাবে পরিচিত। ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার ব্যবসায়ী মনির হোসেন বলেন, তুলনামূলক সস্তা এবং তাজা সবজি পাওয়ার পাশাপাশি এ হাটের আরও সুবিধাজনক দিক হচ্ছে সড়ক পথে এখান থেকে সবজি বিভিন্ন স্থানে নেওয়া যায়। চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ থেকে আসা কাঁচামাল ব্যবসায়ী মো.তমিজ উদ্দিন বলেন, অন্যান্য হাট থেকে সবজি আনতে হলে বিভিন্ন জায়গায় চাঁদা দিতে হয়। এ হাটে চাঁদার হয়রানি নেই।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন