ঢাকা রোববার, ২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১০ মাঘ ১৪২৭, ১০ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ঈশ্বরগঞ্জে সরকারী জমিতে প্রভাবশালীদের ভবন নির্মাণ

দায়ের করা মামলা বাতিলের দাবি সরকার পক্ষের

ময়মনসিংহ ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২০ মার্চ, ২০১৯, ৬:১৯ পিএম

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে সরকারের ১নং খাস খতিয়ানভুক্ত জমিতে প্রভাবশালীদের বহুতল ভবন নির্মাণের ঘটনায় দায়ের করা মামলা বাতিলের দাবি জানিয়েছেন সরকার পক্ষ। ময়মনসিংহের বিজ্ঞ তৃতীয় যুগ্ম জেলা জজ আদালতের এসিষ্ট্রেন্ট গর্ভমেন্ট প্লীডার অ্যাডভোকেট আ: কদ্দুস এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
স্থানীয় সূত্র জানায়, রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালের চিকিৎসক ডা: এবিএম খোরশেদ আলম ভূঞা জুয়েল সরকারের ১নং খাস খতিয়ানভুক্ত জমিতে পাচঁ তলা ভবন নির্মাণ কাজ করছেন। এ ঘটনার খবর পেয়ে উপজেলা প্রশাসন নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়। এতে ওই প্রভাবশালী পক্ষ সংক্ষুব্ধ হয়ে জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি)সহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করে আদালতে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় আদালত সরকার পক্ষকে জবাব দাখিলের নির্দেশ দেয়। বিগত ১৪ মার্চ মামলার ধার্য তারিখে আদালতের নির্দেশে লিখিত জবাব দাখিল করেছেন সরকার পক্ষ। কিন্তু ওই প্রভাবশালীরা মামলায় সুরাহা হওয়ায় আগেই প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নির্মাণ কাজ করছে। এনিয়ে উপজেলা প্রশাসনে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় পৌরসভার মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস ছাত্তার এবং প্রতিবেশী ভুক্তভোগী জাহানারা বেগম। তাদের ভাষ্য মতে, নির্মাণাধীন ভবনের মালিক প্রভাবশালী হওয়ায় তারা প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করেই নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। এতে সরকারী স্বার্থ হরণ হচ্ছে বলেও দাবি করেন স্থানীয় পৌর প্রশাসন।
আদালত সূত্র জানায়, সরকারের পক্ষের লিখিত জবাবে বাদী পক্ষ মিথ্যা উক্তিতে মোকাদ্দমা দায়ের করেছেন বলে দাবি করা হয়েছে। এবং বাদীগণের এই মোকাদ্দমা দায়ের করার কোন কারণ বা অধিকার নেই জানিয়ে মোকাদ্দমাটি লিমিটেশান আইনে বাতিল করার জন্য বিজ্ঞ আদালতে দাবি জানানো হয় সরকার পক্ষ থেকে। একই সাথে ভূমিটিতে সরকারের শতভাগ স্বার্থ থাকায় অত্র মোকাদ্দমায় অন্য কেউ কোন প্রকার প্রতিকার পেতে পারে না বলেও বিজ্ঞ আদালতে দাখিলকৃত জবাবে সরকার পক্ষ দাবি করেন।
সংশ্লিষ্ট আদালতের এসিষ্ট্রেন্ট গর্ভমেন্ট প্লীডার অ্যাডভোকেট আ: কদ্দুস বলেন, বর্তমানে ওই ভূমিতে কোন প্রকার ইনজেকশন বা স্থিতিবস্থা নেই। সরকার চাইলে নির্মাণাধীন ভবন ভেঙ্গে দিতে পারে।
এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে রুমানা তোয়া বলেন, মামলার ঘটনায় বিজ্ঞ আদালতে জবাব দাখিল হয়েছে। এখন আদালতের আদেশ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন