ঢাকা, মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯, ০৮ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৯ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

মাটি ও মানুষের উন্নয়নে কৃষি অর্থনীতির বিকাশ অপরিহার্য : এলজিআরডি মন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৫ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, একবিংশ শতাব্দীতে বাংলাদেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণসহ মাটি ও মানুষের উন্নয়নের লক্ষ্যে গ্রামীণ অর্থনীতি তথা কৃষি অর্থনীতির বিকাশ অপরিহার্য।
গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় পল্লী উন্নয়ন একাডেমী (আরডিএ), বগুড়া এবং লিমরা ট্রেড ফেয়ারস্ এন্ড এক্সিবিশনস্ প্রাইভেট লিমিটেড আয়োজিত তিন দিনব্যাপী ৯ম আন্তর্জাতিক কৃষি প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।
স্থানীয় সরকার বিভাগের মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে দেশজ আয়ে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে কৃষির অবদান কিছুটা কম হলেও দেশের শ্রমশক্তির প্রায় অর্ধেক জনগোষ্ঠী কৃষির সঙ্গে জড়িত। এ কারণে কৃষিকে কোনোক্রমেই অর্থনৈতিক নীতি-নির্ধারণের ক্ষেত্রে অবহেলা করার সুযোগ নেই বরং অদূর ভবিষ্যতে বিশ্ব বাজারে খাদ্য পণ্যের সংকটের আশঙ্কা থেকে পরিত্রাণ লাভের জন্য ও দেশকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ ধরে রাখার লক্ষ্যে কৃষিখাতের উপর সরকার আরও জোর দিচ্ছে।
মন্ত্রী বলেন, আধুনিক বিশ্বে কৃষির সকল স্তরে উন্নত প্রযুক্তির ছোঁয়া লাগার পাশাপাশি এদেশের কৃষিতে আধুনিক যন্ত্রপাতির আশানুরূপ পরিবর্তন লক্ষ্যণীয়। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে কৃষি ও ভাগ্যাহত কৃষককূলের উন্নয়নে বাস্তবায়িত হচ্ছে বিভিন্ন কর্মসূচি। প্রচলিত সনাতন ধারার পরিবর্তে খামার যান্ত্রিকীকরণেও আমরা এগিয়েছি। পাশাপাশি উন্নত প্রযুক্তি ও কলাকৌশলের আরো সমন্বয় সাধন প্রয়োজন। তিনি আশা প্রকাশ করেন কৃষিতে যান্ত্রিকীকরণের ফলে কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে এবং তা কৃষিক্ষেত্র ছাড়াও দেশের সামগ্রিক অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে।
মন্ত্রী বলেন, কৃষি জমির সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। গ্রামে ভবন নির্মাণ করে কৃষি জমির উপর চাপ কমাতে হবে। কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে উৎপাদন বাড়াতে হবে। পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সচিব মো. কামাল উদ্দিন তালুকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, লিমরা ট্রেড ফেয়ারস এন্ড এক্সিবিশনস্ প্রাইভেট লিমিটেড-এর পরিচালক কাজী সারোয়ার উদ্দিন। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আরডিএ, বগুড়ার মহাপরিচালক মো. আমিনুল ইসলাম।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন